বুধবার বাংলায় আছড়ে পড়বে আম্ফানের থেকেও বিধ্বংসী ‘ইয়াস’, চরম সতর্কতা।

বুধবার বাংলায় আছড়ে পড়বে আম্ফানের থেকেও বিধ্বংসী 'ইয়াস', চরম সতর্কতা।
বুধবার বাংলায় আছড়ে পড়বে আম্ফানের থেকেও বিধ্বংসী 'ইয়াস', চরম সতর্কতা।

নজরবন্দি ব্যুরোঃ বুধবার বাংলায় আছড়ে পড়বে আম্ফানের থেকেও বিধ্বংসী ‘ইয়াস'(yash cyclone)। ঘুর্নিঝড় মোকাবিলায় রাতভর কন্ট্রোলরুমে থাকবেন মমতা, আমফানের মতোই ঝরের সঙ্গে জেগে থাকবেন গোটা রাত। গতবছরের আমফানের প্রভাব এখনো ভোলেনি মানুষ। তার মধ্যেই আছড়ে পড়তে চলেছে আরও এক ঘুর্ণিঝড়। আবহাওয়াবিদরা বলছেন আম্ফান ঘুর্নিঝড়ের সর্বোচ্চ গতি ছিল ১৩৩ কিলোমিটার। সেখানে ইয়াস ঘুর্নিঝড় সর্বোচ্চ ১৭২ কিলোমিটার গতি নিতে পারে।

আরও পড়ুনঃ রাজ্যের ১০ জেলায় কমল করোনা সংক্রমণ, স্বস্তি দিয়ে বঙ্গে বৃদ্ধি সুস্থতার হার।

জোর কদমে পশ্চিমবঙ্গের উপকূলবর্তী এলাকায় চলছে বাঁধ মেরামতের কাজ। চরম ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কা করছে প্রশাসন। দিন কয়েক আগেই দুই পরগনা, মেদিনীপুর সহ সাগর পাড়ের জেলাশাসকেরা বৈঠক করেছেন। গৃহীত হয়েছে সকল পরিকল্পনা। সতর্কতা জারি হয়েছে কলকাতাতেও। ইতিমধ্যে সরানো হচ্ছে ৩ লক্ষ মানুষকে। আগামীকাল, অর্থাৎ রবিবারের মধ্যে ফিরে আসতে বলা হয়েছে সকল মাঝিকে। ত্রাণ শিবির থেকে শুকনো খাবার। মাস্ক থেকে ওষুধ তৈরি রাখছে সমস্ত কিছু।

বুধবার বাংলায় আছড়ে পড়বে ইয়াস, তার সতর্কতায় বাতিল হয়েছে একাধিক দুরপাল্লার ট্রেন। ঝড়ের তান্ডব থেকে রেল হাসপাতালগুলোকে সুরক্ষিত রাখতে আপৎকালীন ভিত্তিতে সব ধরনের ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলা হয়েছে। তবে তার সঙ্গেই চালু থাকতে প্রস্তুত অ্যাক্সিডেন্ট রিলিফ ট্রেন। ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে ক্ষতিগ্রস্তরা যাতে যে কোন মুহুর্তে সমস্ত রকম সুবিধা পায় তার জন্য এই উদ্যোগ নিয়েছে রেল। তৈরি থাকছে কর্মীরাও। কোন কারণে রেল লাইনে জল জমে গেলে দ্রুত সমাধানের পাম্প স্টেশন গুলিকে প্রস্তুত থাকতে বলা হয়েছে।

গত বারের মতোই এবারেও সারারাত জেগে অতীন্দ্রপাহারা দেবেন মুখ্যমন্ত্রী খোদ। সূত্রের খবর সূত্রের খবর, ২৫ এবং ২৬ মে অর্থাৎ যে দুদিন এই ঝড় আছড়ে পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে সেই দুদিন কন্ট্রোল রুমেই থাকবেন তিনি। আবহাওয়া দপ্তরের পূর্বাভাস অনুযায়ী এই প্রবল ঝড়ের সঙ্গে মোকাবিলা করতে কলকাতা পুরসভায় আরো একটি কন্ট্রোল রুম খোলার পরিকল্পনা চলছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here