শ্রম আইন নিয়ে মমতার দ্বারস্থ বাম-কংগ্রেস শ্রমিক সংগঠন, ফের কেন্দ্রের উল্টো পথে রাজ্য

শ্রম আইন নিয়ে মমতার দ্বারস্থ বাম-কংগ্রেস শ্রমিক সংগঠন, ফের কেন্দ্রের উল্টো পথে রাজ্য
শ্রম আইন নিয়ে মমতার দ্বারস্থ বাম-কংগ্রেস শ্রমিক সংগঠন, ফের কেন্দ্রের উল্টো পথে রাজ্য

নজরবন্দি ব্যুরোঃ শ্রম আইন নিয়ে মমতার দ্বারস্থ বাম-কংগ্রেস শ্রমিক সংগঠন, কেন্দ্র প্রস্তাবিত নয়া  শ্রম বিধি  মানতে এবং এই রাজ্যে লাগু করতে নারাজ তারা। সঙ্ঘের শ্রমিক সংগঠন ছাড়া রাজ্যের বাকি ৮ সংগঠন ইতিমধ্যেই মুখ্যমন্ত্রীর দ্বারস্থ হয়েছিল এই ইস্যুতে।

আরও পড়ুনঃ নন্দীগ্রামের ভোট সংক্রান্ত নথি, ভিডিয়ো সংরক্ষণে কমিশনকে নির্দেশ হাইকোর্টের

এবার তাদের পাশে দাঁড়িয়ে ফের কেন্দ্রের সঙ্গে সংঘাতের পথে হাঁটছে মমতা সরকার। কেন্দ্রের চালু করা নয়া শ্রম আইন নিয়ে মে মাস নাগাদই নিজের মতামত দিয়েছিলেন তৃণমূল সুপ্রিমো। সাফ জানিয়েছিলেন, আগের শ্রম আইনই মানবে বাংলা। বাংলার মুখ্যমন্ত্রী অভিযোগ ছিল শ্রম আইনের বিধিমালা বদলে শ্রমিকের কাজের নিরাপত্তা ভঙ্গ করা করছে কেন্দ্র। বাংলা মানবে না সেই নিয়মাবলী।

শ্রম আইনে কেন্দ্র একাধিক বদল করেছে। আর তার মধ্যে বেশ কিছু নিয়মে আপত্তি জানিয়েই মুখ্যমন্ত্রীর দ্বারস্থ হয়েছিল রাজ্যের ৮ শ্রমিক সংগঠন। তার মধ্যে পড়ে কেন্দ্র প্রস্তাবিত কাজের সময়, ধর্মঘট বিষয়ক নীতি বা ট্রেড ইউনিয়নের নয়া নিয়ম। বিলে কেন্দ্রের তরফে জানানো হয়েছিল তুলে দেওয়া হবে ৮ ঘন্টা কাজের নিয়ম।

শ্রম আইন নিয়ে মমতার দ্বারস্থ বাম-কংগ্রেস শ্রমিক সংগঠন, আবেদনে সাড়া মমতার। 

শ্রম আইন নিয়ে মমতার দ্বারস্থ বাম-কংগ্রেস শ্রমিক সংগঠন, ফের কেন্দ্রের উল্টো পথে রাজ্য
শ্রম আইন নিয়ে মমতার দ্বারস্থ বাম-কংগ্রেস শ্রমিক সংগঠন, ফের কেন্দ্রের উল্টো পথে রাজ্য

তার বদলে ওভারটাইম ছাড়াই দিনে ১০-১২ ঘন্টা কাজ করতে হবে শ্রমিকদের। থাকবে না স্থায়ী চাকরির বিষয়। ট্রেড ইউনিয়ন গঠনেও বদল এনেছে শ্রম আইন। আগে যেখানে ৭ জন হলেও করা যেতো ইউনিয়ন এখন সেখানে মিনিমাম ১০০ জন শ্রমিক বা মোট কর্মী সংখ্যার ১০ শতাংশ হতেই হবে। নচেত গড়া যাবেনা সংগঠন।

নিয়মের বদল আনা হয়েছে ধর্মঘটের ক্ষেত্রেও। আগে ১৪ দিনের নোটিশ দিয়ে ধর্মঘট হত। এখন প্রণিত নতুন নিয়মে যতদিন আলোচনা চলবে ততদিন ধর্মঘট করতে পারবেন না শ্রমিকরা। এই নয়া নিয়মাবলীর বিরোধীতা করে সঙ্গে নিজেদের প্রস্তাবিত নিয়মাবলীর খসড়া পেশ করেছিল সংগঠনগুলি। সেই আবেদনে সাড়া দিয়েছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী।  কৃষি আইনের পরে ফের শ্রম আইনের বিরুদ্ধে কেন্দ্রের সঙ্গে সংঘাতের পথে হাঁটছে মমতা সরকার।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here