পেগাসাস কান্ডে এবার মোদি-অমিত শাহ কে এক হাত নিলেন RSS নেতা প্রবীণ তোগাড়িয়া

পেগাসাস কান্ডে এবার মোদি-অমিত শাহ কে এক হাত নিলেন RSS নেতা প্রবীণ তোগাড়িয়া
পেগাসাস কান্ডে এবার মোদি-অমিত শাহ কে এক হাত নিলেন RSS নেতা প্রবীণ তোগাড়িয়া

নজরবন্দি ব্যুরোঃ পেগাসাস কান্ডে এবার মোদি-অমিত শাহ কে এক হাত নিলেন RSS নেতা প্রবীণ তোগাড়িয়া। সম্প্রতি বিজেপি সাংসদ সুব্রহ্মমণ্যম স্বামী ভারতীয়দের ফোনে আড়িপাতার কান্ড সামনে এনেছেন। তারপর থেকেই দেশ উত্তাল। রাজনীতি সরগরম। সংসদ লন্ডভন্ড। তৃণমূল, কংগ্রেস, ডিএমকে, বাম-সহ অন্যান্য দলগুলি কাণ্ডে তদন্তের দাবি জানিয়েছে।

আরও পড়ুনঃ পেগাসাস বিরোধীতায় কংগ্রেসের টুইটার হ্যান্ডেলে অভিষেক, সখ্যতা বাড়ছে দুই দলের

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহর ইস্তফা দাবি করেছে তৃণমূল। সংসদে প্রধানমন্ত্রীর বিবৃতি দাবি করেছে বিরোধী দলগুলি।ইজরায়েলি সফটওয়্যার পেগাসাস নিয়ে গোটা দেশ যখন উত্তাল, তখন আন্তরাষ্ট্রীয় বিশ্ব হিন্দু পরিষদের সভাপতি প্রবীণ তোগাড়িয়া একহাত নিলেন মোদি এবং অমিত সাহা কে।

পেগাসাস কান্ডে এবার মোদি-অমিত শাহ কে এক হাত নিলেন RSS নেতা প্রবীণ তোগাড়িয়া
পেগাসাস কান্ডে এবার মোদি-অমিত শাহ কে এক হাত নিলেন RSS নেতা প্রবীণ তোগাড়িয়া

এক বিদেশি সংবাদমাধ্যমকে সাক্ষাত্কার দিতে গিয়ে তোগাড়িয়া বলেন, “ওরা যখন ক্ষমতায় ছিল না তখন আমাদের বড্ড পছন্দ করতেন। ক্ষমতায় এসে আমাদের আর দেখতে পারেন না। তবে আমাদের কথা শুনতে খুব পছন্দ করেন বোঝা যাচ্ছে এই কারণেই তো ফোনে আঁড়ি পাতছেন। তবে দেশের কোনো রাজনৈতিক দলের নেতা অথবা দেশভক্ত কোন সাধারণ নাগরিকের ফোনে আড়ি না পেতে সরকার যদি পাকিস্তানি এজেন্টের ফোনের ঠিকঠাকভাবে আরিফ আত্ম তাহলে পূর্ণমান মতো ঘটনা ঘটতো না”।

RSS নেতা প্রবীণ তোগাড়িয়া
RSS নেতা প্রবীণ তোগাড়িয়া

তিনি আরো বলেন, “নরেন্দ্র মোদী এবং অমিত শাহের সঙ্গে আমার যে কথা হয়েছে তা হাজার ঘণ্টা পার হয়ে যাবে এসবের পরেও এখন তাদের লুকিয়ে আমার কথা শুনতে হচ্ছে বিষয়টি বোধগম্য হচ্ছে না”।

মোদি-অমিত শাহ কে এক হাত নিলেন RSS নেতা প্রবীণ তোগাড়িয়া
মোদি-অমিত শাহ কে এক হাত নিলেন RSS নেতা প্রবীণ তোগাড়িয়া

পেগাসাস কান্ডে এবার মোদি-অমিত শাহ কে এক হাত নিলেন RSS নেতা প্রবীণ তোগাড়িয়া

প্রবীণ তোগাড়িয়ার সঙ্গে নরেন্দ্র মোদির সম্পর্ক এখন যে ভালো নয় তা কারও অজানা নয়। অথচ এক সময় নরেন্দ্র মোদির বিশেষ বন্ধু ছিলেন এই প্রবীণ তোগাড়িয়া। কিন্তু বিশ্ব হিন্দু পরিষদের শীর্ষ পদ থেকে সরানোর পরই অবনতি ঘটে সম্পর্ক.। এর আগেও বেশ কয়েক বার মোদির বিরুদ্ধে মুখ খুলেছিলেন তোগাড়িয়া।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here