পিছিয়ে গেল আপারের শুনানি; ন্যায় বিচার হবে, আমরা প্রস্তুতঃ বিকাশ ভট্টাচার্য্য।#Exclusive

পিছিয়ে গেল আপারের শুনানি; ন্যায় বিচার হবে, আমরা প্রস্তুতঃ বিকাশ ভট্টাচার্য্য।#Exclusive

নজরবন্দি ব্যুরোঃ পিছিয়ে গেল আপারের শুনানি। আপার প্রাইমারি তে নিয়োগের ক্ষেত্রে দীর্ঘদিন ধরে অচলাব্যাবস্থা অব্যাহত, প্রতিদিনই কোন না কোন আন্দোলনের খবর প্রকাশ্যে আসে। কিন্তু গতকাল আপার প্রাইমারির বঞ্চিত চাকুরি প্রার্থীদের জন্যে নতুন ভাল খবর মিলেছিল কলকাতা হাইকোর্ট থেকে। কথা ছিল আজ হবে বহু প্রতীক্ষিত দুটি আপার প্রাইমারি মামলার শুনানি। ইচ্ছামত টেটের নাম্বার বাড়িয়ে দেওয়া, রেসিও না মানা প্রভৃতি অভিযোগে জেরবার আপার প্রাইমারি নিয়োগ সংক্রান্ত গুরুত্বপূর্ণ মামলার শুনানি হবে কলকাতা হাইকোর্টে। আপার প্রাইমারির বঞ্চিত হবু শিক্ষকদের হয়ে মামলা গুলি লড়বেন ফরদৌস সামিম এবং বিকাশ রঞ্জন ভট্টাচার্য্য।

আরও পড়ুনঃ মমতা সরকারে আস্থা নেই, বিরোধীদের স্মরণ নিলেন হাজারো টেট উত্তীর্ণ।

হাইকোর্টের প্যানেলে আজ প্রথম দুটি মামলাই ছিল আপার প্রাইমারীর। প্রথম মামলাটি হল ভানু রায় এবং গোপা বিশ্বাস বনাম রাজ্য সরকার, এই মামলায় চাকরিপ্রার্থীদের হয়ে লড়ার কথা ছিল ফিরদৌস শামিম এর। এবং দ্বিতীয় মামলাটি হল আস্তারুল ইসলাম এবং রুচিরা চ্যাটার্জী বনাম রাজ্য সরকার, এই মামলায় চাকরিপ্রার্থীদের হয়ে লড়ার কথা ছিল বিকাশ রঞ্জন ভট্টাচার্য্য-র। চাকরিপ্রার্থীরা বহুদিন প্রতীক্ষা করেছেন এই বিশেষ দিনটি আসার জন্যে। তাঁদের আশা এবার বঞ্চনার অবশান ঘটবে এবং হাইকোর্টের রায় তাঁদের পক্ষেই আসবে। কিন্তু দূর্ভাগ্য জনক ভাবে এদিন হাইকোর্টে করোনা সংক্রমণের কারনে কোর্ট স্থগিত করে দেওয়া হয়। এক আইনিজীবির করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু ঘটেছে। অন্যদিকে একটি সূত্রের দাবি, কমিশনের আইনজীবী অনুপস্থিত ছিলেন এদিন। তিনি উপস্থিত থাকলে আজ শুনানি হওয়ার সম্ভাবনা ছিল।

পিছিয়ে গেল আপারের শুনানি। নজরবন্দির পক্ষ থেকে আইনজীবী বিকাশ ভট্টাচার্য্যের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি একথা জানান। পাশাপাশি তিনি বলেন আমরা সার্বিক ভাবে প্রস্তুত আছি লড়াইয়ের জন্যে। তিনি জানান আপাতত কোর্ট স্থগিত করে দেওয়া হয়েছে দুই সপ্তাহের জন্যে। ২ সপ্তাহ পরে শুনানির জন্যে আমি টিম নিয়ে প্রস্তুত। বিকাশ বাবু মজা করে বলেন সব রকম অস্ত্র সাজিয়ে রেখেছি। বঞ্চিত চাকরিপ্রার্থীরা বিচার পাবেই। অন্যদিকে আপার মামলার অন্যতম আইনজীবী ফিরদৌস শামিম বলেন, আজ বিচারকের সামনে আপার মামলার বিষয়টি তোলা হয়। কিন্তু কোর্ট স্থগিত হয়ে যাওয়ায় বিচারক জানিয়েছে আগস্ট মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহে হবে আপার মামলার শুনানি। এই মামলার বিষয়ে যথেষ্ট আত্মবিশ্বাসের সুর শামিম এর গলাতেও।

উল্লেখ্য, সাত বছরের নিয়োগ বঞ্চনার প্রতিবাদ, মেধা তালিকায় একাধিক অসঙ্গতির অভিযোগে বাড়িতে থেকেই পোস্টার, দেওয়াল লিখন এবং লাইভ ভিডিও কর্মসূচী। শেষে গাছ লাগানো এবং স্কুল সার্ভিস কমিশনে গেজেট গণ ইমেলের পর পশ্চিমবঙ্গ আপার প্রাইমারী চাকরিপ্রার্থী মঞ্চ সিদ্ধান্ত নেয় রাজ্যের সমস্ত বিধায়ক, মন্ত্রী, মেয়র, পুরসভার চেয়ারম্যান এবং সাংসদের কাছেই তাঁদের করুন অবস্থার কথা তুলে ধরা হবে।

সেইমত রাজ্যের একাধিক জনপ্রতিনিধির কাছে পৌঁছে গিয়েছেন তাঁরা।যেমন তৃণমূলের রাজ্যসভার সাংসদ তথা দাপুটে নেত্রী মৌসম বেনজির নুর, রাজ্যের মন্ত্রী বাচ্চু হাঁসদা,  দিনহাটার বিধায়ক উদয়ন গুহ, তুফানগঞ্জের বিধায়ক ফজল করিম, জঙ্গিপুর লোকসভার সাংসদ খালিলুর রহমান, ইটাহারের বিধায়ক অমল আচার্য্য, প্রাক্তন বনমন্ত্রী বিনয় কৃষ্ণ বর্মন, মুর্শিদাবাদ লোকসভা কেন্দ্রের সাংসদ আবু তাহের খান, কালিয়াগঞ্জ এর বিধায়ক তপন দেবসিংহ, সাগর বিধানসভা বিধায়ক তথা সুন্দরবন উন্নয়ন পর্ষদ ও গঙ্গাসাগর বকখালি উন্নয়ন পর্ষদের চেয়ারম্যান বঙ্কিম চন্দ্র হাজরা, সুন্দরবন উন্নয়ন মন্ত্রী মাননীয় মন্টু রাম পাখিরা।

জন প্রতিনিধিদের পাশাপাশি DI অফিস কর্মসূচি ডেপুটেশন কর্মসুচী নেওয়া হয়েছে চাকরিপ্রার্থীদের পক্ষ থেকে। ৮ ই জুলাই আলিপুরদুয়ার জেলা DI অফিস ডেপুটেশন প্রদান করা হয়। ১০ জুলাই কোচবিহার জেলা DI অফিসে ডেপুটেশন প্রদান করা হয়। ১৪ জুলাই পশ্চিম মেদিনীপুর DI অফিস ডেপুটেশন দেওয়া হয় এবং আজ ১৫ জুলাই মুর্শিদাবাদ ও বীরভূম জেলা DI অফিস অতি দ্রুত আপার শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া দাবিতে ডেপুটেশন প্রদান করা হয়। ডেপুটেশন দিতে শত শত উচ্চপ্রাথমিক চাকরি মিছিল করে ডি আই অফিসে যান এদিন। তাঁদের স্লোগানে ছিল আর্তনাদ আর সাথে ছিল বঞ্চনার বিরুদ্ধে ঝাঁঝালো প্রতিবাদের সুর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *