Partha-Arpita: ভূতে রেখে গিয়েছে টাকা, পার্থ চেনেন না অর্পিতাকে! সবই ঠিক ছিল, শুধু বাদ সাধল…

ভূতে রেখে গিয়েছে টাকা, পার্থ চেনেন না অর্পিতাকে! সবই ঠিক ছিল, শুধু বাদ সাধল...
Who is Arpita? Partha Chatterjee cannot recognize

নজরবন্দি ব্যুরোঃ গত ২২ জুলাই থেকে ইডির হেফাজতে রয়েছে পার্থ চট্টোপাধ্যায় এবং অর্পিতা মুখ্যোপাধ্যায়। তাঁদের নিয়ম করে জিজ্ঞাসাবাদ করছেন ইডির আধিকারিকরা। প্রতিদিন হাতে আসছে নতুন নতুন তথ্য। সেই তথ্যকে হাতিয়ার করে রাজ্যের একাধিক স্থানে তল্লাশি চালাচ্ছে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা। এরই মধ্যে পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলে দিলেন তিনি অর্পিতাকে চেনেন না, এমনকি টাকাও তাঁর নয়!!

আরও পড়ুনঃ SSC টেটের পর নিয়ম বহির্ভূত ভাবে নিয়োগ কলেজ সার্ভিস কমিশনে, CBI-তদন্তের দাবি চাকরিপ্রার্থীদের।

পার্থর গ্রেফতারের পর থেকেই তৃণমূল সরকারের বিরুদ্ধে তীব্র আক্রমণ শানিয়েছে বিরোধীরা। বাম বিজেপি সবার সুর কার্যত এক। সবারই দাবি এই ঘটনার পেছনে মোটেই একা পার্থ চট্টোপাধ্যায় জড়িয়ে নেই, নেপথ্যে রয়েছে আরও একাধিক হেভিওয়েট। সেই একই ইঙ্গিত দিয়েছে পার্থ চট্টোপাধ্যায় নিজেও। আগের দিনই তিনি বলেছিলেন, তাঁর বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র হয়েছে। আর আজ বললেন টাকা তাঁর নয়, তিনি চেনেন না অর্পিতাকে।

partha 4

পার্থ চট্টোপাধ্যায় আর অর্পিতা মুখোপাধ্যায় গ্রেফতার হওয়ার পর একদিকে জেরা যেমন চলছে, তেমনই  চলছে তল্লাশি। উদ্ধার হচ্ছে একের পর এক জখের ধন। এরই মধ্যে আজ পার্থ বলে দিলেন তিনি অর্পিতাকে তেমন ভাবে চেনেন না, কয়েকবার দেখেছেন মাত্র। এখন প্রশ্ন হল, পার্থ বাবু বলছেন টাকা তাঁর নয়, অর্পিতা বলছেন টাকা কিভাবে ঘরে এল তিনি জানেন না। তাহলে ব্যাপারটা কি দাঁড়াল? ভূতুড়ে?

ভূতে রেখে গিয়েছে টাকা, পার্থ চেনেন না অর্পিতাকে! সবই ঠিক ছিল, শুধু বাদ সাধল...
ভূতে রেখে গিয়েছে টাকা, পার্থ চেনেন না অর্পিতাকে! সবই ঠিক ছিল, শুধু বাদ সাধল…

এদিন স্বাস্থ্য পরীক্ষা করতে নিয়ে যাওয়ার সময় এবং বেরোনোর সময় পার্থ কিছু বলেননি সাংবাদিকদের। তবে কান্নাকাটি করেছেন অর্পিতা। অন্যদিকে ইডি সূত্রে খবর, পার্থবাবু তাঁদের বলছেন ‘টাকা তাঁর নয়!’ তবে পার্থ অর্পিতার সমস্যা বাড়িয়ে দিয়েছেন অর্পিতার গাড়ির চালক প্রণব ভট্টাচার্য।

ভূতে রেখে গিয়েছে টাকা, পার্থ চেনেন না অর্পিতাকে! সবই ঠিক ছিল, শুধু বাদ সাধল…

ভূতে রেখে গিয়েছে টাকা, পার্থ চেনেন না অর্পিতাকে! সবই ঠিক ছিল, শুধু বাদ সাধল...

ইডি জেরার মুখে প্রণব জানিয়েছিলেন, ডায়মন্ড সিটি থেকে নাকতলায় পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের নাকতলার বাড়িতে ভালমন্দ খাবার পৌঁছে দেওয়া হত। তাছাড়াও সন্ধেবেলা তিনি ম্যাডাম(অর্পিতা) কে নামিয়ে দিয়ে আসতেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বাড়িতে। তখন ম্যাডাম তাঁকে বলতেন, আপনি গাড়ি নিয়ে চলে যান বা গাড়ি রেখে চলে যান। সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল, যে অর্পিতাকে চেনেননা পার্থ, সেই অর্পিতার গাড়ির চালক হিসেবে প্রণব বাবুকে ঠিক করে দিয়েছিলেন তিনি নিজেই!