ভ্যাকসিন এগিয়ে দিচ্ছে দেশকে, দেশের প্রশংসায় পঞ্চমুখ মোদি।

ভ্যাকসিন এগিয়ে দিচ্ছে দেশকে,  দেশের প্রশংসায় পঞ্চমুখ মোদি।

নজরবন্দি ব্যুরো: ভ্যাকসিন এগিয়ে দিচ্ছে দেশকে, প্রবাসী দিবস উদ্বোধনে বললেন মোদি। আজ বিদেশ মন্ত্রকের ১৯তম প্রবাসী ভারত দিবস উপলক্ষে একটি ভার্চুয়াল সম্মেলনে মোদীর দাবি করোনা আবহেই হচ্ছে এবারের অনুষ্ঠান। এবারের প্রবাসী ভারতীয় দিবসের থিম আত্মনির্ভর ভারত গড়ার ক্ষেত্রে ভারতীয় বংশোদ্ভূতদের অবদান। ভারতের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে বিদেশে থাকা ভারতীয়দের যোগদানের বিষয়ে উৎসাহিত করার জন্যই প্রবাসী ভারতীয় দিবস আয়োজন করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন: গরু পাচারকাণ্ডে তলব! CBI-এর বিরুদ্ধে হাইকোর্টের দ্বারস্থ দুই আইপিএস অফিসার

বিদেশ মন্ত্রকের ১৯তম প্রবাসী ভারত দিবস উপলক্ষে একটি ভার্চুয়াল সম্মেলনে মোদীর দাবি,‘‘এই কিছু দিন আগেও পিপিই কিট, মাস্ক, ভেন্টিলেটর-সহ টেস্টিং কিট বাইরে থেকে আমদানি করত ভারত। তবে এখন আমাদের দেশ আত্মনির্ভর।’’ কোভিডের মতো অতিমারির মোকাবিলাতেও সেই আত্মনির্ভরতার ঝলক দেখতে পাওয়া গিয়েছে বলেও দাবি করেন তিনি। অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার তৈরি ভ্যাকসিন ‘কোভিশিল্ড’-এর পাশাপাশি ভারত বায়োটেকের কোভ্যাক্সিন সম্প্রতি এ দেশে জরুরি ভিত্তিতে ব্যবহারের ছাড়পত্র পেয়েছে। এ ছাড়া, আমদাবাদের ওষুধ প্রস্তুতকারী সংস্থা জাইডাস-ক্যাডিলার ভ্যাকসিনেরও ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল চলছে। সেই প্রসঙ্গেই মোদীর মন্তব্য, ‘‘আজ আমরা ভারতে তৈরি দু’টি কোভিড ভ্যাকসিনের মাধ্যমে মানবজাতিকে রক্ষা করতে তৈরি।’

ভ্যাকসিন এগিয়ে দিচ্ছে দেশকে বলে দেশের ভূয়সী প্রশংসা করেন প্রধানমন্ত্রী। আজ আমরা ইন্টারনেটের মাধ্যমে পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্ত থেকে সবার সঙ্গে সংযোগ স্থাপন করতে পেরেছি, কিন্তু আমাদের মন সবসময় মা ভারতীর সঙ্গে সংযুক্ত। জরুরি ভিত্তিতে করোনা ভ্যাকসিন কোভিশিল্ড ও কোভ্যাক্সিন প্রয়োগের ছাড়পত্র দিয়েছে ড্রাগস কন্ট্রোলার জেনারেল অব ইন্ডিয়া। গোটা দেশে শুরু হয়ে গিয়েছে ভ্যাকসিন প্রয়োগের মহড়া। আজ এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, ‘ভারতে ভ্যাকসিন তৈরি হয়েছে। এর জন্য সবাইকে অভিনন্দন জানাই। দেশ কীভাবে আত্মনির্ভর ভারত হওয়ার দিকে এগিয়ে চলেছে, ভ্যাকসিন তৈরির ঘটনা সেটাই দেখিয়ে দিচ্ছে। এই দু’টি ভ্যাকসিনের মাধ্যমে শুধু দেশের মানুষেরই নয়, সারা বিশ্বের সেবা করতে তৈরি ভারত। আমরা কীভাবে বিশ্বের বৃহত্তম টিকাকরণ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করি, সেটা দেখার অপেক্ষায় সারা বিশ্ব।’

গত দু’দশকেরও বেশি সময় ধরে বিশ্বের অন্যতম বৃহৎ সমস্যা হল সন্ত্রাসবাদ। ভারতও সন্ত্রাসবাদের শিকার। এ বিষয়ে ভারতের ভূমিকার কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, ‘ভারত যখন সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়িয়েছে, তখন সারা বিশ্ব এই চ্যালেঞ্জের মোকাবিলা করার সাহস পেয়েছে। আজ ভারত সন্ত্রাসবাদকে শেষ করার জন্য প্রযুক্তিকে কাজে লাগাচ্ছে। এখন সরাসরি অ্যাকাউন্টে লক্ষ কোটি টাকা পাঠিয়ে দেওয়া হচ্ছে।’

মোদি আরও বলেছেন, ‘অনাবাসী ভারতীয়রা যে যে দেশে আছেন, সেখানে নিজেদের পরিচিত গড়ে তুলেছেন। তাঁদের ভূমিকা প্রশংসনীয়। ভারতের উন্নয়নের ক্ষেত্রেও তাঁদের ভূমিকা উল্লেখযোগ্য। ভারতে এখন গরিবদের উন্নয়নের জন্য যে প্রকল্প শুরু হয়েছে, সারা বিশ্বে এই প্রকল্প নিয়ে আলোচনা চলছে। করোনা অতিমারীর শুরুতে ভারত বিদেশ থেকে পিপিই কিট, মাস্ক, ভেন্টিলেটর, টেস্টিং কিট আমদানি করছিল। তবে এখন দেশ আত্মনির্ভর হয়েছে।’

অনাবাসী ভারতীয় ও ভারতীয় বংশোদ্ভূতদের সঙ্গে দেশের যোগাযোগ বাড়ানো এবং দেশের উন্নতিতে তাঁদের যোগদান নিশ্চিত করার লক্ষ্যেই প্রবাসী ভারতীয় দিবসের আয়োজন করা হচ্ছে। এবারের অনুষ্ঠানে ‘আত্মনির্ভর ভারতে ভারতীয় বংশোদ্ভূতদের ভূমিকা’ এবং ‘করোনা পরবর্তী পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্য, অর্থনীতি, সমাজ এবং আন্তর্জাতিক সম্পর্কের ক্ষেত্রে বিভিন্ন সমস্যার মোকাবিলা’ নিয়ে আলোচনার কথা জানানো হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x