তৃণমূলের কথার মান্যতা দিয়ে বুথের ভিড় নিয়ন্ত্রণে থাকবে রাজ্য পুলিশ, জানালো নির্বাচন কমিশন।

তৃণমূলের কথার মান্যতা দিয়ে বুথের ভিড় নিয়ন্ত্রণে থাকবে রাজ্য পুলিশ, জানালো নির্বাচন কমিশন।
তৃণমূলের কথার মান্যতা দিয়ে বুথের ভিড় নিয়ন্ত্রণে থাকবে রাজ্য পুলিশ, জানালো নির্বাচন কমিশন।

নজরবন্দি ব্যুরো: নির্বাচন কমিশন ভোটের দিন ঘোষণা করেছে অনেকদিন আগেই। বিভিন্ন রাজনৈতিক দল শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতিতে ব্যস্ত। আর কিছুদিনের মধ্যেই পশ্চিমবঙ্গে বিধানসভা ভোট। এবার বর্তমান শাসক দলের  দাবি মানল কমিশন।বুথে লাইন সামলাবে রাজ্য পুলিশই।একশো মিটারের ‘নিষেধাজ্ঞা’ বলে কিছু নেই। রাজ্য পুলিশকেই বুথের ভিড় নিয়ন্ত্রণে রাখা হবে। নির্বাচন কমিশন  সূত্রে একথা জানা গিয়েছে।

আরও পড়ুনঃ মুখ্যমন্ত্রী পদের জল্পনা বজায় রেখে আজ থেকে বঙ্গের ভোটদাতা মিঠুন

সূত্রের পাওয়া খবর অনুযায়ী, ভোটগ্রহণ কেন্দ্রের সার্বিক নিরাপত্তার ভার আধাফৌজের হাতে থাকছে ঠিকই। তবে ভোটদাতা স্থানীয় জনতার সঙ্গে জওয়ানদের যাতে কোনও ভাষাগত সমস্যায় পড়তে না হয়, মূলত সেই লক্ষ্যেই রাজ্য পুলিশকে বুথের দোরগোড়া পর্যন্ত প্রবেশাধিকার দেওয়া হচ্ছে। উল্লেখ্য, রাজ্যের অতিরিক্ত মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিক সঞ্জয় বসু “বুথের একশো মিটারের মধ্যে রাজ্য পুলিশকে  পা ফেলতে দেওয়া হবে না” এমন কোনও সিদ্ধান্ত কমিশনের তরফে কখনওই নেওয়া হয়নি বলে জানিয়েছেন। যদিও ইতিমধ্যেই এনিয়ে রাজনৈতিক দড়ি টানাটানি শুরু হয়েছে।

তৃণমূলের বিরোধী দল বিজেপির দাবি, বুথে শুধুমাত্র আধাসেনাকেই নিয়োগ করতে হবে। যার বিরোধিতা করে দিল্লিতে কমিশনের দ্বারস্থ হয়েছে শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস। ভাষাগত সমস্যার প্রসঙ্গ টেনে বুথে রাজ্য পুলিশ রাখার জোরালো দাবি জানিয়েছে তারা।যদিও নির্বাচন কমিশনের দাবি, সামগ্রিক পরিস্থিতি বিচার-বিবেচনা করে মোতায়েন পরিকল্পনা নির্ধারিত হয়।পর্যাপ্ত ও প্রয়োজনমতো আধাসেনা ও রাজ্যপুলিশের জওয়ানদের নিয়োগ করা হয়।