বাংলা-উত্তরপ্রদেশ নির্বাচন জিততে সাহায্য করবেন ওয়েইসি, বিস্ফোরক বিজেপি নেতা

বাংলা-উত্তরপ্রদেশ নির্বাচন জিততে সাহায্য করবেন ওয়েইসি, বিস্ফোরক বিজেপি নেতা

নজরবন্দি ব্যুরো: বাংলা-উত্তরপ্রদেশ নির্বাচন জিততে সাহায্য করবেন ওয়েইসি, বিতর্কিত মন্তব্য করে ফের শিরোনামে বিজেপি নেতা সাক্ষী মহারাজ। তিনি বললেন, অল ইন্ডিয়া মজলিস এ ইত্তেহাদুল মুসলিমিন বা AIMIM-এর নেতা আসাদউদ্দিন ওয়েইসি বিজেপিকে বিহার বিধানসভা ভোট জিততে সাহায্য করেছেন। তেমনই এবার পশ্চিমবঙ্গ ও উত্তর প্রদেশ নির্বাচন জিততেও বিজেপিকে সাহায্য করবেন তিনি।’ তাঁর এহেন মন্তব্যকে ঘিরে শোরগোল পড়ে গিয়েছে রাজনৈতিক মহলে।

আরও পড়ুন: অপসারণের পর এবার মুখ্যমন্ত্রীকে ইঙ্গিতপূর্ণ বার্তা শিশির অধিকারীর।

সম্প্রতি বাংলার আব্বাস সিদ্দিকীর সঙ্গে বৈঠক করে জল্পনা বাড়িয়েছেন ওয়েইসি। একুশের রণনীতি ঠিক করতে ময়দানে ঝাঁপিয়ে পড়েছে রাজনৈতিক দলগুলি। তৃণমূল, বিজেপি ছাড়াও বাংলার আসন দখলের দিকে ‘নজর’ রয়েছে ওয়েইসির। আগেই মিম প্রধান ওয়েইসি জানিয়ে দিয়েছিলেন বাংলার বিধানসভা নির্বাচনে এবার প্রার্থী দেবেন তিনি। তা নিয়ে রাজ্য রাজনীতিতে জলঘোলা কম হয়নি। রাজ্যের অবিজেপি দলগুলি একযোগে সোচ্চার হয়েছিল বিজেপিকে সুবিধা করে দিতেই বাংলার ভোটের ময়দানে নামছে মিম।

বিরোধীদের দাবি, বিজেপির বি টিম হল মিম। এবার কিনা সেই দাবিতেই সিলমোহর দিলেন সাক্ষী মহারাজ। তিনি বলেছেন, পশ্চিমবঙ্গ ও উত্তর প্রদেশ ভোটে মিমের সাহায্য বিজেপিকে জয়লাভে সাহায্য করবে। তাঁর কথায়, এটা ঈশ্বরের কৃপা। ঈশ্বর ওঁকে শক্তি দিন। উনি বিহারে আমাদের সাহায্য করেছেন, আর এখন উত্তর প্রদেশ পঞ্চায়েত ও বিধানসভা ভোট এবং পশ্চিমবঙ্গ ভোটে আমাদের সাহায্য করবেন। তবে উল্টো সুর ওয়েইসির।তাঁর দাবি, তাঁর রাজনৈতিক দলের সঙ্গে বিজেপির কোনওভাবে সম্পর্ক নেই।

বাংলা-উত্তরপ্রদেশ নির্বাচন জিততে সাহায্য করবেন ওয়েইসি, আসাদুদ্দিন ওয়াইসির দলটি বিহারে বিধানসভা ভোটে সাফল্য পেয়েছে। এ বার নজরে বাংলা। এর আগেও ওয়েইসি বাংলায় এলে লাভ হবে বিজেপিরই। কারণ, তাঁর দল মিম তৃণমূলের সংখ্যালঘু ভোট ব্যাংকে থাবা বসিয়ে মুসলিম ভোটের একটা বড় অংশ কেটে নিতে পারে। যা আখেরে গেরুয়া শিবিরকে বাড়তি অ্যাডভান্টেজ দেবে। এমনটাই বলেছিলেন মমতা সরকারের গ্রন্থাগারমন্ত্রী ও জমিয়তে উলেমা-ই হিন্দের বঙ্গ সভাপতি সিদ্দিকুলা চৌধুরী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x