স্বপ্নের বুলেট ট্রেন প্রকল্পে রেকর্ড ২৫ হাজার কোটির চুক্তি কেন্দ্রীয় সরকারের

স্বপ্নের বুলেট ট্রেন প্রকল্পে রেকর্ড ২৫ হাজার কোটির চুক্তি কেন্দ্রীয় সরকারের

নজরবন্দি ব্যুরোঃ স্বপ্নের বুলেট ট্রেন প্রকল্পে রেকর্ড ২৫ হাজার কোটির চুক্তি কেন্দ্রীয় সরকারের ।২০০৯-১০ সালের রেল বাজেটে মুম্বই- আমেদাবাদ বুলেট ট্রেন প্রকল্প গ্রহণ করা হয়। ওই প্রকল্প কার্যকর করার জন্য তৈরি হয়েছিল ন্যাশনাল হাই স্পিড রেল কর্পোরেশন। সেই সংস্থা শনিবার লার্সেন অ্যান্ড টুব্রোর সঙ্গে ২৫ হাজার কোটি টাকার চুক্তি করল। ৩২৫ কিলােমিটার দীর্ঘ বুলেট ট্রেন প্রকল্পের যে অংশটি গুজরাতের মধ্যে পড়েছে,সেখানে পরিকাঠামাে নির্মাণের কাজ করবে লার্সেন অ্যান্ড টুব্রো। এর আগে সরকার অসামরিক প্রকল্পের জন্য এত বিপুল অঙ্কের চুক্তি করেনি।

আরও পড়ুনঃ‘বিজেপি–তে গিয়ে ছাগলের ৩ নম্বর বাচ্চা হয়েছে’, সৌমিত্র খাঁ-কে বেনজির আক্রমণ রবীন্দ্রনাথ ঘোষের

জাপানের সঙ্গে যৌথভাবে ওই প্রকল্প রূপায়ন করবে ভারত।জাপানের রাষ্ট্রদূত সাতােশি সুজুকি এদিন বলেন, এই সময় অর্থনীতির পুনরুজ্জীবন ঘটা খুবই জরুরি। সেজন্য এই বিশাল প্রকল্পে হাত দেওয়া হয়েছে। এই প্রকল্প কেবল ভারতে জাপানি প্রযুক্তি সরবরাহ করবে না, বুলেট ট্রেন প্রকল্পের মাধ্যমে নগরােন্নয়নও হবে।রেলওয়ে বাের্ডের সিইও এবং চেয়ারম্যান ভি কে যাদব বলেন,মুম্বই-আমেদাবাদ বুলেট ট্রেন প্রকল্প শেষ হওয়ার পরে এরকম আরও প্রকল্প গ্রহণ করা হবে।

এই প্রকল্পে ইঞ্জিনিয়ার, ডিজাইনার, আর্কিটেক্টরা কাজ তাে পাবেনই, সেই সঙ্গে দক্ষ ও আধা দক্ষ শ্রমিকদেরও কর্মসংস্থান হবে।ইতিমধ্যে বুলেট ট্রেন প্রকল্প নিয়ে নানা স্তরে দেখা দিয়েছে বিরােধিতা। কিছুদিন আগে শিবসেনার এক নেতা জানিয়েছেন, ওই প্রকল্পে বাধা দিতে চলেছে তাদের দল।শিবসেনা বিধায়ক দীপক কেসারকর বলেন, “আমরা কৃষকদের সমস্যা সমাধানে গুরুত্ব দেব। আমি ব্যক্তিগতভাবে মনে করি, বুলেট ট্রেনের কোনও দরকার নেই।” মহারাষ্ট্রে শিবসেনা, কংগ্রেস, এনসিপি জোটের নাম মহা বিকাশ আগাদি৷ জোটের নেতারা আগেই ইঙ্গিত দিয়েছিলেন, বুলেট ট্রেন প্রকল্পে যে বিপুল অর্থ খরচ হবে, সেই তুলনায় লাভ হবে বলে তারা মনে করেন না।

এক শীর্ষস্থানীয় নেতা সংবাদমাধ্যমকে বলেছিলেন, যদি বুলেট ট্রেন প্রকল্প চালু রাখতে হয়, তাহলে কেন্দ্রীয় সরকারকে তার খরচ বহন করতে হবে। মহারাষ্ট্র সরকার ওই প্রকল্পে খরচ করবে না।এনসিপি-র এক শীর্ষ নেতাও বলেন, ওই প্রকল্পে মহারাষ্ট্রের খরচ হওয়ার কথা ১ লক্ষ ৮ হাজার কোটি টাকা। অত টাকা খরচ করা রাজ্য সরকারের পক্ষে সম্ভব নয়।মহারাষ্ট্রে গত কয়েক বছর খরায় শস্যের ক্ষতি হয়েছে। চলতি বছরে বন্যায় ডুবে গিয়েছিল কয়েক লক্ষ একর জমি। এর ফলে রাজ্যের কৃষকরা বড় ধরনের ক্ষতির মুখে পড়েছেন।গত শনিবার রাজ্যপাল কৃষকদের জন্য ক্ষতিপূরণের প্যাকেজ ঘােষণা করেন।

স্বপ্নের বুলেট ট্রেন প্রকল্পে রেকর্ড ২৫ হাজার কোটির চুক্তি কেন্দ্রীয় সরকারের ।কিন্তু বিরােধীরা দাবি করে, প্রতি হেক্টর কৃষিজমি পিছু ২৫ হাজার টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে হবে।মুম্বইয়ের আরে কলােনি শহরের সবচেয়ে সবুজ এলাকা বলে পরিচিত। সেখানকার বাসিন্দারা দীর্ঘকাল যাবৎ গাছ কাটার বিরুদ্ধে আন্দোলন করে আসছেন। শিবসেনার এই ঘােষণাকে আরে কলােনির বাসিন্দাদের জয় হিসাবে দেখছেন অনেকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x