‘খেলরত্ন’ কে ধ্যান চাঁদের নামে নামাঙ্কিত করার বিষয়ে মুখ খুললেন মোদী

‘খেলরত্ন' কে ধ্যান চাঁদের নামে নামাঙ্কিত করার বিষয়ে মুখ খুললেন মোদী
‘খেলরত্ন' কে ধ্যান চাঁদের নামে নামাঙ্কিত করার বিষয়ে মুখ খুললেন মোদী

নজরবন্দি ব্যুরো: এবারের টোকিও অলিম্পিকে যথেষ্ট নজর কেড়েছে ভারতীয় অ্যাথলিটরা। যেখানে নীরজ চোপড়া ও লভলিনা র পাশাপাশি ইতিহাসের আঙিনায় স্থান করে নিয়েছে দেশের পুরুষ-মহিলা উভয় হকি দল। তবে আর্জেন্টিনার কাছে পরাজিত হয়ে চতুর্থ স্থানে থেকে টোকিও অলিম্পিক শেষ করতে হয়েছে মহিলা হকি দল কে।

আরও পড়ুনঃ ভারতকে জব্দ করতেই তালিবান তৈরি পাকিস্তানের, স্বীকার আফগান ফরেন মিনিস্টারের

তবে অস্ট্রেলিয়া কে হারিয়ে যেভাবে সেমিতে নিজের যায়গা করে নিয়েছিল রানি রামপাল রা তা সহজেই মন জিতেছে সকলের। তার পাশাপাশি ছেলেদের ব্রোঞ্জ জয়ের মাধ্যমে যেন ফের প্রান ফিরেছে ভারতীয় হকিতে।

9 11

এরপরেই দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নির্দেশে দেশের অন্যতম ক্রীড়া পুরস্কার ” খেলরত্ন” থেকে রাজীব গান্ধীর নাম সরিয়ে ধ্যান চাঁদের নামে নামাঙ্কিত করেন তিনি। যা নিয়ে অনেকেই মনে করছেন, গান্ধী পরিবার কে আঘাত করার জন্যই এই ভাবনা প্রধানমন্ত্রীর। তবে এই নিয়ে কংগ্রেসের তরফ থেকে প্রকাশ্যে কোনো প্রতিবাদ সংগঠিত না হলেও নীরবে প্রতিবাদ শানিয়ে গিয়েছিল।

তবে আজ মেজর ধ্যান চাঁদের জন্মদিবস কে সামনে রেখে মন কি বাতের অনুষ্ঠান থেকে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ” ধ্যানচাঁদজি হকিতে গোটা বিশ্বকে জয় করেছিলেন। প্রায় চার দশক বাদে ভারত সন্তানেরা আবারও ভারতীয় হকিতে প্রাণ সঞ্চার করেছেন। আমরা যতই পদক জিতি না কেন, হকিতে পদক না পাওয়া পর্যন্ত ভারতবাসী আনন্দ পায় না। এবার অলিম্পিকে চার দশক বাদে আমরা পদক পেয়েছি। ভাবতে পারেনে মেজর ধ্যানচাঁদ কতটা খুশি হয়েছেন।”

‘খেলরত্ন’ কে ধ্যান চাঁদের নামে নামাঙ্কিত করার বিষয়ে মুখ খুললেন মোদী

মোদীজির মতে, টোকিও অলিম্পিক গোটা দেশের যুব সমাজের কাছে উৎসাহের অন্যতম এক নিদর্শন গড়েছে। তাই দেশের ছেলেমেয়েরা যখন খেলাধুলার প্রতি আগ্ৰহ প্রদর্শন করছে তাতে খুশি হচ্ছে তাদের অভিভাবকরা। এক কথায় বলতে গেলে খেলাধুলার প্রতি দেশের যুব সমাজ কে উদ্বুদ্ধ করার জন্যই খেলরত্নের নামান্তর করছেন প্রধানমন্ত্রী। তবে এর পিছনে আদৌ কোনো রাজনৈতিক উদ্দেশ্য আছে কিনা সেদিকেও নজর রয়েছে সকলের।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here