সর্বদলে হ্যাঁ, কংগ্রেসে না, মোদির বিকল্প মমতাই! বোঝাচ্ছে তৃণমূল

সর্বদলে হ্যাঁ, কংগ্রেসে না, মোদির বিকল্প মমতাই! বোঝাচ্ছে তৃণমূল
সর্বদলে হ্যাঁ, কংগ্রেসে না, মোদির বিকল্প মমতাই! বোঝাচ্ছে তৃণমূল

নজরবন্দি ব্যুরোঃ সোমবার থেকে শুরু হচ্ছে সংসদের শীতকালীন অধিবেশন। সেদিন সকালেই বিরোধী শিবিরের বৈঠক ডাকা হয়েছে কংগ্রেসের তরফে। রবিবার সর্বদলীয় বৈঠকে উপস্থিত থাকলেও সোমবার বিরোধী দলের বৈঠকে থাকছে না তৃণমূল কংগ্রেস। এমনটাই সূত্রের খবর। সর্বদলে হ্যাঁ, কংগ্রেসে না, মোদির বিকল্প মমতাই! এমনটাই ইঙ্গিত তৃণমূলের।

আরও পড়ুনঃ Tripura: সবেমাত্র শুরু, ফল ঘোষণার পর ট্যুইট ত্রিপুরা তৃণমূলের

সংবাদসংস্থা এএনআইকে দেওয়া বক্তব্যে তৃণমূলের লোকসভার দলনেতা সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, রাজ্যসভার বিরোধী দলনেতা মল্লিকাজুন খাড়্গের ডাকা বৈঠকে উপস্থিত থাকবে না তৃণমূল। যদিও এটা শুরু নয়, গত অধিবেশনেও একাধিক বিরোধী দলের বৈঠক এড়িয়ে গেছেন তৃণমূল নেতৃত্ব। আবার সংসদের বাইরে তৃণমূল নেতৃত্বদের মন্তব্য, বিজেপিকে রোখার ক্ষমতা কংগ্রেসের নেই। বরং তৃণমূলের রয়েছে।

বিরোধীদের ঐক্যবদ্ধ করে রাখতে শেষ প্রয়াসটুকু চালিয়ে যাচ্ছেন কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধী। দুই শিবিরের মধ্যে সেতুবন্ধনে আনন্দ শর্মার ওপর দায়িত্ব দিয়েছেন কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধী। কিন্তু তাতে কী ক্ষতে মলম লাগানো সম্ভব?

28mamata sonia

কারণ, চলতি মাসে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দিল্লি সফর ঘিরে কতগুলি প্রশ্ন দানা বাঁধতে শুরু করেছগিল। কংগ্রেস সভানেত্রীর সঙ্গে তৃণমূল সুপ্রিমো বৈঠক করবেন কী না সেই প্রশ্ন বারবার মাথাচাড়া দিয়েছিল। কিত্নু মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বক্তব্য, প্রতিবারেই কি দেখা করতে হবে? এখানেই সমাপ্ত নয়। একাধিক কংগ্রেস হেভিওয়েট নেতাদের দিল্লি সফরে যোগদান করিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বদলে গিয়েছে মেঘালয়ের রাজনৈতিক মানচিত্র। মুকুল সাংমার হাত ধরে বিরোধী আসনে জায়গা করে নিয়েছে তৃণমূল।

সর্বদলে হ্যাঁ, কংগ্রেসে না, মোদির বিকল্প মমতাই, বার্তা তৃণমূলের

সর্বদলে হ্যাঁ, কংগ্রেসে না, মোদির বিকল্প মমতাই, বার্তা তৃণমূলের
সর্বদলে হ্যাঁ, কংগ্রেসে না, মোদির বিকল্প মমতাই, বার্তা তৃণমূলের

তৃণমূল অন্দরের খবর, কংগ্রেস থেকে আসা বিভিন্ন রাজ্যের নেতারা চাইছেন না দিল্লির নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করুক তৃণমূল। মুলত আগামী বছর কয়েকটি রাজ্যের নির্বাচনের কথা মাথায় রেখে এই সিদ্ধান্ত নিতে হয়েছে শীর্ষ নেতৃত্বকে। তাই সংসদের শীতকালীন অধিবেশন এড়িয়ে যেতে চাইছেন তৃণমূল নেতৃত্ব।