অতিমারিতে বন্ধ স্কুল-কলেজ, ক্লাস নিতে পড়ুয়াদের ‘দুয়ারে শিক্ষক’ সাবির চাঁদ!

অতিমারিতে বন্ধ স্কুল-কলেজ, ক্লাস নিতে পড়ুয়াদের 'দুয়ারে শিক্ষক' সাবির চাঁদ!

নজরবন্দি ব্যুরোঃ অতিমারিতে বন্ধ স্কুল-কলেজ, ক্ষতিগ্রস্ত শিক্ষার্থীদের পড়াশোনা। পরিবর্তিত আর্থসামাজিক পরিস্থিতিতে শিশু কিশোরদের অনেকেই শিশুশ্রমিকে পরিণত হচ্ছেন। বাড়ছে স্কুলছুট। কোথাও লুকিয়ে বাল্যবিবাহও হয়ে যাচ্ছে।বিপণ্ণ হচ্ছে শিশুদের শৈশব। এই প্রেক্ষাপটে গ্রামের ছেলেমেয়েদের লেখাপড়ার অভ্যাসটি যাতে বজায় থাকে সেজন্য ‘দুয়ারে শিক্ষক কর্মসূচী’ নিয়েছেন এক শিক্ষক।

আরও পড়ুনঃ শিলিগুড়িতে কর্পোরেশন নির্বাচন, ‘যেন তেন প্রকারেণ’ জিততে মরিয়া তৃণমূল।

মুর্শিদাবাদ জেলার রেজিনগর গ্রামের বিভিন্ন বাড়ির দুয়ারে বইপত্র নিয়ে হাজির হয়ে যাচ্ছেন স্থানীয় বেলডাঙ্গা-২ নং ব্লকের রামপাড়া – মাঙ্গনপাড়া হাইস্কুলের শিক্ষক সাবির চাঁদ। চার-পাঁচজন করে ছাত্র-ছাত্রী নিয়ে কোভিড স্বাস্থ্যবিধি মেনে তাদের পাঠ বুঝিয়ে দিচ্ছেন, পড়ার অভ্যাস বজায় রাখতে উৎসাহিত করছেন। সেইসঙ্গে গ্রামীণ মহিলাদের মধ্যে বাল্যবিবাহ সম্পর্কে জনসচেতনতামূলক প্রচারপর্বও চালাচ্ছেন।

শিক্ষক সাবির চাঁদের এই গৃহ দুয়ারে এসে ভ্রাম্যমাণ পাঠদান প্রক্রিয়ায় ছাত্র/ছাত্রীরা খুবই উচ্ছ্বসিত। তারা যেনো পুনরায় তাদের স্কুল ও মাস্টারমশাইকে ফিরে পেয়েছে।নবম শ্রেণির ছাত্রী রিংকি খাতুনের কথায়–“আমাদের খুবই ভালো লাগছে। সাবির চাঁদ স্যর নিজে বাড়িতে এসে ক্লাস নিচ্ছেন, আমাদের পড়া বুঝিয়ে দিচ্ছেন। আমরা এবার ভালোভাবে বিদ্যালয় থেকে দেওয়া এ্যাক্টিভিটি টাস্ক গুলো করতে পারবো।”

অতিমারিতে বন্ধ স্কুল-কলেজ, ক্লাস নিতে পড়ুয়াদের ‘দুয়ারে শিক্ষক’ সাবির চাঁদ!

অতিমারিতে বন্ধ স্কুল-কলেজ, ক্লাস নিতে পড়ুয়াদের 'দুয়ারে শিক্ষক' সাবির চাঁদ!
অতিমারিতে বন্ধ স্কুল-কলেজ, ক্লাস নিতে পড়ুয়াদের ‘দুয়ারে শিক্ষক’ সাবির চাঁদ!

দুুুয়ারে শিক্ষক কর্মসূচীর উদ্যোক্তা শিক্ষক সাবির চাঁদ এ প্রসঙ্গে জানালেন–“লকডাউনের প্রথমদিকে অনলাইনে ক্লাস শুরু করেছিলাম। কিন্তু গ্রামের বেশিরভাগ দরিদ্র পরিবারের প্রথম প্রজন্মের পড়ুয়াদের বাড়িতে স্মার্টফোন না থাকার জন্য সেভাবে সাড়া পাচ্ছিলাম না, এজন্য বাড়ির দুয়ারে গিয়ে কোভিড বিধি মেনে দু-চারজন করে ছাত্র/ছাত্রী নিয়ে পাঠ বুঝিয়ে দিচ্ছি। শিক্ষার্থীদের চোখেমুখে আনন্দের প্রকাশ দেখে ভালো লাগছে।কাজের আরও উৎসাহ পাচ্ছি।”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here