৩ দিনেই লক্ষাধিক আক্রান্ত! ফের কড়া লকডাউনের পথে দেশ?

৩ দিনেই লক্ষাধিক আক্রান্ত! ফের কড়া লকডাউনের পথে দেশ?

নজরবন্দি ব্যুরোঃ ৩ দিনেই লক্ষাধিক আক্রান্ত! এদিকে চলছে আনলক ২ এর পর্যায়। কিন্তু করোনা ভাইরাসের ব্যাপকতা এবং ভয়াবহতায় ফের লকডাউনের মুখে পড়তে চলেছে দেশ? সংক্রমণ যখন কমছিল তখন কড়া লকডাউন জারি ছিল দেশে কিন্তু সংক্রমণ বাড়ার সাথে সাথে লকডাউন কে হালকা করা হতে থাকে দেশের অর্থনীতি বাঁচানোর স্বার্থে। বর্তমানে এমন অবস্থা দাঁড়িয়েছে যে করোনা ভাইরাসের পরবর্তী হটস্পট হতে চলেছে ভারত বর্ষ।

টাটকা খবরঃ করোনার তাণ্ডব রাজ্য জুড়ে, আজ আক্রান্ত ১৩৪৪! মৃত বেড়ে ৯০৬ #BreakingNews

দেশের প্রায় প্রতিটি রাজ্যেই ব্যাপক হারে বাড়ছে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ। যদিও কেন্দ্রীয় সরকারের তথ্য অনুযায়ী দেশের মাত্র আটটি রাজ্যে মোট চিকিৎসাধীন রোগীর ৯০ শতাংশ রয়েছে। পাশাপাশি দেশের ৪৯টি জেলায় রয়েছেন ৮০% রোগী। কেন্দ্র জানিয়েছে ৮৬ শতাংশ মৃত্যু হয়েছে ৬টি রাজ্যে। এবং ৮০% মৃত্যু ঘটেছে ৩২টি জেলায়। যদিও ৩ দিনেই লক্ষাধিক আক্রান্ত তবুও কেন্দ্রীয় স্বাস্থমন্ত্রী হর্ষবর্ধনের দাবি ভারতে কোন গোষ্ঠী সংক্রমণ ঘটেনি।

আরও পড়ুনঃ ২১ নির্বাচনে তৃণমূল অপ্রাসঙ্গিক? মুখোমুখি লড়াই বাম-বিজেপির!

এদিকে ভারতে এখন পর্যন্ত করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ৮ লক্ষ ২৫ হাজার ৭৩৬। এই বিপুল আক্রান্তের মধ্যে এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৫ লক্ষ ১৭ হাজার ৫৪৬ জন। এখন চিকিৎসাধীন রয়েছেন ২ লক্ষ ৮৫ হাজার ৬৪০ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ২২হাজার ১৭১ জনের। দেশের এই ক্রমবর্ধমান সংক্রমণের পরিস্থিতিতে যথেষ্ট চিন্তিত বিশেষজ্ঞ মহল। উদ্ভুত পরিস্থিতি নিয়ে চিন্তিত প্রধানমন্ত্রী এদিন বৈঠক করেন।

সাবস্ক্রাইব করুন নজরবন্দির ইউটিউব চ্যানেল

প্রধানমন্ত্রী বৈঠক করেন স্বরাষ্ট মন্ত্রী অমিত শাহ এবং কেন্দ্রীয় স্বাস্থ মন্ত্রী হর্ষবর্ধনের সাথে। ছিলেন একাধিক সচিবও। করোনা পরিস্থিতিতে যেভাবে একের পর এক রাজ্য কড়া লকডাউনের পথে হাঁটছে তাতে ফের কেন্দ্রের তরফে আনলক তুলে দিয়ে লকডাউন করা হতে পারে বলে ওয়াকিবহাল মহলের ব্যাখা। সেক্ষেত্রে মানুষের জীবনধারণ কিভাবে সম্পন্ন হবে তা নিয়ে প্রশ্নচিহ্ন থাকছে।

সূত্রের খবর দেশের সবথেকে বেশি সংক্রামিত ৪৯ টি জেলাকে সম্পূর্ণ স্তব্ধ করার পথে হাঁটতে পারে কেন্দ্র। তবে এখনই সিদ্ধান্ত হয়নি। সিদ্ধান্ত গ্রহন করা হবে মুখ্যমন্ত্রীদের সাথে আলোচনার পরেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *