৭২ ঘন্টার মধ্যে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইতে হবে, বাবুল কে নোটিশ অভিষেকের আইনজীবীর।

৭২ ঘন্টার মধ্যে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইতে হবে, বাবুল কে নোটিশ অভিষেকের আইনজীবীর।

নজরবন্দি ব্যুরোঃ ৩০শে নভেম্বর ২০১৭। আসানসোলের দলীয় এক বৈঠকে বাবুল সুপ্রিয় অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে ‘যুবরাজ’ কটাক্ষ করে অভিযোগ এনেছিলেন কয়লা সিন্ডিকেট থেকে বালি পাচার এর মতো গুরুতর বিষয়ে। শুধু তাই নয়, মঞ্চে উপস্থিত থেকেই তিনি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীকে বার বার ‘অমানবিক মুখ্যমন্ত্রী’ বলে অভিহিত করেন। জনসভায় দাঁড়িয়ে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী সহ রাজ্যের যুব তৃনমুলের সভাপতি এবং ডাইমন্ড হারবারের সাংসদ অভিষেক ব্যনার্জী কে মিথ্যে অপবাদে আক্রমন করার জন্য মামলা করেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।

আরও পড়ুনঃ “ভাতা নয়, চাকরি চাই”, স্লোগানে তুলে নবান্ন অভিযান করবেন যুবশ্রীরা

২০১৭ এর পর ২০১৮ এর জুলাই এবং ২০১৯ এর জুলাই মাসে কোর্ট থকে দাক আসলেও, অনুপস্থিত থেকেছেন বাবুল সুপ্রিয়। শুধু তাই নয় ২০২০ এর দিসেম্বরে ফের একবার অভিষেক কে নিয়ে মন্তব্য করেন তিনি। তারই জেরে আজ ২০২১ এর জানুয়ারিতে বাবুল সুপ্রিয়কে ফের নোটিশ পাঠালেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় এর আইনজীবী সঞ্জয় বসু।

এর আগেও কয়লা সিন্ডিকেটে তৃণমূল নেতাদের নাম জড়িয়ে মন্তব্য করেছিলেন বাবুল সুপ্রিয়। যার জেরে মানহানির মামলাও হয়েছে তাঁর বিরুদ্ধে। সেই মামলা নিম্ন আদালতের গণ্ডি পেরিয়ে পৌঁছেছে হাইকোর্টেও । ২০১৭তে আসানসোলের দলীয় বৈঠকে ফের একবার সিন্ডিকেট মামলায় তৃণমূল কংগ্রেস ও দলের যুব সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের নাম জড়িয়ে মন্তব্য করেছিলেন কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়। সেখানে তিনি স্পষ্ট বলেন কয়লাচুরি থেকে অজয় নদীর বালি চুরি সমস্ত বিষয়ে অভিষেকের নাম জড়িয়ে তিনি বলেন এই সমস্ত থেকেই টাকা পকেটে ভরে পিসি ভাইপো।

এর আগে কয়লা সিন্ডিকেট মন্তব্যের কারণে কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রীর বিরুদ্ধে দেওয়ানি ও ফৌজদারি ধারায় মানহানির মামলা করেছিলেন তৃণমূলের যুব সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। সম্প্রতি একই কথা আবার বলায় অভিষেকের বিচারপত সঞ্জয় বসু ফের একবাত নোটিশ পাঠালেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়কে। এবং ৭২ ঘন্টার মধ্যে বাবুল কে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইতে বলেছেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x