দলবদলু প্রাক্তন মন্ত্রী শ্যাম মুখার্জীকে নামিয়ে রথ ধোয়াল আদি-বিজেপি।

দলবদলু প্রাক্তন মন্ত্রী শ্যাম মুখার্জীকে নামিয়ে রথ ধোয়াল আদি-বিজেপি।

নজরবন্দি ব্যুরোঃ “সোনার বাংলা” গড়ার লক্ষ্যে গোটা রাজ্য জুড়ে প্রচার চালাচ্ছে বিজেপি। পরিবর্তনের বার্তা দিতে রাজ্যের ২৯৪টি বিধানসভা ঘুরছে বিজেপির পরিবর্তনের রথ। সেই মতোই আজ পরিবর্তনের রথের পথ ছিল বাঁকুড়া। এমনিতেই এই অনুষ্ঠান ঘিরে সকাল থেকেই অল্প বিস্তর উত্তপ্ত বাঁকুড়া। অনুমতি ছাড়াই বিজেপি পরিবর্তনের রথের ফ্লেক্স লাগিয়েছে বলে তৃণমূল সেসব ছিঁড়ে দিয়েছে, এমনই অভিযোগ তুলেছিল স্থানীয় বিজেপি নেতৃত্ব। এবার আরও বড় ঘটনা ঘটলো এই “পরিবর্তনের রথ’যাত্রা ঘিরেই। দলবদলু প্রাক্তন মন্ত্রী শ্যাম মুখার্জীকে নামিয়ে রথ ধোয়াল আদি-বিজেপি।

আরও পড়ুনঃ পাশ করেছি, চাকরি কই? পুলিশি বাধা টপকে শিক্ষামন্ত্রীর বাড়িতে হবু শিক্ষকরা।

শ্যাম মুখার্জী, গত ৩৪ বছর ধরে বিষ্ণুপুর পুরসভার পুরপ্রধান, এবং রাজ্যের শাসক দলের প্রাক্তন মন্ত্রীও। কয়েকদিন আগেই বাকিদের মত একাধিক যুক্তি দিয়ে তৃণমূল থেকে বিজেপিতে গিয়েছিলেন তিনি। বাংলায় পরিবর্তন আনবে ভেবে যে দলে গিয়েছিলেন, সেই দলই আজকে তাঁর দীর্ঘ ৩৪ বছরের গরিমাকে ক্ষুন্ন করলো বলে মনে করছেন অনেকে। আদি বিজেপির নেতাদের কটুক্তিতে রথ ছেড়ে নেমে যেতে বাধ্য হলেন তিনি, শুধু তাই নয়, তিনি রথ থেকে নেমে যাওয়ার পরই দুধ গঙ্গাজল দিয়ে ধোয়া হল রথ।

ভোটের আগে তৃণমূল থেকে যত বেশি নেতা মন্ত্রীরা বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন, তত প্রকট হয়েছে বিজেপির ভেতরের আদি-নব্যের লড়াই। রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় নির্বাচনী প্রচারে “আদি বিজেপি” নামের দেওয়াল লিখনও পড়েছে। বিভিন্ন জায়গায় বিবাদও হয়েছে চরম। কিন্তু এরকম ঘটনা নজিরবিহীন বলেই মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল।

গত কয়েকমাস আগেই অমিত শাহের হাত ধরেই বিজেপিতে নাম লিখিয়েছিলেন শ্যাম বাবু। তখন থেকেই তাঁকে দলে নেওয়া নিয়ে জেলা বিজেপির মধ্যেই বিতর্ক হয়েছিল বিস্তর। তার পরও দলেই ছিলেন তিনি। কিন্তু আজকে পরিবর্তনের রথের ওপরেই ঘটে গেল অভাবনীয় ঘটনা। বিষ্ণুপুর শহরে রথ ঢোকার আগেই জয়পুর জঙ্গলের কাছেই বিজেপির আদি নেতাদের কটুক্তিতে রথ থেকে নেমে পড়তে বাধ্য হলেন তিনি।

দলবদলু প্রাক্তন মন্ত্রী শ্যাম মুখার্জীকে নামিয়ে রথ ধোয়াল আদি-বিজেপি। ঘটনার প্রেক্ষিতে প্রাক্তন মন্ত্রী জানিয়েছেন, দলের কথাতেই রথে চেপেছিলেন তিনি, বিক্ষোভ, ঝামেলার আঁচ পেয়েই রথ থেকে নেমে গেছেন নিজেই। অন্যদিকে বিজেপির নেতা নীরজ কুমার জানিয়েছেন দলের মধ্যে কোন বিতর্ক নেই শ্যাম বাবু কে নিয়ে, তিনি আরও জানিয়েছেন আজকে তিনি ওই রথে দেখেননি শ্যাম বাবুকে। কিন্তু প্রশ্ন উঠছেই, কোন ধরনের পরিবর্তন আসছে, যেখানে সেই দলেরই কর্মীকে নামতে হয় , শুধু তাই নয়, তার পর দুধ গঙ্গা জল দিয়ে ধুতে হচ্ছে রথকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x