ময়দানে রাজনীতির রঙ? লাল-হলুদের সমস্যা নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে কটাক্ষ দিলীপের

ময়দানে রাজনীতির রঙ? লাল-হলুদের সমস্যা নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে কটাক্ষ দিলীপের
ময়দানে রাজনীতির রঙ? লাল-হলুদের সমস্যা নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে কটাক্ষ দিলীপের

নজরবন্দি ব্যুরো: ময়দানে রাজনীতির রঙ? ইস্টবেঙ্গল ক্লাব প্রশাসন ও ইনভেস্টরদের সমস্যায় এবার লাগল রাজনৈতিক রঙ। বেশ কিছুদিন ধরেই ময়দান তোলপাড় ইস্টবেঙ্গল ক্লাবের সঙ্গে শ্রী সিমেন্ট এর চুক্তির বিভিন্ন দিক নিয়ে। ক্লাব  এবং ইনভেস্টরদের চুক্তিপত্র সই করা নিয়ে এবছর লাল-হলুদ ক্লাবে ডামাডোল অবস্থা।

আরও পড়ুনঃ নেত্রী ডাক দিয়েছেন দেশ বিজয়ের, লক্ষীবারে দ্দিল্লিতে বৈঠক অভিষেকের

বিভিন্ন সমস্যার মধ্যেও অনেকবার মিটিং হওয়াতেও সমস্যার সমাধান হয়নি এখনও । এর মধ্যেই আবার গতকাল সমর্থকদের মধ্যে গন্ডগোল হওয়াতে ক্লাব সমস্যা এক অন্য মাত্রা পেয়েছে। আগামী দিনে ইস্টবেঙ্গল ক্লাব কোন পথে এগোবে তা যখন কেউ বলতে পারছেন না, তখনই সুদূর দিল্লীতে বসে ক্লাব নিয়েই মুখ্যমন্ত্রী কে কটাক্ষ করতে ছাড়লেন না বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ।

লাল-হলুদের সমস্যা নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে কটাক্ষ দিলীপের
লাল-হলুদের সমস্যা নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে কটাক্ষ দিলীপের

মুখ্যমন্ত্রীকে শুধু কটাক্ষই নয় ক্লাবের এই অবস্থার জন্য তিনি এক প্রকার দায়ী করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কে। তিনি টুইট করে জানান লাল-হলুদ সর্মথকরা মুখ্যমন্ত্রীর ওপর ভরসা করেই ডুবেছে। ক্লাবের এই দুর্দশার জন্য দায়ী মুখ্যমন্ত্রী। দিলীপবাবু আরো বলেন গতবছর শ্রী সিমেন্ট নামে এক কোম্পানি কে নিয়ে গিয়ে আইএসএল খেলানোর ব্যবস্থা করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী।

ময়দানে রাজনীতির রঙ? লাল-হলুদের সমস্যা নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে কটাক্ষ দিলীপের

আর তিনি সেটা করেছিলেন নবান্নে বস। তার কারণ সে সময় ছিল নির্বাচন আর সে কথা মাথায় রেখেই কোম্পানির সঙ্গে চুক্তি করিয়ে দিয়েছিলেন। কিন্তু সেই চুক্তি যে এই মুহূর্তে ক্লাবের মৃত্যু পরোয়ানায় পরিণত হয়েছে সেটা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। মুখ্যমন্ত্রীর দিকে আঙ্গুল তুলে দিলীপবাবু আরো বলেছেন, লাল-হলুদ ক্লাবের কোটি কোটি সমর্থকদের আবেগ নিয়ে খেলেছেন মুখ্যমন্ত্রী।

ময়দানে রাজনীতির রঙ?
ময়দানে রাজনীতির রঙ?

কারণ এই চুক্তিতে স্বাক্ষর করলে ইস্টবেঙ্গল ক্লাব  আর ক্লাব থাকবে না, হয়ে যাবে একটি কোম্পানি আর সেই জন্যই সমর্থক সদস্যদের ক্লাবে ঢুকতে গেলে নিতে হবে অনুমতি । মুখ্যমন্ত্রী রাজনৈতিক স্বার্থ চরিতার্থ করতেই ওই কোম্পানিকে নিয়ে এসে ক্লাবের সঙ্গে যুক্ত করেছেন। দীলিপবাবুর এই বক্তব্যের পর ময়দানে জল্পনা শুরু হয়েছে, তবে কি এবার ইস্টবেঙ্গলের এই সমস্যা নিয়ে বাংলার ময়দানে লেগে গেল রাজনৈতিক রঙ?

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here