পায়নি WHO এর অনুমোদন, রামদেবের ‘কোরোনিল’ নিয়ে তীব্র সমালোচনা খোদ আইএমএর।

পায়নি WHO এর অনুমোদন, রামদেবের ‘কোরোনিল’ নিয়ে তীব্র সমালোচনা খোদ আইএমএর।

নজরবন্দি ব্যুরো: পায়নি WHO এর অনুমোদন, রামদেবের ‘কোরোনিল’ নিয়ে তীব্র সমালোচনা খোদ আইএমএর। হু অনুমোদিত প্রথম প্রমাণ নির্ভর ওষুধ ‘কোরোনিল’, স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষবর্ধন ও পথমন্ত্রী নিতিন গড়করিকে পাশে নিয়ে রীতিমতো ঘটা করে ঘোষণা করে যোগগুরু বাবা রামদেব। সেই ওষুধ নিয়ে এবার প্রশ্ন তুলে দিলো স্বয়ং ইন্ডিয়ান মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশন( আইএমএ)।

আরও পড়ুনঃ ঘোষিত কর্মসূচীর আগেই ফের রাজ্যে আসছেন উপ নির্বাচন কমিশনার!

শুধু তাই নয় এই ঘোষণার তীব্র সমালোচনা করেছে ওই সংস্থা। চিকিত্‍সক সংগঠনটির প্রশ্ন, মিথ্যে মনগড়া, অবৈজ্ঞানিক ওষুধ ‘প্রোমোট’ কী করে করলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী। প্রসঙ্গত দুই কেন্দ্রীয় মন্ত্রীকে নিয়ে কোরোনিল লঞ্চ করেছিলেন যোগগুরু। তাঁদের পেছনে রাখা একটি বিশাল পোস্টারে লেখা ছিল, এই ওষুধ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (হু) অনুমোদন করেছে। কিন্তু এরপরেই হু-এর তরফে টুইট করে জানানো হয়, কোনও প্রথাগত ওষুধকে করোনার ওষুধ বলে মান্যতা দেয়নি তারা।

তারপরেই বিবৃতি দিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে দেশের অন্যতম শীর্ষ মেডিক্যাল সংস্থা। শুধু তাই নয় তারা বেশী ক্ষুব্ধ স্বাস্থ্যমন্ত্রীর উপর. কারণ হর্ষ বর্ধন নিজেই একজন চিকিত্‍সক, তাঁকে পাশে দাঁড় করিয়ে এই নির্জলা মিথ্যে ঘোষণায় ব্যাপক বিস্মিত হয়েছে চিকিত্‍সক সংগঠন। আইএমএ বলছে, দেশের জনগণকে এর ব্যাখ্যা দেওয়া প্রয়োজন স্বাস্থ্যমন্ত্রীর। নিজেদের বিবৃতিতে তারা প্রশ্ন তোলে ‘স্বাস্থ্যমন্ত্রী হিসেবে দেশের সামনে মিথ্যে প্রচার কতটা যুক্তিযুক্ত এবং উপযুক্ত?’

পায়নি WHO এর অনুমোদন, রামদেবের ‘কোরোনিল’ নিয়ে তীব্র সমালোচনা খোদ আইএমএর। স্বাস্থ্যমন্ত্রী হিসেবে তাঁর নৈতিকতা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছে সংগঠনটি। দেশের মানুষের সামনে একটা অবৈজ্ঞানিক ওষধি কী করে প্রচার করলেন তিনি, উঠল প্রশ্ন। এখন দেখার এর পর কি ব্যবস্থা নেয় দেশের স্বাস্থ্যমন্ত্রক।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x