দুই দেশের সম্পর্কই সম্পদ, মৈত্রী দিবসে ইন্দিরা স্মরণে হাসিনা

দুই দেশের সম্পর্কই সম্পদ, মৈত্রী দিবসে ইন্দিরা স্মরণে হাসিনা
দুই দেশের সম্পর্কই সম্পদ, মৈত্রী দিবসে ইন্দিরা স্মরণে হাসিনা

নজরবন্দি ব্যুরোঃ ভারত ও বাংলাদেশ অংশিদারত্ব চুক্তি, সমঝোতা স্মারক, দ্বিপাক্ষিক চুক্তি নয়। বরং দুই দেশের সম্পর্কই সম্পদ, সোমবার ৫০ তম মৈত্রী দিবসের ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে জানালেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ভারত এবং বাংলাদেশের কূটনৈতিক সম্পর্ককে আরও সুদৃঢ় করার বার্তা প্রধানমন্ত্রীর।

আরও পড়ুনঃ সাহিত্য জগতে অপূরণীয় ক্ষতি, আগুনপাখির প্রয়াণে শোক বার্তা অগ্নিকন্যার

এদিন মৈত্রী দিবসঃ ভারত-বাংলাদেশ কূটনৈতিক সম্পর্কের ৫০ বছর উপলক্ষে একটি সেমিনারের আয়োজন করা হয়। সেখানেই বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, “ভারত-বাংলাদেশ সম্পর্কের ভিত্তিপ্রস্ত স্থাপন করেছিলেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান। তিনি ১৯৭২ সালে বলেছিলেন ভারতের সঙ্গে আমাদের বিশেষ সম্পর্ক রয়েছে। ভারত ও বাংলাদেশ আমাদের হৃদয়ে। এই বন্ধুত্বের বন্ধন দীর্ঘস্থায়ী এবং সুদৃঢ় থাকবে”।

একইসঙ্গে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে গিয়েছে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধীর কথা উল্লেখ করেলেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের জনগণের প্রতি ইন্দিরা গান্ধী ও তার সরকার এবং অন্যান্য রাজনৈতিক দলগুলির উদারতার কথা স্মরণ করছি। প্রায় ১০ লক্ষ্য উদবাস্তুদের বাসস্থানের জায়গা করে দিয়েছেন তাঁরা। মুজিবনগরের জন্য জায়গা দিয়েছেন। সেইসঙ্গে বর্তমানে দাঁড়িয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বার্তা, দুই দেশ এবং দেশের জনগোষ্ঠী একত্রে তাঁদের দৃষ্টিভঙ্গি ও ধারণাকে বাস্তাবায়ন করবে।

দুই দেশের সম্পর্কই সম্পদ, মৈত্রী দিবসে ইন্দিরা স্মরণে হাসিনা
দুই দেশের সম্পর্কই সম্পদ, মৈত্রী দিবসে ইন্দিরা স্মরণে হাসিনা

তিনি আরও বলেন, আজ ভারত বাংলাদেশ সম্পর্ক প্রতিষ্টার ৫০ বছর উদযাপন করছে। এটা দুই দেশের সম্পর্কের জন্য একটা মাইলফলক। আমাদের অংশীদারিত্ব চুক্তি, সমঝোতা স্মারক, দ্বিপাক্ষিক চুক্তির মধ্যে সীমাবদ্ধ না থেকে কাজের মধ্যে দিয়ে সম্পর্ককে আরও এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে। নিয়মিত উচ্চপর্যায়ের বৈঠকের রাজনৈতিক আলোচনার মাধ্যমে আগামী দিনে সম্পর্ককে আরও মজবুত করতে হবে।

দুই দেশের সম্পর্কই সম্পদ, আগামী দিনে আরও মজবুত সম্পর্কের আহ্বান হাসিনার

দুই দেশের সম্পর্কই সম্পদ, আগামী দিনে আরও মজবুত সম্পর্কের আহ্বান হাসিনার
দুই দেশের সম্পর্কই সম্পদ, আগামী দিনে আরও মজবুত সম্পর্কের আহ্বান হাসিনার

চলতি বছরেই দুই দিনের বাংলাদেশ সফরে যান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। দুই রাষ্ট্রপ্রধানের বৈঠকে ঢাকা এবং নয়াদিল্লির পাশাপাশি আরও ১৮ টি শহরে যৌথ উদযাপনের সিদ্ধান্তে একমত হয়েছেন দুই রাষ্ট্রপ্রধান। কোভিড-১৯ এর জন্য সমস্ত বিধি নিষেধ থাকলেও আমাদের দুই দেশের মধেয় সম্পর্ক স্থিতিশীল অবস্থায় রয়েছে। আমাদের মধ্যে সহযোগীতা খুব স্পষ্ট ছিল। আগামী কয়েক দশক ধরে দুই দেশের জনগণ আমাদের দৃষ্টিভঙ্গি এবং ধারণাকে আরও স্পষ্ট করেছে।