আগামী কালই চূড়ান্ত ভোটার তালিকা,কড়া বার্তা উপনির্বাচন কমিশনারের।

আগামী কালই চূড়ান্ত ভোটার তালিকা,কড়া বার্তা উপনির্বাচন কমিশনারের।

নজরবন্দি ব্যুরো: আগামী কালই চূড়ান্ত ভোটার তালিকা,কড়া বার্তা উপনির্বাচন কমিশনারের। আগামী কাল রাজ্যে প্রকাশিত হবে চূড়ান্ত ভোটার তালিকা। তার আগে রাজ্যে দু’দিনের সফরে এসে পুলিশ-প্রশাসনিক কর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করে কড়া বার্তা দিলেন উপ নির্বাচন কমিশনার সুদীপ জৈন। তিনি তাঁদের স্পষ্টতই বুঝিয়ে দিয়েছেন, ভোটের সময় গোলমাল বা রাজনৈতিক হিংসা কোনও ভাবেই বরদাস্ত করা হবে না। হিংসা রুখতে তৈরি থাকতে হবে পুলিশকেই।

আরও পড়ুনঃ বাগবাজারের পর ফের অগ্নিকান্ডের ঘটনা এবার নিউটাউনের ঝুপড়িতে।

দাগি অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে দ্রুত পদক্ষেপ করতে হবে প্রশাসনকে। করোনা কালে বয়স্কদের জন্য পোস্টাল ব্যালটে ভোটের বিষয়টি চিন্তাভাবনা স্তরে রয়েছে। সে ক্ষেত্রে ৮০ বছরের বেশি বয়স্ক ভোটারদের বাড়িতে পোস্টাল ব্যালট পৌঁছে দেওয়া হতে পারে। তা ছাড়াও যাঁরা কেন্দ্রে গিয়ে ভোট দিতে শারীরিক ভাবে অক্ষম, তাঁরাও এমন সুবিধা পাতে পারেন। কমিশনে আবেদন করে ফর্ম পূরণ করলে বাড়িতে পোস্টাল ব্যালট পৌঁছে যাবে। আবার ভোটকর্মীরাই সেই ব্যালট নিয়ে আসবেন। গোটা বিষয়টি ভিডিয়োগ্রাফি করা হবে।

২১এর বিধানসভা ভোটকে কেন্দ্র করে রাজ্য রাজনীতিতে শুরু হয়েছে চাপানোতর। নবান্ন দখলকে কেন্দ্র করে ইতিমধ্যেই শুরু হয়েছে দলবদলের পালা সঙ্গে ইন্ধন জুগিয়েছে নেতা নেত্রীদের কাদা ছোড়াছুড়ি পর্ব। এসবের মধ্যেই গতকাল মধ্য কলকাতার একটি পাঁচতারা হোটেল বৈঠক করেন উপনির্বাচন কমিশনার কর্তা সুদীপ জৈন। ওই বৈঠকে উপস্হিত ছিলেন দক্ষিণবঙ্গ এবং উত্তরবঙ্গের পুলিশ-প্রশাসনিক কর্তারা। আজ, বৃহস্পতিবার রাজ্যের বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ দফতরের সচিবদের সঙ্গে বৈঠক করেন তিনি।

আগামী কালই চূড়ান্ত ভোটার তালিকা,কড়া বার্তা উপনির্বাচন কমিশনারের। ছিলেন স্বাস্থ্য, শিক্ষা দফতরের সচিবেরা। আমপান ঘূর্ণিঝড়ের পর ক্ষতিগ্রস্তদের বর্তমান অবস্হা, স্কুল বাড়িগুলি সারানো প্রসঙ্গ ও পরীক্ষার সময়সূচি-সহ নানা বিষয়ে আধীকারিকদের কাছে জিজ্ঞাসাবাদ করেন তিনি। সূত্রের খবর, বৈঠকে ছিলেন আয়কর, শুল্ক দফতরের অফিসারেরাও। ভোটের সময় কালো টাকার লেনদেন নিয়ে প্রতিবারই অভিযোগ ওঠে। এ বার আগে থেকে সে বিষয়ে কড়া পদক্ষেপ করার নির্দেশ দিয়েছেন কমিশন কর্তা। রাজ্যে নির্বাচন কমিশনএর গোটা টীম আসার আগে এ বিষয়ে বিস্তারিত তথ্যতালাশ করে দিল্লি ফিরে গিয়েছেন বিকেলে। তার আগে অবশ্য তিনি ত্রিপুরা ভবনে ঘুরে যান। মনে করা হচ্ছে, জানুয়ারির ১৮ থেকে ২২ তারিখের মধ্যে কমিশনের ফুল বেঞ্চ আসতে পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x