দেশ জুড়ে কৃষক আন্দোলনের সুর বাঁধুক মমতা! রাকেশের আর্জিতে সম্মতি দিদির

দেশ জুড়ে কৃষক আন্দোলনের সুর বাঁধুক মমতা! রাকেশের আর্জিতে সম্মতি দিদির
দেশ জুড়ে কৃষক আন্দোলনের সুর বাঁধুক মমতা! রাকেশের আর্জিতে সম্মতি দিদির

নজরবন্দি ব্যুরোঃ দেশ জুড়ে কৃষক আন্দোলনের সুর বাঁধুক মমতা! মমতার সঙ্গে সাক্ষাতে বসলেন কৃষক নেতা রাকেশ টিকাইত। দিল্লী দখলের পথ সুগম করতে কি এবার কৃষকদের পাশে পেতে চলেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধায়? কদিন ধরেই এই প্রশ্ন ঘুরছিলোই কদিন ধরে। আর আজ বৈঠকের পর কোথাও গিয়ে সেই ধারণা দৃঢ় হলো। মুখ্যমন্ত্রীর কাছে এসে জয়ের শুভেচ্ছা বার্তা দেওয়ার পাশাপাশি রাকেশ আর্জি জানিয়েছেন দেশের সব কৃষি আন্দোলন সমর্থনকারী মুখ্যমন্ত্রীদের একজোট করুন দিদি। ঐক্যের বার্তা পৌঁছে যাক দিল্লিতে।

আরও পড়ুনঃ ভোট উত্তরপ্রদেশে, কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপির দলভারী করলেন ‘রাহুল ঘনিষ্ঠ’ জিতিন প্রসাদ

বৈঠক শেষের খবর  রাকেশের আবেদনে সাড়া দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কথা দিয়েছেন পাশে থাকবেন তিনি। বৈঠকের পর নবান্নতে দাঁড়িয়ে মুখ্যমন্ত্রী নিজে জানিয়েছেন, ‘কেন্দ্র কৃষকদের দাবি না মানা পর্যন্ত আমরা তাঁদের সঙ্গে আছি।’ সঙ্গে তিনি জানিয়েছেন রাকেশের আর্জি মতোই দেশের করোনা পরিস্থিতি একটু নিয়ন্ত্রণে এলেই সমর্থনকারী মুখ্যমন্ত্রিদের সঙ্গে কথা বলবেন নিজেই।

আজ প্রায় সাত মাস পেরিয়ে জারি রয়েছে কৃষক আন্দোলন। প্রথম থেকেই কেন্দ্রের তিন কৃষি বিলের বিরুদ্ধে কৃষকদের আন্দোলনকে অন্যান্য অবিজেপীয় রাজ্যর মতই ঢালাও সমর্থন দিয়েছিলেন মমতা। কৃষকরাও হতাশ করেনি। ভোটের আগে বিজেপির বিরুদ্ধে ও মমতার হয়ে প্রচার করে গিয়েছেন তারা। মমতার বিপুল জয়ের পর আতসবাজি ফাটানো থেকে মিষ্টি বিতরণ কিছুই বাদ রাখেননি।

আজ রাকেশ টিকায়তের সঙ্গে বৈঠকের পর আগের সুর বজায় রেখেই মমতা কটাক্ষ করেছেন কেন্দ্রের পাশ হওয়ায় কৃষি আইন বিল। নবান্নতে বৈঠক শেষে সাংবাদিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী জানান  ”এমন সব আইন পাশ করিয়েছে যাতে আজ কৃষি-শিল্প সব সমস্যায়।’ তিনি আবেদন করেন, ‘ কৃষি আইন বাতিল করুক কেন্দ্র।’ সঙ্গে প্রশ্ন তুলেছেন আগের ম্পতোই,  আইন পাশ করানোর আগে কৃষকদের সঙ্গে কেন কথা বলেনি? জোর করে পাশ করিয়েছে। এটা সাত মাসের আন্দোলন।

মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, আর খালি পাঞ্জাব-হরিয়ানার বিষয় নয়, এটা গোটা দেশের বিষয়। সব রাজ্যকে একত্রিত করে আন্দোলন করতে হবে। আমি মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে কথা বলব। প্রসঙ্গে পেট্রোল ডিজেলের মূল্যবৃদ্ধির প্রসঙ্গ তুলে বলেন, দেশে রোজ রোজ বাড়ছে পেট্রোল ডিজেলের দাম, এই পরিস্থিতিতে কৃষকরা কাজ করবেন কিভাবে।

দেশ জুড়ে কৃষক আন্দোলনের সুর বাঁধুক মমতা! বাংলার মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের পর রাকেশ টিকায়েত জানিয়েছেন, “বিজেপিকে ভোট দেবেন না। বিজেপি দেশের ক্ষতি হয়েছে। মমতা দিদি বাংলাকে বাঁচিয়ে নিয়েছেন। এবার দেশ বাঁচানোর পালা। বিজেপি থাকলে দেশ থাকবে না। বিজেপি না থাকলে দেশ বাঁচবে।” সঙ্গে রাকেশ চাইছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এমন কিছু পদক্ষেপ গ্রহন করুন কৃষকদের জন্য যাতে তা সারা দেশের রল মডেল হয়ে থাকে। তবে রাকেশের সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী মমতার এই বৈঠককে অনেকেই দিল্লির পথে সমর্থন নিয়ে আরও একাধাপ এগিয়ে যাওয়ার ইঙ্গীত বলেই মনে করছেন অনেকে।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here