Mithun Chakraborty: রামের টাকা শ্যামের নামে কেন যাবে ? জনসংযোগে গিয়ে তৃণমূলের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক মহাগুরু

রামের টাকা শ্যামের নামে কেন যাবে ? জনসংযোগে গিয়ে তৃণমূলের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক মহাগুরু
bjp mithun claims money laundering against tmc

নজরবন্দি ব্যুরোঃ  পঞ্চায়েত ভোটের আগে জনসংযোগ বাড়াতে মিঠুন চক্রবর্তীকে মাঠে নামিয়েছে বিজেপি। আর এই লক্ষ্যে বাংলায় পা দিয়েই শুরু করেছেন মহাগুরুর খেল। পুরুলিয়ার রাঙ্গা মাটিতে গিয়ে জনদরদী হয়ে উঠলেন  মিঠুন। তাঁর মুখে শোনা গেল দুর্নীতির রাম-শ্যাম তত্ত্ব। জনতার দরবারে গিয়ে শুনলেন সমস্যা, দিলেন সমাধানের নিদান। কেন্দ্রের টাকা নিয়ে আর্থিক তছ্রূপ করছে রাজ্য এমন কথাই শোনা গেল মিঠুনের কণ্ঠে।

আরও পড়ুনঃ মহাগুরুর যাত্রায় সঙ্গী বদল, রাজভবনে যাচ্ছে শুভেন্দু-সুকান্ত জুটি!

জনসভায় উপস্হিত হয়ে মিঠুন বলেন, ‘ রামের টাকা শ্যামের নামে , শ্যামের টাকা রামের নামে চালাচ্ছে  তৃনমূল’। তিনি আরও বলেন, একই ব্যাক্তিকে একাধিকবার টাকা দেওয়া। হিসাবে গরমিল করা এবং কেন্দ্রের প্রকল্পকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজের নামে চালাচ্ছেন, তাই কেন্দ্র টাকা বন্ধ করেছে। হিসাব দিলেই টাকা আসবে বলে দাবি করেন মিঠুন। আবাস যোজনা, সড়ক যোজনা সব যে কেন্দ্র সরকারের প্রকল্প তা আরও একবার খোলসা করে দিতে দেখা গেল মহাগুরুকে।  তিনি বলেন, “প্রধান মন্ত্রী আবাস যোজনার টাকা সবাই পাবেন। আগে হিসাব দিন।সরকারের পয়সা, পাবলিকের পয়সা হিসাব কই? রামের নামে অ্যাকাউন্ট, শ্যামের নামে কী করে টাকা যাবে?”

রামের টাকা শ্যামের নামে কেন যাবে ? জনসংযোগে গিয়ে তৃণমূলের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক মহাগুরু
রামের টাকা শ্যামের নামে কেন যাবে ? জনসংযোগে গিয়ে তৃণমূলের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক মহাগুরু

এর আগে সেপ্টেম্বরে মহাগুরু বলেছিলেন, ‘তৃণমূলের ২১ জন বিধায়ক আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছেন। তবে নভেম্বরের শেষে সেই সংখ্যাটা বেড়েছে বলে দাবি করলেন তিনি।‘ গতকাল তিনি তৃনমূল সম্পর্কে বলেন ‘‘তৃণমূলে সকলে দুর্নীতিগ্রস্ত নন। অনেকে আছেন যাঁরা দুর্নীতির সঙ্গে যুক্ত নন। তৃণমূলে যাঁরা ভালো, তাঁরা শান্ত। যাঁরা শান্ত, তাঁদের দিকে নজর রাখুন”।

রামের টাকা শ্যামের নামে কেন যাবে ? মিঠুন তৃনমূলের বিরুদ্ধে আনলেন আর্থিক তছরুপের অভিযোগ

রামের টাকা শ্যামের নামে কেন যাবে ? জনসংযোগে গিয়ে তৃণমূলের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক মহাগুরু
রামের টাকা শ্যামের নামে কেন যাবে ? জনসংযোগে গিয়ে তৃণমূলের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক মহাগুরু

প্রসঙ্গত ২৩ থেকে ২৭ তারিখ বাঁকুড়া, বীরভূম, পুরুলিয়া সহ রাঢ়বঙ্গে ও উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন জেলায় জনসভা সারলেন মিঠুন চক্রবর্তী। এরপর তিনি যাবেন দক্ষিনবঙ্গে। মূলত বুথ স্তর এবং বল্ক স্তরের সংগঠন কে মজবুত করার গুরুভার নিয়েছেন মিঠুন।