উত্তরপ্রদেশে “বেটি বাঁচাও” প্রকল্পকে তীব্র কটাক্ষ রাহুল প্রিয়াঙ্কার

উত্তরপ্রদেশে “বেটি বাঁচাও” প্রকল্পকে তীব্র কটাক্ষ রাহুল প্রিয়াঙ্কার

নজরবন্দি ব্যুরোঃ উত্তরপ্রদেশে “বেটি বাঁচাও” প্রকল্পকে তীব্র কটাক্ষ রাহুল প্রিয়াঙ্কার ।যোগী রাজ্যে একের পর এক ধর্ষণ ও হত্যার ঘটনায় শিউড়ে উঠেছে গোটা দেস।দলিত নাবালিকা ধর্ষণ যেন রোজকার ঘটনা হয়ে দারিয়েছহে।এমন পরিস্থিতিতে গতকালই উত্তরপ্রদেশে নারী নির্যাতন রুখতে ‘মিশন শক্তি’ কর্মসূচির উদ্বোধন করেছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। এরই মধ্যে তাঁর রাজ্যের এক মন্ত্রীর বিরুদ্ধে ওঠা এক অভিযোগকে কেন্দ্র করে সরগরম রাজনীতি। যোগীকে কটাক্ষ করে টুইট করলেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী ।

আরও পড়ুনঃপুজোর মরসুমে উত্তর বঙ্গের জন্য মিলছে না ট্রেনের টিকিট? ভরসা দিচ্ছে NBSTC-র ২৩ টি স্পেশাল বাস।

তিনি দাবি করলেন, রাজ্যে ‘বেটি বাঁচানো’র কথা বলা হলেও ক্রমে বিষয়টা হয়ে দাঁড়িয়েছে, ‘অপরাধী বাঁচাও’। রাহুল একা নন, কংগ্রেস নেত্রী প্রিয়াঙ্কা গান্ধীও টুইট করে আক্রমণ করেছেন যোগীকে।কংগ্রেসের দুই নেতা-নেত্রীই তাঁদের টুইটের সঙ্গে যুক্ত করেছেন এক সংবাদের প্রতিবেদনকে। যে প্রতিবেদনে রয়েছে উত্তরপ্রদেশের বিজেপি বিধায়ক লোকেন্দ্র প্রতাপ সিংহ সম্পর্কে একটি অভিযোগের কথা। গতকালই লোকেন্দ্র প্রতাপ ও তাঁর ছেলের বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠে থানায় পুলিশ হেফাজতে থাকা নারী নির্যাতনে অভিযুক্ত এক ব্যক্তিকে জোর করে ছাড়িয়ে নিয়ে যাওয়ার। সেই ঘটনার উল্লেখ করে রাহুল তাঁর টুইটে লেখেন, ‘‘যেভাবে শুরু হয়েছিল: কন্যা বাঁচাও। যেভাবে চলছে: অপরাধী বাঁচাও।’’

প্রিয়াঙ্কা গান্ধীও এই বিষয়ে টুইট করেন। তিনি হিন্দিতে লেখেন, ‘‘উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী কি বলবেন এটা কোন মিশনের অন্তর্গত? কন্যা বাঁচাও নাকি অপরাধী বাঁচাও?’’উল্লেখ্য, হাথরাস কাণ্ডের পর থেকে এমনিতেই দেশজুড়ে প্রতিবাদের ধাক্কায় কোণঠাসা উত্তরপ্রদেশ সরকার। এই পরিস্থিতিতে কংগ্রেসও উত্তরপ্রদেশের নারী সুরক্ষা নিয়ে বারবার আক্রমণ শানিয়েছে যোগী সরকারের বিরুদ্ধে। হাথরাসের নির্যাতিতার মৃত্যুর পরেই প্রিয়াঙ্কা যোগী আদিত্যনাথের পদত্যাগ দাবি করেছিলেন।

উত্তরপ্রদেশে “বেটি বাঁচাও” প্রকল্পকে তীব্র কটাক্ষ রাহুল প্রিয়াঙ্কার ।এদিকে উত্তরপ্রদেশের বালিয়ায় প্রকাশ্য দিবালোকে এক যুবককে গুলি করে হত্যার ঘটনায় প্রধান অভিযুক্ত ধীরেন্দ্র সিংকে আজই উত্তরপ্রদেশের পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। অন্য দুই অভিযুক্তও গ্রেপ্তার হয়েছে। এই নিয়ে এই মামলায় ১০ জনকে গ্রেপ্তার করা হল। যদিও হাথরস কাণ্ডে নির্যাতিতার পরিবার সঠিক বিচারের অপেক্ষায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x