Relationship: স্বামীর বান্ধবী অশান্তির কারণ? কিন্তু কেন? সমীক্ষায় উঠে এলো চাঞ্চল্যকর তথ্য

স্বামীর বান্ধবী অশান্তির কারণ? কিন্তু কেন? সমীক্ষায় উঠে এলো চাঞ্চল্যকর তথ্য
Husband's girlfriend cause trouble? But why? Sensational information came out in the survey

নজরবন্দি ব্যুরোঃ স্বামীর একাধিক মহিলা বন্ধু? তাঁদের সঙ্গে স্বামীর সম্পর্ক বেশ সাবলীল? এই নিয়ে স্ত্রীর মাথায় ঘুরপাক খেতে থাকে নানা প্রশ্ন! সম্পর্কের পথ মসৃণ হয় না। কখনও কখনও সম্পর্কে খারাপ সময় আসে, আবার কখনও সম্পর্কের মধুর স্মৃতি সঙ্গে করেই বেশ কিছুটা সময় ভালো করে কাটিয়ে দেওয়া যায়। তাই বলে সঙ্গীর সঙ্গে যা ইচ্ছে তাই করা যায় কি? ছোটখাট ঝগড়া, ধীরে ধীরে দানা বাঁধে শক্তপোক্ত সন্দেহ, ক্রমে অশান্তি চূড়ান্তে পৌঁছয়! সমীক্ষা বলছে, পুরুষদের চেয়ে মহিলারা তাঁদের স্বামীর মহিলা বন্ধুকে নিয়ে বেশি ঈর্ষান্বিত থাকেন।

আরও পড়ুনঃ পুজোর ৭ দিন আগেই ঘরোয়া উপায়ে গায়েব হবে মুখের কালো দাগ, জানুন কীভাবে

অনেক সময় একজন মনে করেন, তাঁর সঙ্গীকে যথেষ্ট সময় না দিলেও হবে। সঙ্গীর ভালো লাগা খারাপ লাগা নিয়ে না ভাবলেও চলবে। তিনি তো এমনিও ছেড়ে যাবেন না, ওমনিও যাবেন না(Divorce Reason)। আর এই ধারণা নিয়ে চলতে চলতেই এক সময় সম্পর্কে প্রেমের ভাঁটা পড়ে। সঙ্গীর আপনার উপর থেকেই মন উঠে যায়।

স্বামীর বান্ধবী অশান্তির কারণ? কিন্তু কেন? সমীক্ষায় উঠে এলো চাঞ্চল্যকর তথ্য
স্বামীর বান্ধবী অশান্তির কারণ? কিন্তু কেন? সমীক্ষায় উঠে এলো চাঞ্চল্যকর তথ্য

সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, স্বামীর অন্য কোনও মহিলার সঙ্গে সম্পর্ক রয়েছে? এই বিষয় নিয়ে খুব একটা মাথা ব্যথা থাকে না স্ত্রীর! বরং তাঁরা বেশি চিন্তিত স্বামীর অন্য কোনও মহিলার সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক আছে কী না, সেই বিষয়ে ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের এক দল গবেষকের সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, এটি সম্পূর্ণ মস্তিষ্কজনিত সমস্যা। মূলত মস্তিষ্কের মূল দুটি অংশ— সিঙ্গুলেট কর্টেক্স এবং ল্যাটেরাল সেপ্টাম ঈর্ষান্বিত অনুভূতিকে বেশি উদ্দীপিত করে।

স্বামীর বান্ধবী অশান্তির কারণ? কিন্তু কেন? সমীক্ষায় উঠে এলো চাঞ্চল্যকর তথ্য

স্বামীর বান্ধবী অশান্তির কারণ? কিন্তু কেন? সমীক্ষায় উঠে এলো চাঞ্চল্যকর তথ্য

অনেক স্ত্রী অভিযোগ করেন, তাঁর স্বামী যথেষ্ট সময় দেন না। তাঁর কথা ভাবেন না। আর এক সময় গিয়ে সম্পর্ক তলানিতে(Relationship Issue) এসে ঠেকে। তখন কিন্তু চাইলেও আর আপনার স্ত্রীকে ফিরিয়ে আনতে পারবেন না। তাই সময় থাকতেই শুধরে নিন নিজেকে। তাই মনোরোগ বিশেষজ্ঞদের দাবি, এই সমস্যার সমাধান করতে পারে একমাত্র একে অপরের প্রতি বিশ্বাস! সমস্যা যাই হোক না কেন, দু’জনে কথা বলে তার সমাধান খুঁজে বের করা উচিৎ।