মুখ্যমন্ত্রীকে নিয়ে কৈলাসের টুইটের পাল্টা জবাব তৃণমূল মহিলা ব্রিগেডের।

মুখ্যমন্ত্রীকে নিয়ে কৈলাসের টুইটের পাল্টা জবাব তৃণমূল মহিলা ব্রিগেডের।

নজরবন্দি ব্যুরো: মুখ্যমন্ত্রীকে নিয়ে কৈলাসের টুইটের পাল্টা জবাব তৃণমূল মহিলা ব্রিগেডের। আর বিলম্ব নয়। এবার কৈলাসের টুইটের পাল্টা জবাব দিল, তৃণমূল মহিলা ব্রিগেড। তাঁরা নিজেদের এদিন মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে কৈলাসের করা এই টুইটে তীব্র প্রতিবাদ করেন। তাঁদের দাবি, শুধু মুখ্যমন্ত্রীই নন, কৈলাসের টুইটে অপমানিত হয়েছেন, ভারতীয় নারীরাও। সম্প্রতি বোলপুর সফর শেষ হওয়ার দিন, বল্লভপুর মোড়ের বাবু বাগদীর চায়ের দোকানে ঢুকে আচমকাই তাঁর স্ত্রী হাত থেকে কুন্তি নিয়ে পাঁচমিশালি তরকারি রান্না করতে শুরু করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

আরও পড়ুনঃ অসুস্থ মহারাজের আরোগ্য কামনায় টুইট করলেন অভিনেত্রী নাগমা!

আর এই ঘটনার পরই ৩০ নভেম্বর তিনি কলকাতায় ফিরে আসেন। আর তারপরই তাঁর রান্না করা এই ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে যায়। আর তার এই ছবিকে নিয়েই শুরু শুরু রাজনৈতিক তরজা। আর এরই মাঝে এই ছবি নিয়ে বিরুপ মন্তব্য করে বসেন রাজ্য বিজেপি পর্যবেক্ষক কৈলাস বিজয়বর্গীয়। তিনি এদিন এই ছবি প্রসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রীকে তোপ দেগে লেখেন, ‘‘যে কাজ দিদিকে ৫ মাস পরে করতে হবে। সেই কাজ এখন থেকেই শুরু করে দিয়েছেন।’’ আর তারপরই এই টুইটের দু’দিন পর শনিবার সকালে কৈলাসকে আক্রমনাত্মক সুরে জবাব দেন তৃণমূলের মহিলা ব্রিগেডেরা।

প্রথমে বারসতের চিকিত্সক সাংসদ কাকলি ঘোষ দস্তিদার, রাজ্যের নারী ও শিশু কল্যাণমন্ত্রী শশী পাঁজা ও বসিরহাটের সাংসদ নুসরাত জাহান। টুইটে কাকলি লেখেন, ‘আপনি যদি একজন নারী হন এবং রাজনীতিতে যোগদানে ইচ্ছুক থাকেন, জেনে রাখুন আমাদের দেশের বিজেপিরা নারীবিদ্বেষ নিয়ে জর্জরিত। তাঁরা নারীদের রান্নাঘরে পাঠানোর চেষ্টা করছেন। আমরা ভাবতে পারছি না যে কৈলাস বিজয়বর্গীয়র পরিবারের মহিলারা কত কম সম্মানিত হন”। বারাসতের তৃণমূল সাংসদের পর মন্ত্রী শশী পাঁজা টুইটে লেখেন, “বিজেপি আবার তাঁদের আসল রং দেখিয়ে দিল। ভারতের একমাত্র মহিলা মু্খ্যমন্ত্রী প্রসঙ্গে তাঁরা কী ভাবেন, এর থেকেই স্পষ্ট। এতে অবাক হওয়ার কিছু নেই, যে আমাদের মহিলারা তাঁদের শাসনে নিরাপদে নেই। আপনার সংকীর্ণতার সমালোচনা করার আগে জানাই আপনাদের মনিব একজন চা-ওয়ালা”।

এরপরই টুইটে অভিনেত্রী নুসরত জাহান লেখেন, ‘কৈলাস বিজয়বর্গীয় মন্তব্য পুরোপুরি নারীবিদ্বেষী। বিজেপি প্রতিটি নারীকে অপমানের সব মাত্রা অতিক্রম করেছে। যাঁরা রান্নাবান্না করেন, তাঁরা তাঁদের পরিবারকে ভাল রাখেন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ভারতের একমাত্র মহিলা মুখ্যমন্ত্রী। বিজেপি তাঁকে আবার আক্রমণ করে কুকথা বলেছে। লজ্জাজনক”।

মুখ্যমন্ত্রীকে নিয়ে কৈলাসের টুইটের পাল্টা জবাব তৃণমূল মহিলা ব্রিগেডের। আর এদিন এরও পাল্টা জবাব দিয়েছে বিজেপি। বিজেপির এক নেতা দাবি করেন, ‘তৃণমূল যে এখন পুরোপুরি প্রশান্ত কিশোরের নেতৃত্বে চলছে, তা তৃণমূলের মহিলা নেত্রীদের টুইটে স্পষ্ট হয়ে গেল। কৈলাসজি দু’দিন আগে টুইট করেছিলেন। তাতেও মুখ্যমন্ত্রী প্রসঙ্গে কোনও খারাপ কথা লেখেননি। কিন্তু যেহেতু প্রশান্ত কিশোর ও আইপ্যাকের মনে হয়েছে ওই টুইটে দিদির অপমান হয়েছে। তাই তৃণমূলনেত্রীরা তাঁদের লিখে দেওয়া টুইট নিজেদের টুইট একাউন্টে লিখেছেন।’’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x