বিজেপি ছাড়ছেন রাজীব ব্যানার্জি, প্রবীর ঘোষালরা? তৃণমূল না নিলে করবেন সমাজসেবা।

বিজেপি ছাড়ছেন রাজীব ব্যানার্জি, প্রবীর ঘোষালরা? তৃণমূল না নিলে করবেন সমাজসেবা।
বিজেপি ছাড়ছেন রাজীব ব্যানার্জি, প্রবীর ঘোষালরা? তৃণমূল না নিলে করবেন সমাজসেবা।

নজরবন্দি ব্যুরোঃ বিজেপি ছাড়ছেন রাজীব ব্যানার্জি, প্রবীর ঘোষালরা! রাজ্যে ভোট পর্ব চলাকালীন এবং তাঁর আগে যারা তৃণমূল ছেড়ে মানুষের জন্যে কাজ করার তাগিদে যোগ দিয়েছিলেন বিজেপিতে তাঁদের মধ্যে অনেকে ইতিমধ্যেই দল ছেড়েছেন। অনেকে আবার তৃণমূলে ফিরতে চেয়ে আবেদন করেছেন। উলটো সুরে গান গেয়েছেন, বিদায়ী কলার টিউন বাজিয়েছেন বিজেপি সর্বভারতীয় সহ সভাপতি মুকুল রায়ের পুত্র শুভ্রাংশু রায়ও।

আরও পড়ুনঃ অনাথ শিশুদের জন্য ‘‌পিএম কেয়ার্স ফর চিলড্রেন’‌ প্রকল্পের বিস্তারিত তথ্য চাইল শীর্ষ আদালত।

খোদ দিলীপ ঘোষের খাসতালুকের একাধিক নেতা দল ছেড়েছেন। এই পরিস্থিতিতে রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় কে নিয়ে বড় খবর প্রকাশ্যে এল। বিজেপি সূত্রে খবর, রাজ্যে বিজেপির ভরাডুবি এবং ডোমজুড়ে পরাজয়ের পরে দলের সঙ্গে রাজীবের তেমন যোগাযোগই নেই। আলোচনা সভা তো দূরের কথা, ফোনেও বার্তালাপ নাকি বন্ধ। কিন্তু কেন? দলীয় সূত্রে খবর, রাজীব পুরনো দল তৃণমূলে ফেরার চেষ্টা করছেন।

তৃণমূল সূত্রে খবর, প্রথমে কয়েকজন সহযোগী ব্যবসায়ীর মাধ্যমে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেছিলেন প্রাক্তন বনমন্ত্রী। কিন্তু তাতে কাজ না হওয়ায় এখন নিজে বিভিন্ন তৃণমূল নেতার সঙ্গে কথা বলছেন রাজীব। যদিও তাঁকে দলে ফিরিয়ে নেওয়ার ব্যাপারে কোন নেতাই সদর্থক বার্তা দিতে পারেন নি বলে খবর। যা সিদ্ধান্ত নেওয়ার দলনেত্রীই নেবেন বলে জানা গেছে।

রাজীব ছাড়াও আর এক তৃণমূল ত্যাগী উত্তরপাড়ার প্রাক্তন বিধায়ক প্রবীর ঘোষালও তৃণমূলের সাথে যোগাযোগ করার চেষতা চালিয়েছেন বলে খবর সূত্রের। তবে তৃণমূল থেকে কোন সদর্থক বার্তা আসেনি। প্রবীর সংবাদ্মাধ্যমকে জানিয়েছেন, ‘‘বিজেপি-র প্রার্থী হয়েছিলাম ঠিকই। কিন্তু আমি এখন রাজনীতি করছি না। সমাজসেবা করব। ভবিষ্যৎ কী হবে জানি না।’’

বিজেপি ছাড়ছেন রাজীব ব্যানার্জি, প্রবীর ঘোষালরা? রাজীব প্রসঙ্গে মুখ খুলেছেন তৃণমূল মুখপাত্র কুণাল ঘোষ। তিনি বলেছেন,  ‘‘কারও জন্য আলাদা করে কিছু নয়। ভোটের আগে যাঁরা অন্য দলে যোগ দিয়েছিলেন, তাঁরা ফিরতে চাইলেই ফিরিয়ে নেওয়া হবে, এমন কোনও নীতিগত সিদ্ধান্ত দলে হয়নি। যাঁদের সেই সময় দমবন্ধ লাগছিল, তাঁদের যদি এখন আবার দমবন্ধ লাগে, তা হলে তো তৃণমূল বিজেপি দফতরে অক্সিজেন সিলিন্ডার পাঠাতে পারবে না!’’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here