জুলাই-এ হতে পারে CBSE দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষা, তবে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত ১লা জুনের পর

সিবিএসই-র(CBSE) পর বাতিল হল আইএসসি(ISC) দ্বাদশের পরীক্ষাও
সিবিএসই-র পরে বাতিল আইএসসি দ্বাদশের পরীক্ষাও

নজরবন্দি ব্যুরোঃ করোনার দ্বিতীয় ঢেউ আছড়ে পড়েছে দেশে। বিভিন্ন ক্ষেত্রের মত যার চরম প্রভাব পড়েছে দেশের শিক্ষাক্ষেত্রে। করোনার প্রথম ঢেউ থেকেই প্রায় অচল দেশের শিক্ষাব্যবস্থা। এবছরেও করোনার জেরে বাতিল হয়েছে কেন্দ্রীয় বোর্ড সহ দেশের একাধিক বোর্ডের মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিকের মত অতি গুরুত্বপূর্ণ পরীক্ষা।

আরও পড়ুনঃ অব্যাহত বেলাগাম সংক্রমণ, আরও ৭ দিন লকডাউন বাড়ল বাংলাদেশে।

এমন অবস্থায় কিভাবে আগামীদিনে কেন্দ্রীয় বোর্ড CBSE-এর পরীক্ষা নেওয়া যায় সেই নিয়ে আজ বৈঠকে বসেছিলেন কেন্দ্র-রাজ্যর প্রতিনিধি দল কিন্তু বৈঠকে মিলল না রফাসূত্র। চলতি বছরে কোভিডের দ্বিতীয় ঢেউয়ের বাড়বাড়ন্তে সিবিএসই বোর্ডের দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষা আদৌ হবে কি না বা হলেও কী প্রক্রিয়ায় তা হবে, সে ব্যাপারেই সিদ্ধান্ত নিতে রবিবার বৈঠকের ডাক দিয়েছিল কেন্দ্র। সেই বৈঠকেই উঠে এসেছে দু’টি প্রস্তাব। রাজ্যগুলিকে বলা হয়েছে, তারা পছন্দমতো বিকল্প বেছে নিতে পারে। প্রস্তাব এক, পেপারের সংখ্যা কমিয়ে পুরোনো পদ্ধতিতেই শুধুমাত্র প্রধান প্রধান বিষয়ের পরীক্ষা নেওয়া হোক।

প্রস্তাব দুই, পেপারের সংখ্যা একই থাক। শুধু পরীক্ষার সময়সীমা কমিয়ে দেড় ঘণ্টায় আনা হোক। এক্ষেত্রে পড়ুয়াদের সামনে এমসিকিউ এবং সংক্ষিপ্ত উত্তরভিত্তিক প্রশ্ন রাখা হবে। কিন্তু এতেও জটিলতা কাটেনি। কেন্দ্রের দেওয়া দুটি বিকল্প তখনই নাকচ করে দিল্লি ও মহারাষ্ট্র সরকার। তবে সূত্রের খবর, পরীক্ষা পুরোপুরি বাতিল হবে না। জুলাই মাসেই কোভিড বিধি মেনে হতে পারে পরীক্ষা। গত এপ্রিল মাসেই সিবিএসই বোর্ডের দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষা পিছিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল কেন্দ্র।

তার পর এই বৈঠক অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ ছিল। রবিবারের বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষা মন্ত্র্রী রাজনাথ সিংহ, কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রী রমেশ পোখরিয়াল, কেন্দ্রীয় নারী ও শিশুকল্যাণ মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি এবং কেন্দ্রীয় তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকর। বৈঠকে সমস্ত রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের শিক্ষামন্ত্রী ও শিক্ষাসচিবদের থাকতে বলা হয়েছিল।

বৈঠক শেষে রাজনাথ সিংহ বলেন, ‘‘এই বৈঠক শুধু পরামর্শ আদানপ্রদানের বৈঠক ছিল। যা প্রস্তাব উঠে এসেছে, তা নিয়ে আরও উঁচু পর্যায়ে আলোচনা হবে। প্রধানমন্ত্রীকেও জানানো হবে। নির্ধারিত ১ জুন বিষয়টি নিয়ে পর্যালোচনা হবে। তার পরেই পরীক্ষার দিনক্ষণ নিয়ে সিদ্ধান্ত হবে।’’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here