গুগল নীতি লঙ্ঘন সত্ত্বেও ভারতের কিছু ঋণ প্রদানকারী অ্যাপ গুগল প্লে স্টোরে রয়েছে!

গুগল নীতি লঙ্ঘন সত্ত্বেও  ভারতের কিছু ঋণ প্রদানকারী অ্যাপ গুগল প্লে স্টোরে রয়েছে!

নজরবন্দি ব্যুরো: গুগল নীতি লঙ্ঘন সত্ত্বেও ভারতের কিছু ঋণ প্রদানকারী অ্যাপ গুগল প্লে স্টোরে রয়েছে! গুগল প্লে স্টোরে ৫০টি জনপ্রিয় ঋণ প্রদানকারী অ্যাপ রয়েছে; সেইসব অ্যাপ প্রায় সকলেরই ঋণগ্রহীতাদের তাদের ফোন কন্টাক্ট অনুমতি দেওয়ার অপশন দেখায়; এটি রয়টার্সের পর্যালোচনায় দেখা গেছে। গুগলের প্লে স্টোরে এমন ১০টি ভারতীয় ঋণদানকারী অ্যাপ রয়েছে যা লক্ষ লক্ষ বার ডাউনলোড করা হয়েছে। এইসব অ্যাপ ঋণগ্রহীতাদের সুরক্ষার কথা ভাবছে না।এটি গুগলের নিয়ম লঙ্ঘন করেছে।

আরও পড়ুনঃউত্তর দিনাজপুরে CPIM কর্মীকে মাথায় গুলি করে খুন করল আততায়ীরা।

প্লে স্টোর থেকে চারটি অ্যাপ সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।যখন রয়টার্স গুগলকে জানিয়েছে যে তারা ৬০ দিন বা তার কম সময়ে ব্যক্তিগত ঋণ প্রদানের উপর নিষেধাজ্ঞা লঙ্ঘন করছে। রয়টার্সের সাথে শেয়ার করা ছয়টি অ্যাপের ১৫ জন ঋণগ্রহীতার তথ্য অনুযায়ী, এইসব অ্যাপে ঋণ পরিশোধের মেয়াদ কম।১৫ জন ঋণগ্রহীতার মতে, এই অ্যাপগুলির মধ্যে কিছু অতিরিক্ত প্রসেসিং ফি প্রযোজ্য, যা ১০,০০০ টাকার কম ঋণের উপর ২,০০০ (২৭ মার্কিন ডলার) পর্যন্ত প্রযোজ্য।

ভারতীয় রিজার্ভ ব্যাংক ডিসেম্বর মাসে এটি ঋণ অ্যাপগুলি সম্পর্কে একটি পাবলিক নোটিশ জারি করে, যারা “অসাধু কার্যকলাপে” নিয়োজিত, যেমন অতিরিক্ত সুদের হার এবং ফি চার্জ করা। অন্যদিকে এই অ্যাপগুলি, যাদের অনেকেই ঋণগ্রহীতা এবং ঋণ দানকারী প্রতিষ্ঠানের সাথে সংযুক্ত মধ্যস্থতাকারী হিসেবে কাজ করে তাদের দাবি ,তারা আইন ভঙ্গ করছে না কারণ আরবিআই-এর ন্যূনতম ঋণের মেয়াদ সংক্রান্ত কোন নিয়ম নেই। আরবিআই এছাড়াও মধ্যস্থতাকারী তত্ত্বাবধান করে না। ইন্ডিয়া ফাউন্ডেশনের ডিজিটাল রাইটস গ্রুপের প্রধান প্রাভিন কালাইসেলভান বলেন, “উচ্চ প্রক্রিয়াকরণ ফি, স্বল্প মেয়াদী এবং অতিরিক্ত জরিমানার চার্জ সহ এই সব ঋণঅ্যাপ মানুষকে ঋণের ফাঁদে ফেলে দিচ্ছে”।

গুগল নীতি লঙ্ঘন সত্ত্বেও ভারতের কিছু ঋণ প্রদানকারী অ্যাপ গুগল প্লে স্টোরে রয়েছে! গুগল ২০১৯ সালে তাদের প্ল্যাটফর্মের জন্য ব্যবহারকারীদের ক্ষতিকর বা প্রতারণামূলক জায়গা থেকে রক্ষা করার জন্য নিজস্ব বৈশ্বিক নীতি চালু করেছে। ডিজিটাল অধিকার কর্মী এবং প্রযুক্তি নীতি বিষয়ক দিল্লি ভিত্তিক প্রকাশনা মিডিয়ানামা-এর সম্পাদক নিখিল পাহওয়া বলেন”ভারতে ঋণ দানকারী অ্যাপের কোন সুস্পষ্ট নিয়ম নেই।”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x