মৃত্যুর তীব্রতা ফের উর্দ্ধমুখি বাংলায়, কমল দৈনিক সংক্রমনের সংখ্যা।

মৃত্যুর তীব্রতা ফের উর্দ্ধমুখি বাংলায়, কমল দৈনিক সংক্রমনের সংখ্যা।

নজরবন্দি ব্যুরোঃ মৃত্যুর তীব্রতা ফের উর্দ্ধমুখি, বাংলায় কমল দৈনিক সংক্রমনের সংখ্যা। রাজ্যজুড়ে কিছুটা হলেও এদিন প্রভাব কমেছে করোনাভাইরাসের, শুধু সংক্রমনের গতি কমেনি কলকাতায়। রাজ্যে সামান্য বেড়েছে সুস্থতার হারও। কিন্তু তবুও কমছে না সংক্রমনের আশঙ্কা। গবেষকরা জানিয়েছেন শীতকালে সংক্রমনের গতি বাড়ার আশঙ্কা রয়েছে। বাড়তে পারে মৃত্যুহারও। দেশের স্পর্শ্বকাতর ৫টি রাজ্যের মধ্যে রয়েছে পশ্চিমবঙ্গও।

আরও পড়ুনঃ ‘পদ নয়, পতাকা.. নেত্রীর নাম মমতা!’ বিজেপি কে ‘২১ যুদ্ধে চ্যালেঞ্জ অভিষেকের।

রাজ্যের একাধিক জেলাতে করোনা ভাইরাসের প্রভাব কমলেও কলকাতা আর উত্তর ২৪ পরগণা শুরুর সময় থেকে মৃত্যু এবং সংক্রমনের হারে একই ট্রেন্ড বজায় রেখেছে। আজও কলকাতায় নতুন করে সংক্রামিত হয়েছেন ৮২৬ জন। মৃত্যু হয়েছে ১৩ জনের। আজকের বুলেটিনে রাজ্য সরকার জানিয়েছে গত ২৪ ঘন্টায় করোনা ভাইরাসে সংক্রামিত হয়েছেন ৩ হাজার ৩৬৭ জন।

মৃত্যুর তীব্রতা ফের উর্দ্ধমুখি বাংলায়। আজকের ৩ হাজার ৩৬৭ জন কে নিয়ে রাজ্যের মোট আক্রান্ত সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪ লক্ষ ৮০ হাজার ৮১৩ জন। আশার কথা হল, এই বিপুল আক্রান্তের মধ্যে এখন চিকিৎসাধীন রয়েছেন মাত্র ২৪ হাজার ৪০৫ জন। যা গতকালের থেকে ১৩২ জন কমেছে। রাজ্যে দ্রুত বাড়ছে সুস্থতার হার সামান্য হলেও কমছে করোনা ভাইরাসের দাপট।

ক্রমেই বাড়ছে সুস্থতার হার, মৃত্যু সংখ্যায় রাজ্যকে ভোগাচ্ছে কো-মর্বিডিটি! মৃত্যুর গড় ৫০ – ৫৫ জন। সবথেকে বেশি মৃত্যু হচ্ছে যারা কোমর্বিডিটিতে ভুগছেন তাঁদের। এখন পর্যন্ত রাজ্যে মৃত্যু হয়েছে ৮ হাজার ৩৭৬ জনের। মৃত ৮ হাজার ৩৭৬ জনের মধ্যে গত ২৪ ঘন্টায় মারা গিয়েছেন ৫৪ জন। অন্যদিকে গত ২৪ ঘন্টায় সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৩ হাজার ৪৪৫ জন। আজকের ৩ হাজার ৪৪৫ জন কে নিয়ে এখন পর্যন্ত রাজ্যে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৪ লক্ষ ৪৮ হাজার ৩৫ জন।

এদিনের বুলেটিনে রাজ্য সরকার জানিয়েছে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা ভাইরাসের টেস্ট হয়েছে মোট ৪৫ হাজার ২০৮ টি। এখন পর্যন্ত রাজ্যে মোট টেস্টের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫৮ লক্ষ ৩৪ হাজার ৭৫৫ টি। রাজ্যে প্রতি ১০ লক্ষ মানুষ পিছু টেস্ট হয়েছে ৬৪ হাজার ৮৩১ জনের। প্রতি ১০০ টি স্যাম্পেল টেস্ট পিছু রাজ্যে আক্রান্তের সংখ্যা ৮.২৪ শতাংশ। রাজ্যে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তদের মধ্যে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৯৩.১৮ শতাংশ। দেখুন জেলা ভিত্তিক পরিসংখ্যান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x