তবে কি এবার মিঠুনও গায়ে গলাচ্ছেন গেরুয়া বসন? রাজ্যে জল্পনা তুঙ্গে

তবে কি এবার মিঠুনও গায়ে গলাচ্ছেন গেরুয়া বসন? রাজ্যে জল্পনা তুঙ্গে

নজরবন্দি ব্যুরো: তবে কি এবার মিঠুনও গায়ে গলাচ্ছেন গেরুয়া বসন, ‘মহারাজ’কে নিয়ে জল্পনার মাঝেই এবার এন্ট্রি হল মহাগুরু-মিঠুন চক্রবর্তীর। প্রশ্ন উঠছে, এবার কি তিনি গেরুয়া রঙে নিজেকে রাঙাতে চলেছেন? এক সময়ে বাংলায় শাসক দল তৃণমূলের রাজ্যসভা সাংসদ ছিলেন মিঠুন। কিন্তু পরে চিটফান্ড বিতর্কে তাঁর নাম জড়িয়ে যাওয়ায় সাংসদের উচ্চকক্ষ থেকে ইস্তফা দেন মহাগুরু। যদিও সেসব এখন ইতিহাস। সূত্র মারফত শোনা যাচ্ছে, এবার মিঠুন সঙ্গে এখন নাগপুরে আরএসএস সদর দফতরের সম্পর্ক নিবিড় হয়েছে।

আরও পড়ুন: বিজেপিতে অবস্থান কী? ‘ঘর ভাঙ্গাতে’ বিধায়কদের চিঠি পাঠাচ্ছে তৃণমূল!

ইতিমধ্যেই তিনি নাকি নাগপুরে সঙ্ঘের সদর দফতরে গিয়েওছিলেন । সেখানে গিয়ে সর সঙ্ঘচালক মোহন ভাগবতের সঙ্গে দেখা করেন। সেইসঙ্গে আরএসএসের প্রতিষ্ঠাতা কেশব বলিরাম হেগড়েওয়ারের স্মৃতি স্থানে শ্রদ্ধাজ্ঞাপন করেন। পরে সাংবাদিকদের সঙ্ঘের সাধারণ সম্পাদক মনমোহন বৈদ্য বলেছিলেন, ‘আরএসএস কোনও রাজনৈতিক সংগঠন নয়। মিঠুন চক্রবর্তী আরএসএসের কর্মপদ্ধতি জানতে চেয়েছিলেন। সঙ্ঘের তাঁর কোনও আনুষ্ঠানিক সম্পর্ক তৈরি হয়নি।’ তারপর থেকেই বেড়েছে জল্পনা। প্রশ্ন উঠছে তবে কি এবার মিঠুনও গায়ে গলাচ্ছেন গেরুয়া বসন?

অন্যদিকে নেতাজির ১২৫ তম জন্মজয়ন্তী উদযাপনে মোদী সরকার যে কমিটি গঠন করেছে তাতে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের সঙ্গে মিঠুন চক্রবর্তীরও নাম রয়েছে। এ বিষয়ে বঙ্গ বিজেপির এক নেতার বক্তব্য, এমন নয় যে বিজেপি চাইছে যে এঁরা দলে যোগ দিন। তা করতে চাইলে তো কার্পেট পাতা রয়েছে। কিন্তু দলে যোগ না দিয়েও গেরুয়া শিবিরের জন্য তাঁরা যদি তাঁদের অনুগামী ও অনুরাগীদের উপর প্রভাব ফেলতে পারেন, তাও কম কী!

এমনকি কৌতুক করে বিজেপির ওই নেতা একটু হেসে কবি হেমচন্দ্র বন্দ্যোপাধ্যায়ের লেখা ‘জীবন সঙ্গীত’ কবিতাটি দুটি লাইন বলেন,—’মহাজ্ঞানী মহাজন যে পথে করে গমন/হয়েছেন প্রাতঃস্মরণীয়/ সেই পথ লক্ষ্য করে স্বীয় কীর্তি ধ্বজা ধরে/ আমরাও হব বরণীয়’। অর্থাত্‍ সৌরভ, মিঠুনদের গেরুয়া শিবিরের কাছাকাছি দেখে যদি কিছু মানুষকে অনুপ্রাণিত করা যায়।

তবে কি এবার মিঠুনও গায়ে গলাচ্ছেন গেরুয়া বসন, প্রসঙ্গত, শনিবার সেই কমিটির সদস্যদের নাম ঘোষণা করা হল কেন্দ্রের তরফে। সেই উচ্চপর্যায়ের কমিটিতে রাখা হয়েছে সৌরভ গাঙ্গুলি, মিঠুন চক্রবর্তী, কৌশিক গাঙ্গুলি, সুব্রত ভট্টাচার্য, এ আর রহমানের মতো বিশিষ্টরা। এই কমিটির নেতৃত্বে থাকবেন প্রধানমন্ত্রী নিজেই। এছাড়া অমিত শাহ, স্মৃতি ইরানি, রাজনাথ সিং, নির্মলা সীতারমনের মতো কেন্দ্রীয় মন্ত্রীরাও রয়েছেন। সব রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদেরও রাখা হয়েছে কমিটিতে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x