‘আর অপেক্ষা করতে পারছি না’, মুকুলের ফেরার পরেই কাতর হয়ে আবেদন সোনালীর।

'আর অপেক্ষা করতে পারছি না', মুকুলের ফেরার পরেই কাতর হয়ে আবেদন সোনালীর।
'আর অপেক্ষা করতে পারছি না', মুকুলের ফেরার পরেই কাতর হয়ে আবেদন সোনালীর।

নজরবন্দি ব্যুরোঃ ‘আর অপেক্ষা করতে পারছি না’, মুকুলের ফেরার পরেই কাতর হয়ে আবেদন সোনালীর। চারবার ভোটে জিতলেও এবারের নির্বাচনে সাতগাছি থেকে তাঁকে টিকিট দেননি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাই চোখের জলে দল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেন একদা মমতার ছায়াসঙ্গী সোনালি গুহ। যদিও ভোটে বিজেপি ভোটে মুখ থুবড়ে পড়তেই সোশ্যাল মিডিয়ায় সকলের সামনে মমতার কাছে ক্ষমা চেয়ে প্রথম দলে ফিরিয়ে নেওয়ার অনুরোধ করেছেন সোনালি। একইভাবে চিঠি দিয়ে দলে ফিরতে চেয়েছেন প্রাক্তন তৃণমূলী দিপেন্দু বিশ্বাসও।

আরও পড়ুনঃ মুকুল বিদায়ের কারণ কৈলাসকে জিজ্ঞেস করুন, জানিয়ে দিলেন ক্ষুব্ধ রাহুল সিনহা।

এদিকে গতকালই সপুত্র বিজেপি থেকে তৃণমূলে ফিরে এসেছেন মুকুল রায়। মুকুল রায় তৃণমূলে ফেরার পরই সাংবাদিক বৈঠক থেকে চরমপন্থীদের নিয়ে কঠোর বার্তা দিয়েছেন তৃণমূল সুপ্রিমোমমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। অন্যদিকে নরমপন্থীদের কী হবে ? বিধানসভা নির্বাচনের সময় যারা দলের বিরুদ্ধে কুত্‍সা করেন নি খারাপ কথা বলেন নি তাদের বিরুদ্ধে দল নরম অবস্থান নিতে পারে ইঙ্গিত দিয়েছেন খোদ মমতা। যদিও সেই ব্যাপারে এখনও সরাসরি কিছু বলেননি তিনি। এদিকে উত্তরের অপেক্ষায় কার্যত কাতর সোনালি। এর আগে কালীঘাটে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে দেখাও করে এসেছেন তিনি। এখন শুধু তৃণমূল নেত্রীর ডাকার অপেক্ষা। আর মুকুলের ফেরার পর সোনালি কি বলছেন?

তিনি জানিয়েছেন “জল ছাড়া মাছ যেমন বাঁচতে পারেনা তেমন আমিও মমতা দি ছাড়া বাঁচতে পারছি না। টানা ৩২ বছরের পারিবারিক সম্পর্ক।” তিনি আরও জানান, “ফিরে যাওয়ার বিষয় অনেক আগে থেকেই উপলব্ধি ছিল। সেটা মমতা দিকে জানিয়েছি। আমি ভুল করেছি আমার ভুল স্বীকার করে তুমি আমাকে ভুল সংশোধনের সুযোগ করে দাও মমতা দিকে জানিয়েছি।” সাথে সংযোজন “বিজেপিতে কোথায় যেন খাপ খাইয়ে নিতে পারছিলাম না। রাজ্যের নেতাদের সঙ্গেও মানিয়ে নিতে পারিনি।” বিজেপিকে আমি নমস্কার করছি, তারা সবাই ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন এই কামনা করছি।”

‘আর অপেক্ষা করতে পারছি না’, মুকুলের ফেরার পরেই কাতর হয়ে আবেদন সোনালীর। পাশাপাশি তিনি আরও জানান, “আমার এখন কোনো দাবি নেই। মমতা দি আমাকে যদি যোগদান করিয়ে যে কাজ করতে বলবে নিশ্চয়ই সে কাজ করব। অনুগত সৈনিকের মত। এখন শুধুমাত্র দলনেত্রীর ডাকার অপেক্ষা। দিদি যেদিন ডাকবেন সেদিনই যাবো। আমি আর অপেক্ষা করতে পারছি না।” এখন দেখার একদা ছায়াসঙ্গির আবেদনে সারা দেন কিনা মমতা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here