গার্গল করে ৩ ঘণ্টায় করোনা পরীক্ষা, অভিনব টেস্ট কিটে অনুমোদন স্বাস্থ্যমন্ত্রকের।

গার্গল করে ৩ ঘণ্টায় করোনা পরীক্ষা, অভিনব টেস্ট কিটে অনুমোদন স্বাস্থ্যমন্ত্রকের।
গার্গল করে ৩ ঘণ্টায় করোনা পরীক্ষা, অভিনব টেস্ট কিটে অনুমোদন স্বাস্থ্যমন্ত্রকের।

নজরবন্দি ব্যুরোঃ গার্গল করে ৩ ঘণ্টায় করোনা পরীক্ষা, অভিনব টেস্ট কিটে অনুমোদন স্বাস্থ্যমন্ত্রকের। RAT, RT-PCR এর পর এবার গার্গলের মাধ্যমে করোনা পরীক্ষা। আর সেই নয়া পরীক্ষা পদ্ধতিতে সায় দিল খোদ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। একি সঙ্গে জানিয়ে দেওয়া হল এই নয়া পরীক্ষা পদ্ধতি আগামীদিন হয়ে উঠতে পারে যুগান্তকারী। যার পোশাকি নাম দেওয়া হয়েছে রিয়েল টাইম RT-PCR টেস্ট। প্রসঙ্গত করোনা পরীক্ষায় সবথেকে বিশ্বাসযোগ্য RT-PCR পরীক্ষা। ভাইরাসের জিন বের করে সংক্রমণ ধরা হয় নির্ভুলভাবে। তবে আরটি-পিসিআর টেস্ট খুবই জটিল এবং সময়সাপেক্ষ।

আরও পড়ুনঃ অন্যান্য দেশের সংখ্যালঘু শরণার্থীদের নাগরিকত্ব দেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু কেন্দ্রের।

যার ফলে অনেক ক্ষেত্রেই চিকিৎসায় দেরী হয়ে যাচ্ছে। তাই বাড়ানো হচ্ছে র‍্যাপিড অ্যান্টিবডি টেস্ট (RAT)। এই র‍্যাপিড টেস্টে আবার ফলস নেগেটিভ রিপোর্ট আসার সম্ভাবনা থাকে। সংক্রমণ থাকলেও পরীক্ষায় ধরা পড়ে না। তাই উভয় সমস্যা। সেই সমস্যা মেটাতেই নাগপুরের ন্যাশনাল এনভায়রনমেন্ট ইঞ্জিনিয়ারিং রিসার্চ ইনস্টিটিউট তৈরি করেছে নয়া টেস্ট কিট। RT-PCR পদ্ধতিতে হলেও এই টেস্টের একটা বিশেষত্ব আছে। নাক-মুখ থেকে নমুনা নিতে হবে না। অর্থাত্‍ সোয়াব টেস্ট নয়। গার্গল করলেই ধরা পড়বে করোনা। তাও আবার তিন ঘণ্টার মধ্যেই। আরটি-পিসিআর পদ্ধতিতেই হবে নির্ভুল পরীক্ষা। নয়া কোভিড টেস্ট কিটে ইতিমধ্যেই অনুমোদন দিয়েছে ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অব মেডিক্যাল রিসার্চ (ICMR)। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডক্টর হর্ষবর্ধন বলেছেন এই আরটি-পিসিআর টেস্ট পদ্ধতি নতুন মাইলফলক হতে পারে। একসঙ্গে অনেকের করোনা পরীক্ষা কম সময়ে ও নির্ভুলভাবে করা সম্ভব। কিন্তু কীভাবে পরীক্ষা হবে? আরটি-পিসিআর টেস্টের একটি কিট কিনতে হবে আগে।

এর নাম স্যালাইন গার্গল আরটি-পিসিআর কোভিড টেস্ট। টেস্ট কিটের ভেতরে স্যালাইন ওয়াটার ও টেস্ট টিউব দেওয়া থাকবে। রোগী এই স্যালাইন ওয়াটার দিয়ে গার্গল করবে। সেই জল মুখে থাকবে ১৫ মিনিট। এরপরে মুখের জল টেস্ট টিউবে ভরে ল্যাবরেটরিতে পাঠাবে। এই নিয়ে গবেষক ডক্টর কৃষ্ণ খেইরনার জানান “এই জলের সঙ্গে একটি বাফার মেশাবেন আগে। এই বাফার ভাইরাল স্ট্রেন শণাক্ত করবে। বাফার মেশানোর পরে আধ ঘণ্টা এই তরলকে রাখতে হবে ঘরের তাপমাত্রায়। তারপর ৯৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় ফোটানো হবে। বাফার মেশানো তরল থেকে ভাইরাসের আরএনএ (রাইবোনিউক্লিক অ্যাসিড) বের হয়ে আসবে। ভাইরাল জিন নিয়ে তারপরে আরটি-পিসিআরের বাকি পদ্ধতিগুলো করা হবে। কতটা ভাইরাল লোড আছে তখন বোঝা যাবে। তিন ঘণ্টার মধ্যেই টেস্ট সম্পূর্ণ হবে। রেজাল্টও পেয়ে যাবে রোগী।”

গার্গল করে ৩ ঘণ্টায় করোনা পরীক্ষা, অভিনব টেস্ট কিটে অনুমোদন স্বাস্থ্যমন্ত্রকের। সাধারণ আরটি-পিসিআর টেস্টে ঘণ্টার পর ঘণ্টা অপেক্ষা করতে হয়। সেই সময় কমিয়ে শনাক্তকরন আরও দ্রুত করবে নয়া টেস্ট কিট।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here