একসঙ্গে পথে চলা উৎসব থেকে অসুখ-এ…প্রিয় ঋতুকে জন্মদিনে খোলা চিঠি বুম্বার

একসঙ্গে পথে চলা উৎসব থেকে অসুখ-এ...প্রিয় ঋতুকে জন্মদিনে খোলা চিঠি বুম্বার
একসঙ্গে পথে চলা উৎসব থেকে অসুখ-এ...প্রিয় ঋতুকে জন্মদিনে খোলা চিঠি বুম্বার

নজরবন্দি ব্যুরোঃ একসঙ্গে পথে চলা উৎসব থেকে অসুখ-এ…দুজনের কাজ, জুটি অন্য মাত্রায় নিয়ে গিয়েছে বাংলা চলচ্চিত্রকে। কাজ আর তা থেকে অসম্ভব ভালো সম্পর্ক। আজ একজন নেই, আর তাঁরই জন্মদিনে আবেগে ভেসে খোলা চিঠি লিখেছেন অন্যজন।

আরও পড়ুনঃ আজই বিপ্লব-ক্যাবিনেটে যাবেন ভগবান, তার আগেই জাল সার্টিফিকেটের অভিযোগ তুলছে তৃণমূল

বছর খানেক হল নেই ঋতুপর্ণ ঘোষ। মাত্র ৪৯ বছরে এক গুচ্ছ বিজ্ঞাপনের অসামান্য ক্যাচ লাইন,  অসাধারণ সব কাজ, দাগ কেটে যাওয়া সংলাপ আর ছড়িয়ে রাখা ছবি এক পাশে রেখে লেপ মুড়ি দিয়ে এসি চালিয়ে অন্য জগতে পাড়ি দিয়েছিলেন তিনি। কেটে গিয়েছে বেশ কয়েকটা বছর।

একসঙ্গে পথে চলা উৎসব থেকে অসুখ-এ...প্রিয় ঋতুকে জন্মদিনে খোলা চিঠি বুম্বার
একসঙ্গে পথে চলা উৎসব থেকে অসুখ-এ…প্রিয় ঋতুকে জন্মদিনে খোলা চিঠি বুম্বার

অথচ আজও কোন বাঙালির সিনেমার আড্ডা শেষ হয়না ঋতু’র তৈরি উৎসব বা দোসর ছাড়া। উনিশে এপ্রিল দেখে বহু বহু মেয়ে খুঁজে পায় নিজের কথা। বাড়িওয়ালি’র  প্রতিটা দৃশ্য আজও স্পষ্ট মনে রেখে বহু মানুষ। সেই পরিচালকের আজ জন্মদিন।

একসঙ্গে পথে চলা উৎসব থেকে অসুখ-এ...প্রিয় ঋতুকে জন্মদিনে খোলা চিঠি বুম্বার
একসঙ্গে পথে চলা উৎসব থেকে অসুখ-এ…প্রিয় ঋতুকে জন্মদিনে খোলা চিঠি বুম্বার

আর সময়ের বহু আগে হাত ছেড়ে অন্য় জগতে যাওয়া বন্ধু এবং ‘ফ্রেন্ড, ফিলোজফার অ্যান্ড গাইড’কে জন্মদিনে খোলা চিঠি লিখেছেন আজ প্রিয় বুম্বা, প্রসেনজিত চট্টোপাধ্যায়। উনিশে এপ্রিল দিয়ে কাজ শুরু হয়েছিল বুম্বা- ঋতুর। ব্যাস তার পর থেকে দুজনের জুটি একের পর এক ‘উৎসব’, ‘অসুখ ‘, ‘চোখের বালি, ‘নৌকা ডুবি’, ‘খেলা’ ‘সব চরিত্র কাল্পনিক’ এর মতো অসম্ভব ছবি উপহার দিয়েছে চলচ্চিত্র জগতকে।

সেই ঋতু নেই আজ। জন্মদিনে আবেগে খোলা চিঠি লিখেছেন প্রিয় বুম্বা। প্রসেনজিতের ফেসবুকে পোস্ট করা ভিডিওতে ধীরে ধীরে ফুটে উঠেছে বন্ধুকে বলা কথা, জিজ্ঞাসা করেছেন আজকের মেনুতে কী থাকছে…।

“প্রিয় ঋতু
তুই তো জানিসই সেভাবে কাউকে চিঠি লেখা হয়ে ওঠেনি আমার। তোর মতন ভাল লিখতেও পারি না। তবু আজকের দিনে চেষ্টা করলাম একটু। ভুল হলে রাগ করিস না কিন্তু!
তোর সৃজনশীলতার রঙে তুই অনন্যভাবে রাঙিয়েছিলি চলচ্চিত্র জগৎকে এবং অবশ্যই তোর সমস্ত সৃষ্টিকে। আর আমার জীবনে তোর যে অবদান তা কয়েকটা শব্দে বোঝানো সম্ভব নয়… কিন্তু বন্ধু, তুই তো জানিসই, বুঝিস তুই।আজকের মেনুটা কী? আলু-পোস্ত থাকছে তো? আর নতুন স্ক্রিপ্টটা কতদূর? শেষ হলেই শোনাস কিন্তু! অপেক্ষায় থাকব। ভাল থাকিস। শুভ জন্মদিন।” শেষে লেখা, ইতি বুম্বা।

একসঙ্গে পথে চলা উৎসব থেকে অসুখ-এ...প্রিয় ঋতুকে জন্মদিনে খোলা চিঠি বুম্বার
একসঙ্গে পথে চলা উৎসব থেকে অসুখ-এ…প্রিয় ঋতুকে জন্মদিনে খোলা চিঠি বুম্বার

প্রসেনজিতের এই চিঠি, আবেগ প্রশ্ন, ছড়িয়ে পড়েছে ব্যাপক ভাবে। সকলেই আজ স্মরণ করছেন পরিচালক ঋতুপর্ণকে, অভিনেতা ঋতুপর্ণকে এবং বন্ধু ঋতুপর্ণকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here