মহারাজের নামে হাসপাতালেই তৈরি হল একটি লাউঞ্জ।

মহারাজের নামে হাসপাতালেই তৈরি হল একটি লাউঞ্জ।

নজরবন্দি ব্যুরো: মহারাজের নামে হাসপাতালেই তৈরি হল একটি লাউঞ্জ। হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে গত শনিবার শহরের একটি বেসরকারি নার্সিংহোমে ভর্তি হয়েছিলেন ভারতীয় ক্রিকেট দলের প্রাক্তন অধিনায়ক সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত, তিনি আপাতত সুস্থই রয়েছেন। আগামীকাল বিশিষ্ট হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ দেবী শেঠি সৌরভকে দেখবেন। তারপরই সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে যে কবে তাঁকে হাসপাতাল থেকে ছাড়া হবে। এতদূর পর্যন্ত খবর, আপনারা সকলেই জেনে গেছেন আশা করি।

আরও পড়ুনঃদলীয় সভায় অনুপস্থিত INTTUC-র জেলা সভাপতি, দলবদলের জল্পনা তুঙ্গে

জানা গেছে, বেসরকারি হাসপাতালে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের নামে একটি লাউঞ্জ করা হয়েছে। কিন্তু কেন? হাসপাতাল সূত্রে জানানো হয়েছে, সৌরভকে দেখতে অনেকেই অ্যাপয়েন্টমেন্ট ছাড়াই দেখা করতে চলে আসছেন হাসপাতালে। কিন্তু, সৌরভকে ICU-তে রাখার কারণে প্রত্যেকের সঙ্গে তো আর দেখা করা সম্ভব হচ্ছে না। তাই ওই লাউঞ্জে বসিয়ে তাঁদের সৌরভের শারীরিক অবস্থা সম্পর্কে বিস্তারিতভাবে জানানো হচ্ছে। সেইসঙ্গে তাঁদের সেইসঙ্গে আগত অতিথিদের চা-কফিও দেওয়া হচ্ছে। আজ বেলা সাড়ে এগারোটা নাগাদ হাসপাতালের ৯ সদস্যের একটি মেডিক্যাল বোর্ড বৈঠকে বসেছিল।

অন্যদিকে ভার্চুয়ালভাবে এই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন প্রখ্যাত হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ দেবী শেঠি। জানা গেছে, আগামীকাল তিনি কলকাতায় আসবেন। তারপরেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে, সৌরভকে আগামীকাল হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়া হবে কি না। আজ বৈঠকের পর জানানো হয়েছে, সৌরভের মেডিক্যাল রেকর্ড ইতিমধ্যেই পর্যালোচনা করেছেন বোর্ডের সদস্যেরা। সেখানে সবাই মিলে এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে যে সৌরভের প্রাথমিক PTCA সহ যাবতীয় চিকিৎসা প্রক্রিয়া সুষ্ঠভাবে সম্পন্ন হয়েছে। ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের প্রেসিডেন্টের হার্টে এখনও দুটো ব্লকেজ রয়েছে। সেটা অবশ্যই অ্যাঞ্জিওপ্লাস্টি করাতে হবে। তবে এখনই করা হচ্ছে না। আগামীকাল দেবী শেঠি আসার পরে এই ব্যাপারে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হবে।

মহারাজের নামে হাসপাতালেই তৈরি হল একটি লাউঞ্জ। তারপরে কবে এই অপারেশন হবে, সেই ব্যাপারে গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। পাশাপাশি হাসপাতালের পক্ষ থেকে এও জানানো হয়েছে যে বর্তমানে সৌরভের শারীরিক অবস্থা যেহেতু আপাতত স্থিতিশীল রয়েছে এবং তাঁর বুকে আর কোনও ব্যথা হচ্ছে না, সেকারণে আগামীকাল তাঁকে হাসপাতাল থেকে ছেড়েও দেওয়া হতে পারে। আপাতত তিনি বাড়িতেই বিশ্রামে থাকবেন। এরপর পরবর্তীকালে কবে অ্যাঞ্জিওপ্লাস্টি করানো হবে, সেই তারিখ ধার্য হলে তাঁকে পুনরায় হাসপাতালে ভর্তি হতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x