সচিন, সৌরভদের পর এবার স্বার্থ সংঘাতের অভিযোগ বিরটের বিরুদ্ধে

সচিন, সৌরভদের পর এবার স্বার্থ সংঘাতের অভিযোগ বিরটের বিরুদ্ধে

নজরবন্দি ব্যুরোঃ ভারতীয় ক্রিকেটে ফের স্বার্থ সংঘাতের মতো গুরুতর অভিযোগ। অতীতে ভারতীয় ক্রিকেটের দিকপাল সচিন তেন্ডুলকর, সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়, রাহুল দ্রাবিড়, ভিভিএস লক্ষ্মণ কিংবা কপিল দেব প্রত্যেকের বিরুদ্ধেই স্বার্থ সংঘাতের অভিযোগ এসেছিল। কিন্তু একটিও ধোপে টেকেনি। এবার বিরোট কোহলির বিরুদ্ধে উঠল স্বার্থের সঙ্ঘাতের অভিযোগ। যা  খতিয়ে দেখছেন বোর্ডের এথিক্স অফিসার ডি কে জৈন।

ভারতীয় দলের অধিনায়কের পাশাপাশি বিরাট একটি বাণিজ্যিক সংস্থার ডিরেক্টর। যে সংস্থা অন্য একটি ট্যালেন্ট ম্যানেজমেন্ট সংস্থার সঙ্গে পরোক্ষভাবে জড়িত। এবং সেই সংস্থার বোর্ডে নাকি কয়েকজন ভারতীয় ক্রিকেটার রয়েছেন। সঞ্জীব গুপ্ত নামে এক ব্যক্তির অভিযোগ, বিরাটের এই একাধিক পদে থাকাটা স্বার্থের সঙ্ঘাত। কোহালি যদিও এই সংস্থায় যুক্ত নন। সঞ্জীব গুপ্ত বলেছেন, ‘কোহালি দুটো পদে আছেন।

যা সুপ্রিম কোর্ট দ্বারা অনুমোদিত বোর্ডের ৩৮(৪) ধারাকে সরাসরি লঙ্ঘন করছে। তাই অবিলম্বে কোনও একটা পদ ছেড়ে দেওয়া উচিত তাঁর।’ এই বিষয় নিয়ে ডি কে জৈন পিটিআইকে বলেছেন, “আমি একটি অভিযোগ পেয়েছি। আমি এটি যাচাই করে দেখব এবং মামলাটি তৈরি হয়েছে কিনা তা দেখবো। যদি সত্যি হয়, তবে তাকে (কোহলি) এর প্রতিক্রিয়া জানাতে আমাকে একটা সুযোগ দিতে হবে।” গত মাসে এক বছরের মেয়াদ বাড়ানোর পর থেকে জৈন এটি প্রথম হাই প্রোফাইল অভিযোগ পেয়েছেন।

চাকরীর প্রথম বছরে, জৈন ভারতীয় ক্রিকেট তারকা রাহুল দ্রাবিড়, সৌরভ গাঙ্গুলি, ভিভিএস লক্ষ্মণ এবং কপিল দেবের বিরুদ্ধে স্বার্থ সংঘাত অভিযোগের সমাধান করেছিলেন। এই সমস্ত অভিযোগ গুপ্তের কাছ থেকেই এসেছিল এবং অভিযোগগুলি “অবজ্ঞাপূর্ণ” হওয়ার আগে আইকনিক প্রাক্তন খেলোয়াড়দের একটি পদ থেকে পদত্যাগ করতে হয়েছিল। বিসিসিআইয়ের সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলি ইতিমধ্যে জানিয়ে দিয়েছেন যে লোধা কমিটি দ্বারা নির্ধারিত স্বার্থ সংঘাতের রীতিনীতিগুলি অবাস্তব।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *