Beard Itching: বর্ষায় দাড়ি চুলকানি বাড়ে কেন? কীভাবে বাঁচবেন দেখে নিন

বর্ষায় দাড়ি চুলকানি বাড়ে কেন? কীভাবে বাঁচবেন দেখে নিন
বর্ষায় দাড়ি চুলকানি বাড়ে কেন? কীভাবে বাঁচবেন দেখে নিন

নজরবন্দি ব্যুরোঃ বর্ষায় দাড়ি চুলকানি বাড়ে কেন? অনেকেই এখন দাড়ি বড় করেন। যদিও বিশেষজ্ঞদের মতে, শুধু স্টাইলের দিক দিয়েই নয় বরং বড় দাড়ি ত্বকের জন্যও নাকি উপকারী। কারণ দাড়ির কারণে সারাসরি কোনো ময়লা ত্বকে পৌঁছাতে পারে না। বড় দাড়ির ক্ষেত্রে চুলকানির সমস্যা অনেকেই ভোগেন। তবে দাড়ি চুলকায় কেন? যদিও অনেক কারণেই দাড়ির চুলকানি হতে পারে, যার মধ্যে অন্যতম হলো- অপরিচ্ছন্নতা, শুষ্ক ত্বক, ব্রণ হওয়া কিংবা বিভিন্ন প্রসাধনী ব্যবহার করে দাড়ির অত্যধিক সাজসজ্জা ইত্যাদি।

আরও পড়ুনঃ কুকুরকাণ্ডে বিপাকে অভিনেত্রী, রইল আদালত অবমাননার অভিযোগ

দাড়ি থাকলে চুলকোবে। বিশেষ করে বর্ষাকালে। বড় দাড়ি যাঁরা রাখেন, তাঁদের প্রত্যেকেরই এমন অভিজ্ঞতা রয়েছে। কারও বেশি চুলকোয়, কারও কম। এখন প্রশ্ন হল, দাড়ি চুলকোয় কেন? চুলকানি কমাতে কী করা যায়? দাড়ি চুলকানির অনেক কারণ রয়েছে। বর্ষা মৌসুমে ছত্রাক বা ব্যাকটেরিয়া সংক্রমণের কারণেও হতে পারে দাড়ি চুলকানি। তাই দাড়িতে জমে থাকা তেল, ময়লা ও ব্যাকটেরিয়া দূর করতে নিয়মিত পরিষ্কার থাকা জরুরি।এটা কিন্তু গভীর সমস্যার লক্ষণ।

বর্ষায় দাড়ি চুলকানি বাড়ে কেন? কীভাবে বাঁচবেন দেখে নিন
বর্ষায় দাড়ি চুলকানি বাড়ে কেন? কীভাবে বাঁচবেন দেখে নিন

এ থেকে বাঁচার উপায়? তেল, ময়লা এবং ব্যাকটেরিয়া রোধে মুখ এবং দাড়ি পরিষ্কার রাখতে হবে। এছাড়া আরও কয়েকটি নিয়ম মেনে চললেই দাড়ি চুলকানির হাত থেকে বাঁচা সম্ভব। সেগুলি দেখে নেওয়া যাক একনজরে।

দাড়ির যত্নের জন্য তৈরি এমন ফেস ওয়াশ কিংবা ব্রেড ওয়াশ ব্যবহার করতে হবে। দাড়ির চুলকে প্রাকৃতিকভাবে তৈলাক্ত রাখতে জোজোবা আরগান তেলের সঙ্গে লাগাতে হবে দাড়ি কন্ডিশনার।

নতুন বিয়ার্ড অয়েল বা কন্ডিশনার ব্যবহার করার আগে একটা প্যাঁচ টেস্ট করে নেওয়া জরুরি। কারণ কিছু কিছু পণ্য কমেডোজেনিক এবং ব্রণর সমস্যা বাড়িয়ে দিতে পারে।

দাড়ি ট্রিম করার সময় প্রাকৃতিক আফটার শেভ লোশন বা ওয়াশই ব্যবহার করা উচিত। যেমন চা গাছের তেল বা অ্যালোভেরা। রুক্ষ, সিন্থেটিক রাসয়নিক আছে এমন পণ্য এড়িয়ে চলাই ভালো।

বর্ষায় দাড়ি চুলকানি বাড়ে কেন? কীভাবে বাঁচবেন দেখে নিন
বর্ষায় দাড়ি চুলকানি বাড়ে কেন? কীভাবে বাঁচবেন দেখে নিন

প্রথমবার দাড়ি বাড়ানোর সময় শেভ এবং ট্রিমিং এড়াতে পারলে সবচেয়ে ভালো। এটা চুলকে ফলিকলের বাইরে বাড়তে দেয়। এতে জ্বালাভাব কমে। ত্বক বা ফলিকলের ক্ষতি হয় না।

ত্বকের অবস্থার উপর নির্ভর করে চিকিৎসক অনেক সময় মলম, ক্রিম বা লোশন প্রেসক্রাইব করেন। সাধারণত ল্যাকটিক অ্যাসিড বা ইউরিয়া আছে এমন মলম বা ক্রিম দেওয়া হয়। এগুলো শুষ্ক ত্বকের জন্য দারুণ কার্যকরী। এছাড়াও ব্যাকটেরিয়া সংক্রমণের বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য আছে মুপিরোসিন (ব্যাকট্রোবান)। ছত্রাক সংক্রমণের চিকিৎসার জন্য অ্যান্টিফাঙ্গাল ক্রিম দেওয়া হয়। একজিমা থাকলে হাইড্রোকর্টিসোন, ক্লোবেটাসোল (কর্মাক্স), বা ডেসোনাইড (ডেসোনেট) সেবোরিক দেওয়া হয়।

বর্ষায় দাড়ি চুলকানি বাড়ে কেন? কীভাবে বাঁচবেন দেখে নিন

বর্ষায় দাড়ি চুলকানি বাড়ে কেন? কীভাবে বাঁচবেন দেখে নিন
বর্ষায় দাড়ি চুলকানি বাড়ে কেন? কীভাবে বাঁচবেন দেখে নিন

সার্জারি এবং পদ্ধতি: ঘন ঘন সংক্রমণ এবং জ্বালাভাবের সঙ্গে চুলকানি দীর্ঘস্থায়ী হলে চিকিৎসক লেজার হেয়ার রিমুভালের পরামর্শ দিতে পারেন। অনেক সময় ফোঁড়া বা কার্বাঙ্কলের জন্য হালকা অপারেশনও করা হয়। উল্লেখ্য, কার্বাঙ্কল ত্বকের ফোঁড়া নামেও পরিচিত। এটা আসলে একগুচ্ছ ফোড়া যা সংক্রমণের কারণে হয়। ফটোডাইনামিক থেরাপি হল আরেকটি চিকিৎসার বিকল্প। এটি চুলের ফলিকলগুলির সংক্রমণ এবং প্রদাহের বিরুদ্ধে লড়াই করতে কার্যকর।