Mamata Banerjee: ত্রিপুরা সফরে মুখ্যমন্ত্রী মমতা, জোটের জন্য অন্যান্য দলগুলিকে আহ্বান

নজরবন্দি ব্যুরোঃ আগামী মাসেই ত্রিপুরা এবং মেঘালয়ের নির্বাচন। সম্প্রতি মেঘালয়ের প্রচার সারার পর ত্রিপুরা সফরে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সূত্রের খবর, আগামী ৬ ফেব্রুয়ারি কলকাতা থেকে আগরতলার উদ্দেশ্যে রওনা দেবেন তিনি। এরপর ৭ তারিখ ত্রিপুরাতে রোড শো করবেন তৃণমূল সুপ্রিমো। বাংলার পর উত্তর-পূর্ব ভারতের দিকে বিশেষ গুরুত্ব দিতে চান তিনি।

আরও পড়ুনঃ SSC-TET Scam: ৩০ কোটি টাকা তুলেছিলেন কুন্তল ঘোষ, নিয়োগ দুর্নীতিতে মোড় ঘোরাচ্ছে কালো ডায়েরি

২০১৮ সালে নির্বাচনেও অংশগ্রহণ করেছিল তৃণমূল। কিন্তু সেবার দলের হাওয়া ভালো থাকলেও প্রচারে যাননি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এখন হাওয়া বদল হয়েছে। আগের থেকে অনেকটা পালে হাওয়া ধরাতে পেরেছে তৃণমূল। এমনটাই মনে করছেন তৃণমূলের দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতারা। নিজে গোটা বিষয়টার ওপর নজর রাখছিলেন অভিষেক। এখন ত্রিপুরায় গিয়ে কর্মীদের মনোবল বাড়াতে চান তিনি।

নির্বাচনের দিনক্ষণ ঘোষণার পর শুক্রবার ত্রিপুরার দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেন অভিষেক। বৈঠক শেষেই রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছিলেন আগামী মাসেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ত্রিপুরা সফরে যেতে পারেন। বৈঠকের পরের দিনেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সফর সূচির কথা জানানো হয়েছে।

ত্রিপুরা সফরে মুখ্যমন্ত্রী মমতা, বিশেষ নজর রাজনৈতিক মহলের 
ত্রিপুরা সফরে মুখ্যমন্ত্রী মমতা, বিশেষ নজর রাজনৈতিক মহলের 

ত্রিপুরার এই মুহুর্তে ক্ষমতায় থগাকা বিজেপিকে সরাতে একজোট হয়েছে বাম এবং কংগ্রেস। অন্যদিকে, তিপ্রাল্যান্ডের দাবিতে জোট করেছে আইপিএফটি এবং ত্রিপ্রা মোথা। দুই জোটের মধ্যে কোনও এক দলের সঙ্গে হাত মেলাবে তৃণমূল? নাকি একাই লড়াইয়ের সিদ্ধান্ত নেবে তাঁরা? সেই প্রশ্ন মাথাচাড়া দিতে শুরু করেছে। অন্যান্য দলের উদ্দেশ্যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কী বার্তা দেবেন? সেদিকে নজর রয়েছে রাজনৈতিক মহলের।

ত্রিপুরা সফরে মুখ্যমন্ত্রী মমতা, বিশেষ নজর রাজনৈতিক মহলের 

ত্রিপুরা সফরে মুখ্যমন্ত্রী মমতা, বিশেষ নজর রাজনৈতিক মহলের 
ত্রিপুরা সফরে মুখ্যমন্ত্রী মমতা, বিশেষ নজর রাজনৈতিক মহলের 

অন্যদিকে, সম্প্রতি মেঘালয়ের প্রচার সেরে ফিরেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ৬০ টি আসনের মধ্যে ওই রাজ্যের ৫২ টি আসনে প্রার্থী দেওয়ার কথা জানিয়েছে বিরোধী দল তৃণমূল। রাজনৈতিক মহলের ধারণা, ত্রিপুরার থেকে মেঘালয়ে তৃণমূলের রাজনৈতিক অবস্থা অনেকটা ভালো। তাই আগে থেকেই বিশেষ গুরুত্ব দিতে চান তৃণমূলের শীর্ষ নেতৃত্ব।