সমবায় ব্যাংক দুর্নীতি মামলায় অর্জুন সিং এর অসহযোগিতা, অভিযোগ পুলিশ কমিশনারের

সমবায় ব্যাংক দুর্নীতি মামলায় অর্জুন সিং এর অসহযোগিতা,  অভিযোগ পুলিশ কমিশনারের

নজরবন্দি ব্যুরো : সমবায় ব্যাংক দুর্নীতি মামলায় অর্জুন সিং এর অসহযোগিতা, ভাটপাড়া সমবায় ব্যাংকের বহু কোটি টাকা ঋণের মাধ্যমে তছরুপ হয় বলে অভিযোগ। মোট ২৬টি ফাইলে সই হওয়ার পর ঋণের অনুমোদন মিলেছিল। যার পরিমাণ পুলিশ আগে জানিয়েছিল ২০ কোটি টাকা, কিন্তু পরে দেখা যায় তা ১১-১২ কোটি টাকার বেশি নয়। যদিও ভাটপাড়া সমবায় ব্যাংক দুর্নীতি ইস্যুতে আইন মেনেই পুলিশ তদন্ত করছে বলে সাংবাদিক বৈঠক করে জানালেন ব্যারাকপুর পুলিশ কমিশনারেটের যুগ্ম পুলিশ কমিশনার অজয় ঠাকুর ।

আরও পড়ুনঃ অঙ্গ বেচে ঋণ মেটান, আত্মহত্যার আগে প্রধানমন্ত্রীকে মর্মান্তিক চিঠি কৃষকের।

যদিও অজয় বাবু অভিযোগের সুরে বলেন, “ভাটপাড়া সমবায় ব্যাংক প্রতারণা মামলায় সাংসদ অর্জুন সিংকে তিনবার নোটিশ পাঠিয়ে পুলিশের সঙ্গে দেখা করতে বলা হলেও তিনি এই মামলায় পুলিশের সঙ্গে দেখা করেননি । ২০১৮ সালে যখন ভাটপাড়া সমবায় ব্যাংকের চেয়ারম্যান এবং একই সঙ্গে ভাটপাড়া পৌরসভার চেয়ার ম্যান ছিলেন অর্জুন সিং, তখন ভাটপাড়া সমবায় ব্যাংকে প্রায় ১২ কোটি টাকা জালিয়াতির ঘটনা ঘটেছে । ২৬ টি কোম্পানির নামে ওই টাকা তুলে নেওয়া হয়েছে ।”

সম্প্রতি ব্যারাকপুরের বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং ভাটপাড়া সমবায় ব্যাংক প্রতারণা মামলা ইস্যুতে বলেন, “ব্যারাকপুর পুলিশ কমিশনারেটের পুলিশ আইন না মেনে কাজ করছে । যারা ব্যাংক প্রতারণার মামলা করেছিল, তারা আদালতের দ্বারস্থ হয়ে মমলা তুলে নিতে চাইলে পুলিশ সেই সব মামলাকারীদের বাড়িতে নোটিশ পাঠিয়ে তাদের হেনস্থা করছে । আমি বিষয়টি রাজ্যপালের নজরে এনেছি ।” ভাটপাড়া সমবায় ব্যাংক প্রতারণা মামলায় শনিবার সাংসদ অর্জুন সিংয়ের মন্তব্যের পাল্টা জবাব দিলেন ব্যারাকপুর পুলিশ কমিশনারেটের যুগ্ম পুলিশ কমিশনার অজয় ঠাকুর ।

ব্যারাকপুরের সাংসদ অর্জুন সিংয়ের ভাইপো সঞ্জিত সিং ওরফে পাপ্পুর বিরুদ্ধে সমবায় ব্যাংক প্রতারণার মামলা করেছিলেন সতীশ দাস, রাহুল বৈদ্য ও সন্তোষ বৈদ্য। এরপর তিনজনই এই মামলা তুলে নেওয়ার আবেদন করেন আদালতের মাধ্যমে। এরপর ও ব্যারাকপুর পুলিশ কমিশনাররেটের গোয়েন্দা বিভাগের অফিসাররা ওই তিনজনকে সমন পাঠিয়েছে। যা নিয়ে খোদ অর্জুন সিং রাজ্যপালের কাছে অভিযোগ করেছিলেন। এরপর রাজ্যপাল টুইট করে আদালতের বিষয়ে পুলিশের হস্তক্ষেপ নিয়ে কড়া মন্তব্য করেছেন পুলিশের বিরুদ্ধে। সাংসদের পর শনিবার ব্যারাকপুর পুলিশ কমিশনারেটের গোয়েন্দা শাখার অফিসে পাল্টা প্রেস মিট করেন ব্যারাকপুরের জয়েন্ট সিপি অজয় ঠাকুর।

সমবায় ব্যাংক দুর্নীতি মামলায় অর্জুন সিং এর অসহযোগিতা, তিনি বলেন,” ভাটপাড়া নৈহাটি সমবায় ব্যাঙ্কের দুর্নীতি নিয়ে মোট চোদ্দ(১৪)টি মামলা হয়েছে । তার মধ্যে পাঁচজন মামলা তুলে নেবার আবেদন করেছিল আদালতে। তাদের বক্তব্য ছিল, তারা পুলিশকে যা বলেছিল, সেই মত অভিযোগ ছিল না মামলায়। ফলে পুলিশের পক্ষ থেকে তাদের নোটিশ দিয়ে জানতে চাওয়া হয় কি পার্থক্য ছিল অভিযোগকারীর বয়ানের সঙ্গে পুলিশের অভিযোগ পত্রের । এই ব্যাংক প্রতারণা মামলায় একটি কেসে প্রাথমিক চার্জশিট জমা পরে গেছে। এই মামলায় পাঁচজন গ্রেফতার হয়েছিল। তারমধ্যে দুজন জামিন পেয়েছে। এই মামলায় নাম থাকা সাংসদকে তিনবার নোটিস পাঠালেও তিনি পুলিশের সঙ্গে দেখা করেননি। তাই রাজ্য সরকারের কাছে আবেদন করা হয়েছে যাতে তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আবার ডাকা যায়। পুলিশ আইন মেনেই সব কাজ করছে, তদন্ত এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে ।”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x