কাটোয়ায় পৌঁছলেন জেপি নাড্ডা।

কাটোয়ায় পৌঁছলেন জেপি নাড্ডা।

নজরবন্দি ব্যুরো: কাটোয়ায় পৌঁছলেন নাড্ডা। তাঁর সঙ্গে রয়েছে দিলীপ ঘোষ, মুকুল রায় ও কৈলাস বিজয়বর্গীয়। কাটোয়ার রাধাগবিন্দ মন্দিরে পুজো দেন নাড্ডা। হেলিকপ্টার থেকে নামার পর ১১.৪০ মিনিটে রাধাগোবিন্দ মন্দিরে পুজো দেন তিনি । এরপর যোগ দেবেন কৃষি সুরক্ষা সভায়। তারপর পৌনে একটা নাগাদ তাঁর ‘ডোর টু ডোর রাইস কালেকসন’ কর্মসূচি রয়েছে তাঁর। এখানে পাঁচ কৃষক পরিবারের কাছ থেকে অন্ন সংগ্রহ করবেন তিনি। রাজনৈতিক মহলের ব্যাখ্যা, বাংলার কৃষকের মন জয় করতেই রাজ্যের ধানের গোলা বলে পরিচিত বর্ধমানে একগুচ্ছ কর্মসূচি গ্রহণ করেছে বিজেপি।

আরও পড়ুন: ‘ঘর ওয়াপসি, যখন আইন ওয়াপসি,’ কেন্দ্রকে কড়া বার্তা কৃষকদের

এরপর তিনি কাটোয়ার জগদানন্দপুরে মথুরা মন্ডল নামে এক কৃষকের বাড়িতে মধ্যাহ্নভোজ সারবেন তিনি। জে পি নাড্ডার জন্য নিজে হাতে রান্না করবেন কৃষকের স্ত্রী। সূত্রের খবর মেনুতে থাকছে, ভাত, লেবু, শাক, বেগুন ভাজা, আলুভাজা, পাঁচমিশালি তরকারি, সবজি দিয়ে ডাল, ফুলকপির তরকারি, চাটনি ও পায়েস।

কাটোয়ায় পৌঁছলেন নাড্ডা। নাড্ডা সভা ঘিরে গোটা বর্ধমান জুড়ে পুলিসে পুলিসে ছয়লাপ। ডায়মন্ডহারবারের অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে রয়েছে কড়া নিরাপত্তা। বর্ধমানে রোড শো করার কথা রয়েছে নাড্ডার। গোটা শহর মুড়েছে গেরুয়া পতাকা, বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতির বড় বড় কাটআউট। পাল্টা শহর জুড়ে তৃণমূলের পতাকাও।

উল্লেখ্য, কৃষক আন্দোলনে উত্তপ্ত উত্তর-ভারত। প্রচণ্ড ঠাণ্ডায়, খোলা আকাশের নিচে, ৪৪ দিন ধরে আন্দোলনে সামিল কৃষকরা। অষ্টম বৈঠকেও যেখানে কেন্দ্র জট কাটাতে ব্যর্থ, আট বার এই নিয়ে বৈঠক হয়ে গিয়েছে। অষ্টম দফার বৈঠকেও বেরোয়নি কোনও রফাসূত্র। দু’পক্ষই অবস্থানে অনড়। ঠান্ডায় বৃদ্ধ হাড়ে কাঁপুনি ধরলেও প্রতিবাদে লড়াইয়ে খোলা আকাশের নিচে ঠাঁয় বসে কয়েকশো কৃষক।তখন, বঙ্গে কৃষক সুরক্ষা কর্মসূচির সূচনা করতে আসছেন জেপি নাড্ডা। এনিয়ে বিজেপিকে আক্রমণ করতে ছাড়েনি তৃণমূল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x