চাকরিপ্রার্থীদের জন্য বড় খবর; পুজোর পরেই নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু করবে কমিশন

চাকরিপ্রার্থীদের জন্য বড় খবর; পুজোর পরেই নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু করবে কমিশন

নজরবন্দি ব্যুরো: চাকরিপ্রার্থীদের জন্য বড় খবর; পুজোর পরেই নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু করবে কমিশন। কলেজে নিয়োগ প্রসঙ্গে গতকাল কলেজ সার্ভিস কমিশনের চেয়ারম্যান দীপককুমার কর জানিয়েছেন, পুজোর পরেই আবার অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রফেসর পদে নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু করবে কমিশন।

চাকরিপ্রার্থীদের জন্য বড় খবর; প্রিন্সিপাল পদে আবেদন গ্রহণ এবং তার স্ক্রুটিনি প্রক্রিয়া শেষ হয়েছে। করোনা পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক হলেই ইন্টারভিউ নিয়ে প্যানেল প্রকাশ করে কাউন্সেলিং এবং নিয়োগ প্রক্রিয়া শেষ করা হবে। তিনি আরও জানিয়েছেন গতবারের কিছু অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রফেসর পদে নিয়োগ এখনও বাকি রয়েছে। তারজন্য কলেজগুলি থেকে শূন্যপদের তালিকা চাওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুনঃ ৩০ হাজারেরও বেশি পদে নিয়োগের পরিকল্পনা রাজ্যের!

মার্চে মাসে ভূগোল এবং রসায়নের প্যানেল প্রকাশ হয়। এই বিষয়গুলিতে এখনও নিয়োগের প্রক্রিয়া চলছে। প্রসঙ্গত, করোনা আবহে গতকাল প্রকাশিত হয়েছে কলেজ সার্ভিস কমিশনের(সেট ) পরীক্ষার ফলাফল। পরীক্ষায় বসেছিলেন ৪৮,৬০০জন প্রার্থী। এর মধ্যে সফল হয়েছেন ৩ হাজার ৫০০জন পরীক্ষার্থী। এর পাশাপাশি এবারের পরীক্ষায় বসা ৬ জন রূপান্তরকামীদের মধ্যে একজন রয়েছেন সফলদের তালিকায়।

উল্লেখ্য এই বছর থেকেই প্রথমবার রাজ্যে আর্থিকভাবে পিছিয়ে পড়া শ্রেণির জন্য ১০ শতাংশ সংরক্ষণ রাখা হয়েছে। পরীক্ষা শেষ হওয়ার প্রায় ৭ মাসের মধ্যে এবার সেটের ফল প্রকাশ করল কলেজ সার্ভিস কমিশন। শেষ কয়েক বছরের মধ্যে এবছর পরীক্ষার ফলাফল যথেষ্ট ইতিবাচক বলে পরিসংখ্যান তুলে ধরা হয়েছে কমিশনের তরফে। এদিন, শনিবার প্রকাশিত হয়েছে সেটার ফলাফল। অনলাইনে মিলছে ফলাফল দেখে নেওয়ার সুযোগ। একইসঙ্গে সার্টিফিকেট ওয়েবসাইটে ডাউনলোড করার সুযোগও থাকছে।

অন্যদিকে, বাংলার বিভিন্ন সরকারি দফতরে বিপুল শূন্যপদ থাকলেও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার সেই পদগুলিতে ইচ্ছাকৃত নিয়োগ করছে না, এমনটাই অভিযোগ ছিল রাজ্যের সমস্ত বিরোধী দলের। করোনা পরিস্থিতিতে যখন রাজ্যের আমজনতা সংকটের মুখে তখনই রাজ্যে ৩০ হাজারেরও বেশি পদে নিয়োগের পরিকল্পনা নিয়েছে রাজ্য সরকার।গ্রুপ বি, সি ও ডি পদে নিয়োগ করার পরিকল্পনা নিয়েছে সরকার।

অর্থদফতর সূত্রে এমন খবর পাওয়া গিয়েছে। জরুরি ভিত্তিতে এই নিয়োগের কাজ শেষ করবে রাজ্য সরকার। কোন দফতরে শূন্য পদ কত তা নিয়ে এখনও আলোচনা চলছে। যোগ্যতার ভিত্তিতে নিয়োগ করা হবে বলে জানা গিয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *