শিশির-সুনীল সাংসদ পদ খারিজের দাবিতে এবার লোকসভায় আবেদন তৃণমূলের।

শিশির-সুনীল সাংসদ পদ খারিজের দাবিতে এবার লোকসভায় আবেদন তৃণমূলের।
শিশির-সুনীল সাংসদ পদ খারিজের দাবিতে এবার লোকসভায় আবেদন তৃণমূলের।

নজরবন্দি ব্যুরোঃ শিশির-সুনীল সাংসদ পদ খারিজের দাবিতে এবার লোকসভায় আবেদন তৃণমূলের। যে অধিকারী বাড়ির চারপাশে ঘাস্ফুল ফুটে থাকত সেখানেই আজ ফুটেছে পদ্ম। আর অধিকারী বাড়ির সদস্যের সঙ্গে তৃণমূলের সম্পর্ক দাঁড়িয়েছে আদায় কাঁচকলায়। ভোটের আগেই তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেন অধিকারী বাড়ির সবথেকে প্রবীণ সদস্য শিশির অধিকারী।

আরও পড়ুনঃ ক্রিকেটকে জনপ্রিয় করতে আগামী বিশ্বকাপ ১৪ দল নিয়ে করার ভাবনা আইসিসির।

একই সময়ে তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেন আরেক সাংসদ সুনীল মণ্ডল। এদিকে দল ছাড়লেও নিজেদের সাংসদ পদ ছাড়েননি দুজনেই। তারপর থেকেই দুজনের পদ ছাড়ার দাবি নিয়ে সোচ্চার হয়ে ওঠে তৃণমূল কংগ্রেস। আর এবার এক ধাপ এগিয়ে লোকসভার অধ্যক্ষের কাছে আবেদন জানালো তৃণমূল কংগ্রেস। আজ একথা জানিয়ে তৃণমূল মুখপাত্র কুনাল ঘোষ বলেন “তৃণমূল কংগ্রেসের প্রতীকে সাংসদ হয়ে অন্য দল করছেন সুনীল মণ্ডল ও শিশির অধিকারী। অবিলম্বে তাঁদের সাংসদ পদ খারিজ করা হোক।

এ নিয়ে লোকসভার দলনেতা সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায় স্পিকারকে চিঠি দিয়েছিলেন আমরা মনে করি, ওঁদের লোকসভার সাংসদ হিসেবে থাকার বৈধতা নেই। কারণ, তাঁরা দলত্যাগ করেছেন। জনগণকে ওঁরা পরিষেবা দিচ্ছেন না। কাঁথিতে সুস্থ-সক্ষম সাংসদ দরকার। রাজ্যসভায় ইস্তফার পর বিধানসভা ভোটে পরাজয়ের পর তড়িঘড়ি স্বপন দাশগুপ্তকে ফের রাজ্যসভায় যদি ফেরানো যায়, তাহলে শিশির-সুনীলের সাংসদ পদ খারিজ নিয়ে কেন পদক্ষেপ করছে না? আমাদের পিটিশনে কেন সাড়া দিচ্ছেন না স্পিকার?”

শিশির-সুনীল সাংসদ পদ খারিজের দাবিতে এবার লোকসভায় আবেদন তৃণমূলের। একইসঙ্গে তিনি অভিযোগ করেন রাষ্ট্রপতির অফিসকে ব্যবহার করে ফের BJP নেতা স্বপন দাশগুপ্তকে ফের রাজ্যসভার সাংসদ করা হয়েছে। এই নিয়ে তিনি বলেন “করোনা পরিস্থিতির মধ্যেও রাষ্ট্রপতির অফিসকে ব্যবহার করে স্বপন দাশগুপ্তকে ফের রাজ্যসভায় মনোনীত করা হয়েছে।” তৃণমূলের অনুরোধ নিয়ে এখন অধ্যক্ষ কি সিদ্ধান্ত নেন সেদিকেই তাকিয়ে সবাই।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here