মেট্রো যাত্রীদের জন্য সুখবর, ই-পাসের দুর্ভোগ আর পোহাতে হবে না।

মেট্রো যাত্রীদের জন্য সুখবর, ই-পাসের দুর্ভোগ আর পোহাতে হবে না।

নজরবন্দি ব্যুরো: মেট্রো যাত্রীদের জন্য সুখবর, ই-পাসের দুর্ভোগ আর পোহাতে হবে না। উঠে গেল কলকাতা মেট্রোর ই পাস সিস্টেম। প্রথমে সকল মেট্রো যাত্রীদের জন্য ই-পাস সিস্টেম চালু করা হয়েছিল। কিন্তু পরে ধাপে ধাপে বয়স্ক যাত্রী, মহিলা  ও ১৫ বছরের নিচে যাত্রীদের জন্য ই-পাস সিস্টেম তুলে দেওয়া হয়েছিল। শুধুমাত্র অফিস টাইমে পুরুষ যাত্রীদের ক্ষেত্রে ই-পাসে প্রয়োজন ছিল। কিন্তু কলকাতা মেট্রো জানিয়ে দিয়েছে, সোমবার থেকে আর লাগবে না ই-পাস।

আরও পড়ুন: মৃত্যু সংখ্যায় ফের রেকর্ড গড়ল আমেরিকা, নাজেহাল অবস্থা প্রশাসনের।

প্রসঙ্গত, করোনা সংক্রমণের জেরে দেশজুড়ে লকডাউন ঘোষণার পরেই থমকে যায় মেট্রোর চাকাও। ২২শে মার্চ বন্ধ করে দেওয়া হয় কলকাতা মেট্রো পরিষেবা। পরে আনলক শুরু হওয়ার সঙ্গে ১৪ সেপ্টেম্বর ফের চালু হয় মেট্রো পরিষেবা। কিন্তু সেইসঙ্গে একগুচ্ছ নয়া নিয়ম বেধে দেওয়া হয় মেট্রো যাত্রীদের জন্য। মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক, দূরত্ব বিধি, ই-পাস-সহ একাধিক নয়া নিয়ম চালু হয়। প্রথমে মেট্রো সংখ্যাও খুব কম ছিল। সেইসঙ্গে দুটি মেট্রোর সময়ের ব্যবধানও অনেকটা ছিল। কিন্তু পরে ধাপে ধাপে মেট্রোর নিয়ম শিথিল হওয়া শুরু করে। প্রথম বয়স্ক যাত্রীদের ক্ষেত্রে ই-পাস সিস্টেম উঠে যায়। বাড়ানো হতে থাকে মেট্রোর সংখ্যাও। পরে মহিলা ও ১৫ বছরের নিচে মেট্রো যাত্রীদের জন্যও ই পাস ব্যবস্থা উঠে যায়। বর্তমানে শুধুমাত্র অফিস টাইমে পুরুষ যাত্রীদের ক্ষেত্রে ই-পাসের প্রয়োজন রয়েছে। এবার সেটাও উঠে যাচ্ছে।

আরও পড়ুন: মৃত্যু সংখ্যায় ফের রেকর্ড গড়ল আমেরিকা, নাজেহাল অবস্থা প্রশাসনের।

মেট্রো যাত্রীদের জন্য সুখবর, ই-পাসের দুর্ভোগ আর পোহাতে হবে না। শুধু ই-পাস নয়, এবার বাড়ছে মেট্রো রেলের সংখ্যা। বর্তমানে কলকাতা মেট্রোয় দৈনিক ২২৮টি রেল চলাচল করে। ১৮ জানুয়ারি থেকে তা বেড়ে হবে ২৪০। এমনিতে নয়া বছরের শুরুতেই পুরনো ছন্দেই ফিরেছে কলকাতা মেট্রো। অর্থাৎ লকডাউনের আগে মেট্রোর যে সময়সূচি ছিল, এবার সেটাই ফিরছে। তবে ই-পাস সিস্টেম চালু হলেও, টোকেন কিন্তু এখনই ফিরছে না। সেটি কবে থেকে ফিরবে তা এখনও জানায়নি মেট্রো রেল কর্তৃপক্ষ। যাত্রীরা কেবলমাত্র স্মার্ট কার্ডের সাহায্যেই চলাচল করতে পারবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x