টলিউডে শুটিংয়ের ‘ওয়ার্ক ফ্রম হোম’ নিয়ে জোর তর্জা প্রযোজক এবং টেকনিশিয়ানদের।

টলিউডে শুটিংয়ের 'ওয়ার্ক ফ্রম হোম' নিয়ে জোর তর্জা প্রযোজক এবং টেকনিশিয়ানদের।
টলিউডে শুটিংয়ের 'ওয়ার্ক ফ্রম হোম' নিয়ে জোর তর্জা প্রযোজক এবং টেকনিশিয়ানদের।

নজরবন্দি ব্যুরো: পশ্চিমবঙ্গে করোনা বৃদ্ধি পাওয়ায় লকডাউন শুরু হয়েছে। এই লকডাউনের জেরে ১৬ মে থেকে বন্ধ রয়েছে টলিপাড়ার বিভিন্ন ধারাবাহিকের শ্যুটিং। কিন্তু এপিসোড ব্যাঙ্কিং থাকায় প্রাথমিক সমস্যায় পড়তে হয়নি টেলিকাস্টে।

আরও পড়ুনঃ  ‘শিশুর মত নিষ্পাপ শোভন’ চান বৈশাখীর একটা হিল্লে হোক! কিন্তু কিভাবে জানেন?

যদিও পরবর্তীকালে রাজ্যে ফের লকডাউন বৃদ্ধি পাওয়ায় অভিনেতা-অভিনেত্রীরা নিজেরাই বাড়ি থেকে শ্যুটিং করছেন নিজেদের ইকুইপমেন্ট দিয়ে। সমস্যার সূত্রপাত্র সেখানেই।

এর ফলে বাড়ি থেকে শ্যুটিং করে ধারাবাহিক করা এর বিরুদ্ধে সুর চড়িয়েছে ফেডারেশন অফ সিনে টেকনিশিয়ান অ্যান্ড ওয়ার্কার্স অফ ইস্টার্ন ইন্ডিয়া (FCTWEI)।এদের সদস্যদের মতে, শুট ফ্রম হোম করায় এপিসোড চলছে কিন্তু টেকনিসিয়ানরা টাকা পাচ্ছেন না, কারণ কাজ নেই। সেই কারণে বাড়ি থেকে শ্যুটিংয়ের পক্ষে সায় দেয়নি ফেডারেশন।

এবার আরও টলিউডে ওয়ার্ক ফ্রম হোম নিয়ে ফাটল বাড়ল প্রযোজক এবং টেকনিশিয়ানদের।রবিবার সকালে সাংবাদিক সম্মেলনে নিজেদের ক্ষোভের কথা জানিয়ে ধারাবাহিক নির্মাতাদের অভিযোগ, ‘টেকনিশিয়ানদের পাশে দাঁড়ানোর পরেও ফেডারেশনের তরফে সমালোচনা শুনে আহত টেলি-পাড়ার প্রথম সারির প্রযোজকরা।’

এর আগে ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন অব টেলিভিশন প্রোডিউসর্স (ডব্লিউএটিপি)-এর তরফ থেকে একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়। সেই সংগঠনের তরফে শৈবাল বন্দ্যোপাধ্যায়, সুশান্ত দাস, সানি ঘোষ রায়ের মতো প্রযোজকরা লকডাউন চলাকালীন ‘ওয়ার্ক ফ্রম হোম’ অর্থাৎ বাড়ি থেকে শিল্পীদের শ্যুট করে পাঠানো অংশ নিয়ে ধারাবাহিক চালিয়ে যাওয়ার কথা বলেছেন।

তবে ফেডারেশনের তরফ তার আগেই বাড়ি থেকে শ্যুট করা নিয়ে আপত্তি জানানো হয়। যদিও প্রযোজকদের বিজ্ঞপ্তিতে বলা, ‘বাড়ি থেকে শ্যুট করা নিয়ে কোনও বিধিনিষেধ জারি করা হয়নি। তাই এই পন্থা অবলম্বন করা হয়েছে।’

বিভিন্ন ধারাবাহিকের প্রযোজকদের কথায়, ‘সকলকেই তাঁদের প্রাপ্য টাকা দেওয়া হবে। আগের বারও টেকনিশিয়ানদের টানা ৩ মাসের খরচ দেওয়া হয়েছিল। বিমা করে দেওয়া হয়েছিল। সেই বিমা এখনও বৈধ। এ বারও তার অন্যথা হবে না। কাজ না করলেও বেতন দেওয়া হবে। কিন্তু তার জন্য তো টেলিভিশন শিল্পকে মাথা উঁচিয়ে দাঁড়িয়ে থাকতে হবে। ধারাবাহিক চললে তবেই লাভ হবে এই ইন্ডাস্ট্রির।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here