এ মাসেও খুলছেনা স্কুল। জানিয়ে দিলেন শিক্ষামন্ত্রী।

এ মাসেও খুলছেনা স্কুল। জানিয়ে দিলেন শিক্ষামন্ত্রী।

 নজরবন্দি ব্যুরোঃ এ মাসেও খুলছেনা স্কুল। জানিয়ে দিলেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। সম্পূর্ণ লকডাউন নিয়ে কেন্দ্র-রাজ্য সংঘাত আগেই হয়েছে। এবার স্কুল খোলা নিয়ে তৈরি হল দু’পক্ষের টানাপোড়েন। চতুর্থ দফায় আনলকের গাইডলাইনে আগামী ২১ সেপ্টেম্বর থেকে নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত পড়ুয়াদের শর্তসাপেক্ষে স্কুল যাওয়ার ক্ষেত্রে সায় দিয়েছিল কেন্দ্র। আনলক ৪ এ কেন্দ্র জানিয়েছিল নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্রছাত্রীরা স্কুলে যেতে পারবে। ২১ তারিখ থেকে।

আরও পড়ুনঃ মমতার দলে যোগ দিলেন আইনুল রেজাউলরা। শক্তিবৃদ্ধি তৃণমূলের।

অন্যদিকে যে হারে সংক্রমন বাড়ছে প্রতিদিন তাতে ছাত্র ছাত্রীদের ঝুঁকির মুখে ফেলে দেওয়ার একেবারেই পক্ষপাতি নয় রাজ্য সরকার। তাই এই পরিস্থিতিতে রাজ্যে সেপ্টেম্বরে স্কুল খোলা সম্ভব নয় বলে  স্পষ্ট  জানিয়ে দিলেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। রাজ্যের আগের সিদ্ধান্তের কথা মনে করিয়ে দিয়ে আজ পার্থবাবু জানান রাজ্য সরকার ৩০ সেপ্টেম্বরের পর বিষয়টি পুনর্বিবেচনা করবে।

অন্যদিকে, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের বক্তব্যে শিলমোহর দিয়ে কেন্দ্রীয় শিক্ষা মন্ত্রক জানিয়ে দিয়েছে, ২১ সেপ্টেম্বর থেকে আংশিক ভাবে স্কুল খোলা হবে। তবে তা শুধু নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণির পড়ুয়াদের জন্যে। শিক্ষক ও অশিক্ষক কর্মীরা আগামী ২১ সেপ্টেম্বর থেকে স্কুলে যাবেন। অনলাইনে পড়ানো-র জন্য তাঁদের স্কুলে যেতে অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

যদিও শিক্ষক ও অশিক্ষক কর্মীদের পঞ্চাশ শতাংশ একসাথে স্কুলে থাকতে পারবেন। ২১ সেপ্টেম্বর থেকে কনটেনমেন্ট জোনের বাইরে অবস্থিত স্কুলগুলিতে নবম-দ্বাদশ পর্যন্ত পড়ুয়া রা স্কুলে আসতে পারবেন। যদিও তারা স্কুলে আসবেন কিনা তা তাঁদের সিদ্ধান্তের ওপরেই ছেড়েছে শিক্ষা মন্ত্রক।

পাশাপাশি কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক জানিয়েছে কনটেইনমেন্ট জোনের বাইরে যে সব স্কুল, কলেজ খুলবে তাদের একাধিক বিধিনিষেধ কঠোর ভাবে পালন করতে হবে। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক খুব দ্রুত একাধিক বিধি নিষেধ জারি করবে। যার পোশাকি নাম স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিওর। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলি তা মেনে চলছে কিনা সে ব্যাপারে নজর রাখতে হবে রাজ্য সরকার তথা স্থানীয় প্রশাসনকে।

এ মাসেও খুলছেনা স্কুল। এই পরিপ্রেক্ষিতেই রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী জানিয়ে দিলেন এমাসে স্কুল খোলা সম্ভব নয়। তিনি বলেন, “করোনা হু হু করে বাড়ছে। এই পরিস্থিতিতে কোনভাবেই এখন স্কুল খোলার কথা ভাবা যাবে না।”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x