ফুল,মিষ্টি নিয়ে রাজভবনে মুখ্যমন্ত্রী, মীমাংসা নাকি নয়া বিতর্ক, জল্পনা তুঙ্গে।

ফুল,মিষ্টি নিয়ে রাজভবনে মুখ্যমন্ত্রী, মীমাংসা নাকি নয়া বিতর্ক, জল্পনা তুঙ্গে।

নজরবন্দি ব্যুরো: ফুল,মিষ্টি নিয়ে রাজভবনে মুখ্যমন্ত্রী, নবান্ন থেকে সরাসরি রাজভবনে চলে যান তিনি। রাজ্যপালের সঙ্গে সাক্ষাৎ হল মুখ্যমন্ত্রীর। বেশ কিছুক্ষণ ধরে তাঁদের মধ্যে বৈঠক হয়। আজকের এই বৈঠক যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করা হচ্ছে। সৌজন্য সাক্ষাৎ বলে জানানো হয়েছে নবান্ন সূত্রে। রাজভবনের যে গেটে সংবাদমাধ্য়ম অপেক্ষায় ছিল মুখ্য়মন্ত্রী সম্পূর্ণ তার বিপরীত গেট দিয়ে বেরিয়ে যান। প্রায় পাঁচ মাস পর রাজভবনে গেলেন মুখ্যমন্ত্রী ।

আরও পড়ুনঃ বিজেপির ওপর তৃণমূলের অত্যাচার জারি থাকলে এবার ওষুধ বাতলে দেবেন শুভেন্দু। দিলেন হুঁশিয়ারি।

দেখা করেন রাজ্যপালের সঙ্গে। গত বছরের ১৫ অগস্ট শেষ বার রাজভবনে গিয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বুধবার রাজভবন থেকে বেরনোর পর একটি টুইট করেন রাজ্যপাল। সেখানে লেখা ছিল, তাঁদের মধ্যে ‘নববর্ষের শুভেচ্ছা বিনিময়’ হয়েছে। কিন্তু সেই টুইট কিছু ক্ষণের মধ্যেই রাজ্যপালের টুইটার হ্যান্ডল থেকে মুছে ফেলা হয়। নতুন টুইটে লেখা হয়, মুখ্যমন্ত্রী রাজভবনে আসায় ‘সস্ত্রীক আমি শুভেচ্ছা জানিয়েছি’। তবে তিনি কেন রাজভবনে গিয়েছিলেন, তা নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী কোনও মন্তব্য করেননি।

যাওয়ার সময় গাড়ির কাচ নামিয়ে হাত নাড়তে নাড়তে বেরিয়ে যান মমতা। এমনকি সাক্ষাৎকারের বিষয়ে তিনি কোনও মন্তব্য় করতে চাননি। তবে জল্পনা থেমে নেই তাঁদের আজকের বৈঠক ঘিরে। রাজ্যপাল ট্যুইট করে জানিয়েছেন, মুখ্যমন্ত্রী আজ ফোন করেছিলেন। তারপর তিনি রাজভবনে আসেন। নববর্ষের শুভেচ্ছা জানাতে তিনি এসেছিলেন। ফুল এবং মিষ্টি নিয়ে রাজভবনে গিয়েছিলেন তিনি।

সংসদীয় রাজনীতিতে মুখ্যমন্ত্রী-রাজ্যপাল সাক্ষাৎ অত্যন্ত স্বাভাবিক। কিন্তু, ২০১৯-এর অগস্টে পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল পদে ধনখড় দায়িত্ব পাওয়ার পর থেকেই নানা ইস্যুতে তাঁর সঙ্গে সঙ্ঘাত বেধেছে রাজ্যের। রাজ্যপাল যেমন একাধিক বিষয় নিয়ে রাজ্য সরকারের কার্যকলাপ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন, পাল্টায় তেমনই রাজ্য সরকারের মন্ত্রী ও তৃণমূল সাংসদরা আক্রমণও করেছেন তাঁকে।

ফুল,মিষ্টি নিয়ে রাজভবনে মুখ্যমন্ত্রী, এর আগে তৃণমূল ভবনে এক সাংবাদিক সম্মেলনে খোদ মুখ্যমন্ত্রী রাজ্যপালকে বিজেপি-র মুখপাত্র বলে আক্রমণ করেছিলেন। সঙ্ঘাত তথা বাগ্‌যুদ্ধ এমন পর্যায়ে পৌঁছেছিল, যে মুখ্যমন্ত্রী রাজভবন যাওয়াই বন্ধ করে দিয়েছিলেন। এমন আবহে মুখ্যমন্ত্রীর রাজভবনে যাওয়া নিয়ে জল্পনা তৈরি হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x