রাণাঘাটে রণং দেহী মমতা, ‘এনআরসি হতে দেব না’, স্পষ্ট জানালেন তৃণমূল নেত্রী

রাণাঘাটে রণং দেহী মমতা, ‘এনআরসি হতে দেব না’, স্পষ্ট জানালেন তৃণমূল নেত্রী

নজরবন্দি ব্যুরো: রাণাঘাটে রণং দেহী মমতা, একুশের ভোটকে পাখির চোখ করে রাজনৈতিক ময়দানে নেমেছে রাজনৈতিক দলগুলি। এদিকে দলের হয়ে রণং দেহি মুর্তি ধারন করে হাজির হয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। করছেন বিভিন্ন সভা। এবারও তাঁর হাতিয়ার এনআরসি ও মতুয়া। সোমবার রাণাঘাটের সভা থেকে তাঁর হুঙ্কার, ‘নাগরিকত্ব নিয়ে রাজনীতি করছে বিজেপি, মতুয়ারা সবাই নাগরিক, পরিস্কার বলছি এনআরসি হতে দেব না। আপনারা সবাই নিশ্চিন্তে থাকুন। আগে কাজ হত না রাজনীতি হত। একসময় লোডশেডিং হত, এখন সেই বস্তু নেই।’

আরও পড়ুন: কেন্দ্রকে কৃষি আইন স্থগিত করতে নির্দেশ দিল সুপ্রিম কোর্ট।

তিনি আরও বলেন, ভোট এলেই চাকরির কথা বলে বিজেপি। তৃণমূলে কালো বিজেপিতে গেলেই সাদা। কেউ জানে পঞ্জাব, হরিয়ানার কৃষকদের ওপর কী চলছে। আমরা কৃষকদের পাশে আছি। আয়ুষ্মান ভারতে ৬০ টাকা ডেবে, ৪০ টাকা আপনার। স্বাস্থ্যসাথীতে ৫ লক্ষ টাকা রাজ্য দিচ্ছে। দেড় লক্ষ উদবাস্ত পরিবারকে পাট্টা দেওয়া হবে। নদিয়ায় ৫ হাজার উদবাস্ত পরিবারকে পাট্টা দেওয়া হবে। একটা এরকম রাজ্য দেখান যেখানে বিনা পয়সায় চাল, শিক্ষা, স্বাস্থ্য দেওয়া হয়। দেখাতে পারলে রাজনীতি ছেড়ে দেব।’

তিনি বলেন, ‘বিজেপি যেন সানলাইট, ওয়াশিং মেশিন। ১২ লক্ষ ট্যাব পাওয়া যাচ্ছে না, পড়ুয়াদের অ্যাকাউন্টে টাকা। ট্যাব কিনে স্কুলকে রসিদ দেখালেই হবে। ইসকনকে ৭০০ একর জমি দিয়েছি। পর্যটন হাব গড়তে জমি দিয়েছি। নদিয়া জুড়ে উন্নয়নের ছায়া। বলে সব মতুয়াকে নাগরিক করব, ভোটের পর পালিয়ে যায়। ৫০-৬০ বছর ধরে থাকলে এমনিতেই তো নাগরিক। মতুয়া-নমঃশুদ্রদের জন্য বোর্ড গড়েছি, টাকা দিয়েছি। সাঁওতালিদের জন্য অ্যাকেডেমি গড়েছি।’

রাণাঘাটে রণং দেহী মমতা, মমতার কটাক্ষ, ‘ওরা সেজেগুজে ফাইভ স্টার হোটেলের খাবার খাচ্ছে। আমি ৬ টাকার পানীয় জল খাই। আমি রাস্তায় নেমে একের পর এক মিছিল করি। রাস্তায় ধুলো মাখতে হয়, ওদের গায়ে ধুলো লাগে না। তোমরা মানুহ খুন করে গায়ে মাখো। আগে করেছে নোটবন্দি এবার করবে জেলবন্দি। হেরে গিয়েও দেখবেন ট্রাম্পের মতো বলবে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x