২৮ বছর পর ‘কোপা’ আবার নীল-সাদার, স্বপ্ন সফল এলএম10- এর

২৮ বছর পর ‘কোপা’ আবার নীল-সাদার, স্বপ্ন সফল এলএম10- এর
২৮ বছর পর ‘কোপা’ আবার নীল-সাদার, স্বপ্ন সফল এলএম10- এর

নজরবন্দি ব্যুরোঃ লাতিন আমেরিকান ক্লাসিকোর টানে ভোর থেকে জেগে উঠেছিল গোটা বাংলার ফুটবলপ্রেমীরা। কারণ আজ ছিল মেসি বনাম নেইমারের লড়াই। আর সেই লরাইতে নেইমারের ব্রাজিলকে হারিয়ে ২৮ বছর পর কোন বড় আন্তর্জাতিক শিরোপা জিতলো মেসির আর্জেন্টিনা।

মেসি পেলেন প্রথম আন্তর্জাতিক শিরোপা। অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়ার করা একমাত্র গোলে কোপা আমেরিকার ফাইনালে লিড নেয় লিওনেল মেসির দল। ১৯৯৩ সালে শেষবার কোপা আমেরিকা জিতেছিল আর্জেন্তিনা। তারপর চারবার ফাইনালে উঠেও একবারও জিততে পারেনি।

কোপা আমেরিকার ফাইনালে প্রথমার্ধের শেষে ১-০ গোলে এগিয়ে খেলা শেষ করে আর্জেন্টিনা। গোল করেন অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া। রেনান লোডির ভুল আর তারপরে এডারসন নেট খুঁজে পেতে ভুল করেননি অভিজ্ঞ ডি মারিয়া।

২৮ বছর পর ‘কোপা’ আবার নীল-সাদার, স্বপ্ন সফল এলএম10- এর

দুই দলের দুই মহাতারকা অর্থাত্‍ লিওনেল মেসি ও নেইমার দুজনেই ঝলক দেখালেও , বিপক্ষের কোচের স্ট্র্যাটেজির কাছে কার্যত বন্দি থাকলেন। মেসি ও নেইমার দৌড়লেই তিনজন করে মার্কিংয়ের চেনা ছকই দেখা গেল প্রথমার্ধে।

কিন্তু শত চেষ্টাতেও আর সমতা ফেরাতে পারেনি ব্রাজিল । নেইমার, রিচার্ডলিসনদের যেন একেবারে পকেটে পুরে ফেললেন ওটামেন্টি, অ্যাকুনারা। নেইমারের পায়ে বল এলেই কোনও না কোনও আর্জেন্টিনার ডিফেন্ডার তাঁকে ট্যাকল করেছেন। আর ডি-বক্সের মধ্যে বল নিয়ে গেলেই পাঁচিলের মতো দাঁড়িয়ে ছিলেন ওটামেন্ডি।

গোলরক্ষক মার্টিনেজের কৃতিত্বও কম কিছু নয়। বিশেষ করে দ্বিতীয়ার্ধে। একাধিক বিশ্বমানের সেভ উপহার দিয়ে দলকে জিতিয়ে এনেছেন তিনি। আর এর সব কিছুর ফল ২৮ বছর পর ‘কোপা’ আবার নীল-সাদার।

২৮ বছর পর ‘কোপা’ আবার নীল-সাদার, স্বপ্ন সফল এলএম10- এর
২৮ বছর পর ‘কোপা’ আবার নীল-সাদার, স্বপ্ন সফল এলএম10- এর

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here