অভিষেকের নির্দেশ, সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের বোন তনিমাকে বহিষ্কার তৃণমূলের।

সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের বোন তনিমাকে বহিষ্কার তৃণমূলের
সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের বোন তনিমাকে বহিষ্কার তৃণমূলের

নজরবন্দি ব্যুরোঃ ২৬ নভেম্বর তৃণমূল প্রকাশিত প্রার্থী তালিকায় নাম ছিল প্রয়াত সুব্রত মুখ্যোপাধ্যায়ের বোন তনিমা চট্টোপাধ্যায়ের। কিন্তু সেই তালিকা থেকে বাদ পড়েছন তনিমা। প্রার্থী করা হয়েছে ৬৮ নম্বর ওয়ার্ডের কো-অর্ডিনেটর সুদর্শনা মুখ্যোপাধ্যায়কে। ঘটনার জেরে চরম ক্ষুব্ধ তনিমা নির্দল প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন জমা দেন। তাঁকে প্রার্থীপদ প্রত্যাহার করে নিতে বলে সতর্ক করে দলীয় নেতৃত্ব। করা হয় সাসপেন্ড।

আরও পড়ুনঃ দেহের নব্বই শতাংশ পুড়ে গিয়েছে রাওয়াতের, জানাল হাসপাতাল

কিন্তু তাতেও নড়েননি প্রাক্তন মন্ত্রীর বোন। জোড়া পাতা চিহ্নে নির্দল প্রার্থী হিসেবে পোস্টার পড়ে তার নামে। প্রচারে ইউএসপি হিসাবে ব্যবহার করা হচ্ছে সুব্রত মুখ্যোপাধ্যায়ের ‘নিজের বোন’ এর প্রসঙ্গ। সব  কোন ঘটনাই নজর এড়ায়নি তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারন সম্পাদক অভিষেক বন্দোপাধ্যায়ের। সাসপেন্ড করার পরেও তনিমা নির্দল প্রার্থী হিসেবে নিজের প্রচার চালিয়ে যাওয়ায় আজ তাঁকে বহিষ্কার করার সিদ্ধান্ত নিল তৃণমূল।

অভিষেক বন্দোপাধ্যায়ের নির্দেশে সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের বোন তনিমাকে বহিষ্কার তৃণমূলের। তাঁর সাথে পুর নিগমের প্রাক্তন চেয়ারম্যান সচ্চিদানন্দ বন্দ্যোপাধ্যায়কেও বহিষ্কার করল তৃণমূল। বুধবার সেই সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন তৃণমূলের রাসবিহারী কেন্দ্রের বিধায়ক তথা পুরভোটের অন্যতম প্রার্থী দেবাশিস কুমার। দল বিরোধী কাজের জেরেই এই সিদ্ধান্ত বলে জানানো হয়েছে দলের পক্ষ থেকে।

৬৮ নম্বর ওয়ার্ডে প্রয়াত মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের বোন তনিমা চট্টোপাধ্যায় ও ৭২ নম্বর ওয়ার্ডের প্রার্থী তথা কলকাতা পুর নিগমের প্রাক্তন চেয়ারম্যান সচ্চিদানন্দ বন্দ্যোপাধ্যায়কে বহিষ্কার করা হল আজ। সারা জীবনের জন্য এই দুজনকে বহিষ্কার করা হয়েছে বলে জানানো হয়েছে তৃণমূলের তরফে। অর্থাৎ ভবিষ্যতে আর তাঁদেরকে দলে ফেরানোর সম্ভাবনা নেই বলে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে।

সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের বোন তনিমাকে বহিষ্কার তৃণমূলের

সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের বোন তনিমাকে বহিষ্কার তৃণমূলের
সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের বোন তনিমাকে বহিষ্কার তৃণমূলের

এদিকে তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থীদের অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন দু বেলা প্রচারের কাজ করতে। হাতে বেশি সময় নেই বলেই এই নির্দেশ দিয়েছেন তৃনমূলের সর্বভারতীয় সম্পাদক।