শহরে রাস্তার নাম পরিবর্তনে গাফিলতি, স্বীকার করলো কলকাতা পুরসভা

শহরে রাস্তার নাম পরিবর্তনে গাফিলতি, স্বীকার করলো কলকাতা পুরসভা
শহরে রাস্তার নাম পরিবর্তনে গাফিলতি, স্বীকার করলো কলকাতা পুরসভা

নজরবন্দি ব্যুরো: শহরে রাস্তার নাম পরিবর্তনে গাফিলতি, রাস্তার নতুন নামকরণ এবং তা কার্যকর করা নিয়ে বিভিন্ন দফতরের মধ্যে সমন্বয়ের অভাব। এবার এই বিষয়টি স্বীকার করে নিল কলকাতা পুরসভা। এই অভাব কাটানো যায় কিভাবের, আপাতত তা নিয়েই চিন্তাভাবনা চলছে বলে খবর।

আরও পড়ুনঃ সমীক্ষা করেছেন খোদ মহারাজা প্রদ্যোত! ত্রিপুরার যুদ্ধে BJP’র থেকে বহু এগিয়ে তৃণমূল

এ বিষয়ে রবিবার ফিরহাদ হাকিম জানিয়েছেন, ‘‘পুরসভার রোড রিনেমিং কমিটি ও ইঞ্জিনিয়ারিং দফতরের মধ্যে একটা সমন্বয় তৈরি করতে হবে। সেখানে একটা ফাঁক থেকে গিয়েছে। ফলে এখন থেকে যখনই কোনও রাস্তার নতুন নামকরণ হবে, নির্দেশিকা জারি করে সেই সংক্রান্ত তথ্য পুর কমিশনার জানিয়ে দেবেন দফতরগুলিকে।’’

শহরে রাস্তার নাম পরিবর্তনে গাফিলতি, যেমন বালিগঞ্জের ম্যান্ডেভিল গার্ডেন্সের নাম ‘কথাসাহিত্যিক সুনীল গঙ্গোপাধ্যায় সরণি’ হওয়া নিয়ে আগে যে বিভ্রান্তি তৈরি হয়েছে, রবিবারই সেই খবর প্রকাশিত হয়ে গেছে। ২০১৯ সালে ম্যান্ডেভিল গার্ডেন্সের নতুন নাম প্রয়াত কথাসাহিত্যিকের নামে হলেও তা বাস্তবায়িত হয়নি। এমনকি, সেখানে সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়ের নামে কোনও ফলক বা সাইনেজও বসেনি। খবরটি প্রকাশ্যে আসার পরেই পুর কর্তৃপক্ষ এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে জানা গিয়েছে।

পুরসভার রাস্তা নামকরণ কমিটি রাস্তার নতুন নামের বিষয়টি বিবেচনার ভিত্তিতে সিদ্ধান্ত নেয়। অনেক সময়ে কোনও এলাকা থেকে আবেদনের ভিত্তিতে বা কখনও কোনও এলাকার সঙ্গে বিশিষ্ট ব্যক্তির সম্পর্কের ভিত্তিতে পুরসভা নিজেই নামকরণের সিদ্ধান্ত নেয়। তবে পুর প্রশাসন সূত্রের খবর, রাস্তা নামকরণ কমিটির বৈঠকের আয়োজনের দায়িত্বে থাকে পুর সচিবালয় দফতর।

অন্যদিকে সচিবালয় সূত্রের খবর, রাস্তার নতুন নাম আনুষ্ঠানিক ভাবে গৃহীত হওয়া মাত্র অর্থাৎ, পুরসভার মাসিক অধিবেশনে পাশ হওয়ার পরে সেই সংক্রান্ত বিজ্ঞাপন সংবাদপত্রে দেওয়া হয়। তার পরে সেই তথ্য পুরসভার সিভিল ও অ্যাসেসমেন্ট দফতরকে জানিয়ে দেওয়া হয়। কিন্তু সেই সিদ্ধান্ত কার্যকর হল কি না, সেটি নিয়ে ফলো আপের ঘাটতি থাকে। সেই ঘাটতি মেটাতেই পুর প্রশাসকের এই সিদ্ধান্ত।

পুর আধিকারিকদের একাংশ জানাচ্ছেন, গত আট বছর আগে পুরসভা ঘোষণা করেছিলো, এখন থেকে রাস্তা, সেতু, উড়ালপুল-সহ কোনও কিছুর নতুন নামকরণ হলে, কেন সেই নাম হল, তাঁর সঙ্গে কলকাতার কি যোগসূত্র, এমন সমস্ত তথ্য নামফলকে উল্লেখ করা থাকবে। এবং এরকম ১৭টি নামফলক সেই সময়ে তৈরি করা হয়েছিল। যার উদ্বোধন করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্য্যোপাধ্যায়। কিন্তু তার পরে নামফলক তৈরি হয়েছে কি না, হলেও সেগুলি কোথায়, সেই প্রশ্ন তুলেছেন পুর আধিকারিকদের একাংশ।

শহরে রাস্তার নাম পরিবর্তনে গাফিলতি, স্বীকার করলো কলকাতা পুরসভা

তাঁরা জানিয়েছেন, সেই সময়ে বলা হয়েছিল, শহরের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে নামফলকগুলি বসানো থাকবে। তা হলে সেগুলি গেল কোথায়, পাশাপাশি এক পুরকর্তা জানান, ‘‘অনেক সময়ে যে ফলকও লাগানো হয় না, তা ম্যান্ডেভিল গার্ডেন্সের ঘটনাতেই বোঝা গেল!”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here