বিজেপির তীব্র সমালোচনা, তবে কি শোভন-বৈশাখীর কামব্যাক হতে চলেছে তৃণমূলে?

বিজেপির তীব্র সমালোচনা, তবে কি শোভন-বৈশাখীর কামব্যাক হতে চলেছে তৃণমূলে?
বিজেপির তীব্র সমালোচনা, তবে কি শোভন-বৈশাখীর কামব্যাক হতে চলেছে তৃণমূলে?

নজরবন্দি ব্যুরোঃ বিজেপির তীব্র সমালোচনা, তবে কি শোভন-বৈশাখীর কামব্যাক হতে চলেছে তৃণমূলে? বিজেপিকে কার্যত দুরমুশ করে রাজ্যে তৃতীয় বারের জন্য ক্ষমতায় ফিরেছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের তৃণমূল কংগ্রেস। আর এই বিপুল জয়ের পরেও একগুচ্ছ দলবদলুদের প্রতি দয়া দেখিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। গতকাল সাংবাদিক সম্মেলনে তাঁকে এই ব্যাপারে জিজ্ঞেস করা হলে তিনি জানান “আসুক না। কে বারণ করেছে! এলে স্বাগত”।

আরও পড়ুনঃ করোনার কোপে এবার স্থগিত ডাক্তারির প্রবেশিকা পরীক্ষা নিট, চূড়ান্ত বর্ষের পড়ুয়াদের কোভিড যুদ্ধে সামিল।

কঠিন সময়ে তাঁকে ছেড়ে চলে যাওয়া দলবদলুদের প্রতি এই উদারতা সামনে আসার পরেই দলে ফেরার জল্পনা উস্কে দিয়েছে তাঁর একদা অতিপ্রিয় ‘কানন’ তথা রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী শোভন চট্টোপাধ্যায় ও তাঁর কাছের বন্ধু বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। এক প্রথম সারির সংবাদমাধ্যমে দেওয়া সাক্ষাৎকারে শোভনবাবু প্রথমেই বলেন “মমতার প্রতি কৃতজ্ঞ, ওনাকে অভিনন্দন”। এরপর নন্দীগ্রামের ভোট প্রসঙ্গ তুলে তিনি বলেন “আমারও একই সন্দেহ। আমি বলেওছিলাম। প্রথমে দেখা গেল মমতা জিতে গেল। তার পর হেরেছে। কনফিউশন রয়েই গিয়েছে”। একইসঙ্গে নিজের বর্তমান দল বিজেপির দিকে তীব্র আক্রমন শানান তিনি।

প্রসঙ্গত নির্বাচনের আগে টিকিট নিয়ে জট থেকেই দলের সাথে নরমে গরমে সম্পর্ক শোভনের। আর ভোট মিটতেই তাঁর মুখে এই সুর যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মনে করছে রাজনইতিক মহল। অন্যদিকে তাঁর ছায়াসঙ্গী বৈশাখী। যিনি একধাপ এগিয়ে গতকাল বলেন “মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে কুর্নিশ করি। হুইলচেয়ারে গিয়ে যে ভাবে প্রচার করেছেন”। এরপরেই বিজেপিকে বিঁধে তাঁর সংযোজন “বিজেপির কাছে এতদিন শোভনের জন্য বলেও কিছু পাইনি। মমতা শোভনকে সিকিওরিটি দিয়ে জীবন রক্ষা করেছে”। ইতিমধ্যেই দুজনের পদত্যাগপত্র পৌঁছেছে রাজ্য বিজেপি দপ্তরে।

বিজেপির তীব্র সমালোচনা, তবে কি শোভন-বৈশাখীর কামব্যাক হতে চলেছে তৃণমূলে? এরই মধ্যে এমন সুর তাঁদের পুরনো দল তৃণমূলে ফিরে আসার জল্পনাকে আরও উস্কে দিচ্ছে। তবে সময়ই বলবে ফের মুখ্যমন্ত্রীর আশ্রয়েই ফিরে আসেন কিনা তাঁর একদা খুব কাছের ‘কানন’।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here