পুজোর সময় ফের হানা দেবে নিম্নচাপ, জল যন্ত্রণা থেকে এখনই মুক্তি নেই বঙ্গবাসীর।

পুজোর সময় ফের হানা দেবে নিম্নচাপ, জল যন্ত্রণা থেকে এখনই মুক্তি নেই বঙ্গবাসীর।
পুজোর সময় ফের হানা দেবে নিম্নচাপ, জল যন্ত্রণা থেকে এখনই মুক্তি নেই বঙ্গবাসীর।

নজরবন্দি ব্যুরোঃ সেপ্টেম্বর মাসে লাগাতার ঘূর্ণাবর্ত, ঘূর্ণিঝড়, নিম্নচাপের কারণে নজিরবিহীন খারাপ অবস্থায় পড়েছেন বাংলার লাখো মানুষ। তাছাড়া বৃষ্টির কারনে ভরে ওঠা জলা ধার থেকে জল ছাড়ার কারনে বন্যা পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে বাংলার ৫ টি জেলায়। বন্যার ফলে প্রায় ৩০ লক্ষ মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। এরই মধ্যে এল খারাপ খবর। আবহাওয়া দফতর সূত্রে খবর, পুজোর সময়ে ফের হানা দিতে পারে নিম্নচাপ।

আরও পড়ুনঃ ২ বছর শেষে মেলা প্রতিশ্রুতির ৪০ দিনও পার, কবে চাকরি দেবে SSC?

এমনিতেই অক্টোবর মাস ঝড় নিম্নচাপের মাস। তারপর সতর্কবার্তা। আর সেই সতর্কবার্তা সত্যি করে যদি ফের বৃষ্টি হয় রাজ্যে তাহলে আর দেখতে হবে না। লাগাতার বৃষ্টি আর ভিন রাজ্যের ছাড়া জলাধারের জলে ভেসে যাচ্ছে গ্রামের পর গ্রাম, নজিরবিহীন খারাপ অবস্থায় রাজ্যের ৫টি জেলার বহু অংশ। এদিকে জল যন্ত্রণা থেকে পুরোপুরি মুক্তি মেলেনি কলকাতার বাসিন্দাদের। এখনও শহরের অনেক জায়গা থেকে জল নামেনি।

হাওয়া অফিসের পূর্বাভাস অনুযায়ী এবারের পুজো ভাসিয়ে নিয়ে যেতে পারে বৃষ্টির জল। অক্টোবর মাসের রেকর্ড আছে বঙ্গোপসাগরে একাধিক নিম্নচাপ এবং ঘুর্নিঝড় বা ঘুর্ণাবর্ত তৈরি হওয়ার। খুব স্বাভাবিকভাবেই তাঁর ল্যাণ্ডফল হয় বাংলা বা উড়িষ্যায়। এবার পুজোতেই সেই রকম একটি ঘুর্ণাবর্ত তৈরি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

আবহাওয়া দফতর বলছে মহাষষ্ঠী থেকে মহাষ্টমী পর্যন্ত রোদ ঝলমলে আকাশের দেখা মিলবে। কিন্তু আবহাওয়ার পরিবর্তন হতে পারে মহাষ্টমীর রাত থেকেই। যার ফলে বৃষ্টি হতে পারে বিজয়া দশমী পর্যন্ত। যদিও আবহাওয়া দফতর বলছে, কোন কারনে নিম্নচাপ গঠনে দেরী হলে বৃষ্টি হবে দশমী এবং লক্ষীপুজোর মাঝামাঝি। পুজোর সময় বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা ৬০% বলে জানিয়েছে হাওয়া অফিস।

পুজোর সময় ফের হানা দেবে নিম্নচাপ, জল যন্ত্রণা থেকে এখনই মুক্তি নেই বঙ্গবাসীর।

পুজোর সময় ফের হানা দেবে নিম্নচাপ, জল যন্ত্রণা থেকে এখনই মুক্তি নেই বঙ্গবাসীর।
পুজোর সময় ফের হানা দেবে নিম্নচাপ, জল যন্ত্রণা থেকে এখনই মুক্তি নেই বঙ্গবাসীর।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here